‘জিততে জিততে হেরে গেলাম’
প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:২৪
‘জিততে জিততে হেরে গেলাম’
মো. আবুল বাশার নয়ন
প্রিন্ট অ-অ+

পণ্ডিত জওহরলাল নেহেরু বলেছিলেন, ‘একটি জঙ্গি মিছিলে যে লোকটি ইট দিয়ে পুলিশের মাথা ফাটালো সে হয়ে যায় নায়ক। মিডিয়াতে তাকে নিয়ে মাতামাতি শুরু হয়ে যায়। কিন্তু যে গরিব কনস্টেবলটি তাঁর কর্তব্য করতে আহত হলো তাঁর খোঁজ কাকপক্ষীও নেয় না।


পণ্ডিত নেহেরু কি জানতেন একবিংশ শতাব্দিতে এসে বান্দরবানের দূর্গম বাইশারীতে তাঁর লেখা বাস্তবতার সাথে মিলে যাবে!


গত ৭ সেপ্টেম্বর বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র থেকে বিদায় নিয়েছেন সাবেক ইনচার্জ এসআই আবু মূসা। যতদূর জানি, তিনি ছিলেন দুর্দান্ত সাহসী অফিসার। তার কর্মস্থল বাইশারী যেমন বাণিজ্যিক সম্ভাবনাময় এলাকা তেমনি ভৌগলিকগত কারণে সন্ত্রাসীদের নিরাপদ আশ্রয়স্থলও। তাই এই পুলিশ কর্মকর্তাকে ২২ মাসের কর্মকালে অনেক ঝড়ঝাপটা মোকাবেলা করতে হয়েছে। তাঁকে বিভিন্ন সময় হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়েছে। তারপরও তিনি পিছপা হননি। একে একে সালাম ডাকাত, গিয়াস ডাকাত, তারেক ডাকাত, মতলব ডাকাত, নুরুল হাকিম ডাকাত, শফিউল ডাকাত, জসিম উদ্দিন প্রকাশ পেটি জসিম, সেলিম ডাকাত ও জাহাঙ্গীর ডাকাতসহ ৯জনকে গ্রেফতার করে ছত্রভঙ্গ করে দেন ওদের গ্যাং। ফলে সন্ত্রাসীদের আতঙ্ক হয়ে পড়েন আবু মূসা। তাঁর সর্বশেষ লক্ষ্য ছিল সন্ত্রাসী বাহিনী প্রধান আনাইয়্যাকে আইনের আওতায় এনে পুরো বাহিনীটাকে গুড়িয়ে দেয়া। এতে করে একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর পতন ঘটবে আবার তাঁর জীবনের একটি বড় প্রাপ্তি পিপিএম পুরষ্কারও অর্জন হবে!


১১ সেপ্টেম্বর সাহসী এই পুলিশ কর্মকর্তা ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ‘জিততে জিততে, হেরে গেলাম!’। তিনি আরো লিখেছেন- ‘চলে এসেছি পূর্বকর্মস্থল বাইশারী থেকে। কিন্তু অসংখ্য মানুষ যখন ফোন করে আমাকে মিস করার কথা বলে, স্মৃতির কথা বলে, শুভ কামনার কথা বলে ভালই লাগে। দোয়া চাই যেন মানুষের উপকার করে বাকি পথ চলতে পারি।'


তিনি লিখেছেন, ''জিততে জিততে হেরে গেলাম, আর আনোয়ার ডাকাত মরতে মরতে বেঁচে গেল। দুর্ভাগ্য আমার পিপিএম পুরষ্কার হাতছানি দিয়ে ডাকলেও পাওয়া হল না আমার। ষড়যন্ত্রের কমতিও ছিল না। কিছু নেতা নামধারী বদমাশকে পাত্তা দিইনি, তাদের ইচ্ছেমতো চলিনি। ... নয় জন ডাকাত ধরে কোর্টে পাঠিয়েছি। যারা এরপরও আমাকে ভাল বুঝেনি তাদের বোধয় বুঝার ক্ষমতা প্রশ্নবিদ্ধ।''


ষ্পষ্টভাষী এই পুলিশ কর্মকর্তা তাঁর লেখায় যেভাবে স্বপ্ন ভঙ্গের কথা বলেছেন তেমনি ক্ষোভ আর ষড়যন্ত্রের কথাও উল্লেখ করেছেন। তিনি কেনই বা লিখবেন না! সন্ত্রাসীরা এসআই আবু মূসাকে কর্মস্থল থেকে সরিয়ে নিতে রাবার শ্রমিকদের মাধ্যমে প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিয়েছে। এই আল্টিমেটামের সপ্তাহের মধ্যেই বদলি হয়েছেন তিনি।


গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে কাছ থেকে তাঁর পেশাগত দায়িত্ব পালন করা দেখেছি। দেখেছি, দায়িত্ব পালনের সময় যত সমস্যাই আসুক না কেন তিনি পিছপা হননি। বাইশারীর আইনশৃংখলা পরিস্থিতির কথা কারো অজানা নয়। বাইশারীবাসির কাছে তিনি স্মরণীয় হয়ে আছেন, থাকবেন আজীবন।


লেখক: গণমাধ্যমকর্মী, বান্দরবান।


বিবার্তা/কামরুল/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com