আমি এমন একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্ন দেখি...
প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৭, ১৭:২১
আমি এমন একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্ন দেখি...
খন্দকার হাবীব আহসান
প্রিন্ট অ-অ+

আমি এমন একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্ন দেখি, যেখানে ভর্তি পরীক্ষা লিখিত হওয়ার পর সমন্বিত ইউনিট করে, মৌখিক পরীক্ষায় নির্ধারণ হয়, আমি কোন বিভাগের ভর্তি হতে ইচ্ছুক এবং তার যোগ্য কি-না।


সেটা অবশ্যই লিখিত পরীক্ষার মেধাক্রমের প্রাধান্য দিয়ে নয়, মৌখিক পরীক্ষার প্রাধান্য দিয়ে হয়।


যেখানে আমি সকল কাজ অনলাইনে করি, চলমান অনলাইন প্রক্রিয়ার সাথে আরও বাকি কাজগুলো যেমন, ভর্তির টাকা জমা, রেজিস্ট্রার অফিসের কাজ, বিভাগের কাজ, হলের কাজ সবকিছুই। যেখানে আমাকে যে কোনো টাকা জমা অনলাইনে দিতে হয়।


বিভাগীয় চেয়ারম্যান, হল প্রভোস্ট, অনুষদ ডিন, ভিসি মহোদয় সকলের স্বাক্ষরের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হয়, যা নির্দিষ্ট শিক্ষকের মেইলে যায় এবং তিনি অফিস চলাকালীন সময়ে সেটা চাইলে স্বাক্ষর দেন অনলাইনে অথবা প্রত্যক্ষন করেন। যার সমস্যা ফিরতি মেইলে সংশ্লিষ্ট অফিস কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে তৎক্ষনাৎ জানিয়ে দেয়া হয়।


যেখানে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের বর্তমান অবস্থার উল্লেখ থাকে, যা শিক্ষার্থী কর্তৃক আপলোডকৃত এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত। তবে একাডেমিক অবস্থা, ফলাফল এ জাতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আপলোডকৃত।


বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের জন্য নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগ আ্যপস থাকে, যেখানে সকলের ব্যক্তিগত প্রোফাইলে বিভাগ, হল বা হলের বাইরে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের সকল তথ্য দেয়া থাকে।


হলের আবাসিক/অনাবাসিক অবস্থা, বাস শিডিউল, সকল বাসের তৎক্ষনাৎ অবস্থান, হলে রুম নং, হলে অবস্থানের মেয়াদকাল, বিশেষ বিবেচনায় অতিরিক্ত মেয়াদে হলে অবস্থানের কারন উল্লেখ থাকে।


ছাত্র রাজনীতির সাথে যুক্ত সকলের স্পষ্ট অবস্থান, ইতিবাচক কাজ বা অপরাধ থাকলে তার বিবরণ উল্লেখ থাকে।


যেখানে হলের ক্যান্টিন, ডাইনিং, ক্যাম্পাসের সকল দোকানের মালিকদের প্রোফাইল থাকে যেখানে সকল শিক্ষার্থীর বকেয়া হিসাব থাকলে তা উল্লেখ থাকে।


নির্দিষ্ট বিভাগের পড়াশুনো বিষয়ক গ্রুপ থাকে, যেখানে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আলোচনা করে এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক গবেষণা ও অনান্য বিষয়াদির বিস্তারিত বিবরণ থাকে, যা শিক্ষক বা ছাত্র কর্তৃক আপলোডকৃত।


বর্হিবিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে শিক্ষার্থীদের আন্তঃসংযোগ থাকে নিয়মিত।


শ্রেণি হাজিরা অনলাইনে নেয়া হয় এবং যার গড় বা মোট হাজিরার শতাংশ শিক্ষার্থীর ব্যক্তিগত প্রোফাইলে সবসময় প্রদর্শিত হয়, যাতে করে সে তার বর্তমান অবস্থান বুঝতে পারে।


কোনো শিক্ষার্থীর অকৃতকার্য হওয়া বা পুনঃভর্তির বিষয়ে সকল বিভাগের জন্য একই নিয়ম, আদায়কৃত জরিমানার স্পষ্ট কারন, এ বিষয়ক সকল বিবরণ অনলাইনে উল্লেখ থাকে।


বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল নিয়মকানুন, সুযোগ-সুবিধা, শিক্ষার সুযোগ সকলের জন্য সহজলভ্য ও উন্মুক্ত থাকে অনলাইনে।


বিশ্ববিদ্যালয় তার নিয়ম কানুনে সৎ এবং শিক্ষকগণের আন্তরিকতা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগে একই ধরনের নিয়মকানুনের ব্যবস্থা ও যে কোনো কাজে এনালগ পদ্ধতিতে কালক্ষেপন না করে, শিক্ষার্থীদের সকল কাজ দ্রুত অনলাইনে সম্পাদন করে। শিক্ষার্থীর ব্যক্তিগত প্রোফাইলে তার একাডেমিক, সহশিক্ষা, রাজনৈতিকসহ সকল বিষয়ের বিবরণ উল্লেখ করে, শিক্ষক-শিক্ষার্থী সম্পর্ক আরও উন্নয়ন করে জানার ও পড়াশুনার সুযোগ বৃদ্ধি করতে পারলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হবে বিশ্বের অন্যতম ব্যতিক্রমী ও সেরা বিশ্ববিদ্যালয়। যা বর্তমান অবস্থার চেয়ে উন্নততর হবে।


আমি স্বপ্ন দেখি এমন একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যাকে দেখে অক্সফোর্ডের শিক্ষার্থীরা বলবে, ইংল্যান্ডের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হল অক্সফোর্ড।


আমি ঠিক এমন একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্ন দেখি...


লেখক : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়


বিবার্তা/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com