লকডাউনের খবরে ঢাকা ছাড়ছে ঘরমুখী মানুষ
প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০২১, ১৯:৩০
লকডাউনের খবরে ঢাকা ছাড়ছে ঘরমুখী মানুষ
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার কারণে বুধবার থেকে ফের কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। তাই আটকা পড়ার আশঙ্কায় ঢাকা ছাড়ছে রাজধানীতে বসবাসকারী বিভিন্ন জেলার মানুষ। কিন্তু দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ থাকায় তারা মিনিবাস ও মাইক্রোবাসে করে ঢাকা ত্যাগ করছেন।


জানা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। প্রথম দফায় সাতদিনের জন্য এই লকডাউন দেয়া হয়েছে। এ সময়ে জরুরি সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ছাড়া সরকারি-বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে গণপরিবহন। তাই ঢাকায় বসবাসকারী বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষদের গ্রামের চলে যেতে দেখা গেছে।



গত রবিবার (১১ এপ্রিল) রাতে কাওরান বাজার এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, সবজির গাড়িতে করে নিম্ন আয়ের লোকজন ঢাকা ত্যাগ করছেন। শুধু নিম্ন আয়ের মানুষই নয়, রাজধানীর বেশির ভাগ বাসিন্দা গ্রামে চলে যাচ্ছেন।


ফার্মগেটের বাসিন্দা মনির মিয়া বিবার্তাকে জানান, বেসরকারি একটা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন তিনি। তাই পরিবারে নিয়ে ফার্মগেট এলাকায় বসবাস করেন। কিন্তু কঠোর লকডাউনের কথা শুনার পর গতকাল তিনি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে করে গ্রামে চলে গেছেন। এছাড়া সায়দাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকেও মাইক্রোবাসে করে মানুষ ঢাকা ত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে।



পশ্চিম তেজতুরী বাজার এলাকার বাসিন্দা তুহিম আহমেদ। তিনি একটি ভবনের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন। সোমবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় তিনি বিবার্তাকে বলেন, কঠোর লকডাউনের কথা শুনে ইতোমধ্যে তাদের ভবন থেকে অর্ধেক লোকজন গ্রামে চলে গেছেন। তারা কিভাবে গেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেউ কেউ প্রাইভেটকার নিয়ে গেছেন। আবার কেউ কেউ বিকল্প গাড়িতে করেও বাড়ি গেছেন।



এদিকে, সোমবার (১২ এপ্রিল) রাজধানীর গাবতলী, কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, শ্যামলী, মহাখালী বাস টার্মিনাল ঘুরে দেখা যায়, প্রতিদিনের মতো আজও মানুষ ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছেন। জীবন-জীবিকার তাগিদে ঢাকায় এলেও অনিশ্চয়তা নিয়ে আবার ফিরে যাচ্ছেন পরিবারের কাছে।


বগুড়া যাওয়ার জন্য কল্যাণপুর আসা যাত্রী হান্নান হোসেন বলেন, এখান থেকে কিছু প্রাইভেটকার যাচ্ছে। তবে ভাড়া চাচ্ছে অনেক বেশি। ট্রাকেও অনেকে যাচ্ছে, তবে ভাড়া বেশি। সামনের লকডাউনে নাকি গাড়িও চলতে দেবে না। তাই অনেকেই গ্রামে চলে যাচ্ছে। ঠিক এই সুযোগটাই কাজে লাগাচ্ছে এসব ট্রাক ও প্রাইভেটকারের ড্রাইভাররা।



যাত্রী মানসুরা বেগম বলেন, ঢাকায় এসেছিলাম চাকরির জন্য। কিন্তু করোনার কারণে লকডাউন দিয়েছে। তাই আবার ফিরে যাচ্ছি।


একই চিত্র গাবতলী বাস টার্মিনালে। স্বাভাবিক সময়ে সরগরম থাকলেও সরাসরি বাস টার্মিনালের ভেতরে দাঁড়িয়ে আছে। তাই অপেক্ষারত যাত্রীদের যেতে হবে ভাড়ায় চালিত প্রাইভেটকারে।


বিবার্তা/খলিল/গমেজ/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com