প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে কিছু ভাবনা
প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৫:২৮
প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে কিছু ভাবনা
মো. মঈনুল হোসেন
প্রিন্ট অ-অ+

মানুষের মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে শিক্ষা এমন এক শক্তি, যা জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সকল মানুষের স্বপ্ন দেখার প্রথম সোপান।


বাংলাদেশের সংবিধানের ১৭ নং অনুচ্ছেদে প্রাথমিক শিক্ষাকে সার্বজনীন ও বাধ্যতামুলক করার বিধান রাখা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে ৩৬,১৬৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। বস্তুত বাংলাদেশের ইতিহাসে এ সময়েই প্রথম প্রাথমিক শিক্ষাকে সাংবিধানিক অধিকার হিসেবে স্বীকার করে নেয়া হয়, যা ছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের জন্য একটি সাহসী পদক্ষেপ। বঙ্গবন্ধুর পদাঙ্ক অনুসরণ করে জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে ২৬১৯৩ টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের মাধ্যমে ১১১০৪৩ জন শিক্ষকের চাকুরি সরকারিকরণ করেন।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের রূপকং-২০২১ বাস্তবায়নে বর্তমান সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। ইতিমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষমাত্রা সফলভাবে অর্জিত হয়েছে। জাতিসংঘ গৃহীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে চালুকৃত কর্মসূচিসহ প্রযুক্তিনির্ভর প্রাথমিক শিক্ষা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে প্রাথমিক শিক্ষা ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আর প্রাথমিক শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে একযোগে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনষ্টিটিউট (আইআর) ।


আমি প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের একজন সদস্য হিসেবে স্বপ্ন দেখি সেই দিনের, যা অচিরেই বাস্তবায়িত হবে। এ বিষয়ে কিছু সুপারিশ প্রদান করছি।


১) বিদ্যালয় হবে শিশুবান্ধব, যাতে থাকবে না শিক্ষক ও কক্ষস্বল্পতা এবং স্যানিটেশন সমস্যা।
২) বিদ্যালয়ের পরিবেশ এতটাই আকর্ষণীয় ও নিরাপদ হবে যাতে শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে অবস্থান করতে বাড়ির থেকে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করবে এবং পর্যাপ্ত খেলাধুলার ব্যবস্থা থাকবে।
৩) সকল শিক্ষার্থী কাঙ্ক্ষিত শিখনফল অর্জনের মাধ্যমে প্রান্তিক যোগ্যতা অর্জন করবে এবং দক্ষ ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবে।
৪) পর্যাপ্ত শিক্ষক থাকবে, যাতে পাঠের গুণগত মান নিশ্চিত করে সঠিকভাবে পাঠদান সম্পন্ন করতে পারবে।
৫) দেশের সর্বাধিক যোগ্য ও মেধাবী নাগরিকরাই শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেবে।
৬) শিশুরা প্রযুক্তিনির্ভর পাঠদান কার্যক্রমে অভ্যস্ত হবে।
৭) শিক্ষকদের নিয়মিত পদোন্নতির ব্যবস্থা থাকবে।


লেখক : থানা শিক্ষা কর্মকর্তা, সূত্রাপুর ঢাকা


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com