ইচ্ছে করে, আমিও খুনী হই
প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০১৮, ১৭:৫৫
ইচ্ছে করে, আমিও খুনী হই
কবীর চৌধুরী তন্ময়
প্রিন্ট অ-অ+

ব্যাপারগুলো খারাপ লাগে। রক্ত টগবগিয়ে উঠে। ইচ্ছে করে, আমিও খুনী হই। ধরে-ধরে নরপশুদের হত্যা করি। এই সমাজে যত নরপশু আছে; সবগুলোকে হত্যা করি।


কিন্তু আমি হতাশ নই। আমার ভেতরে এমন হতাশা বোধ হয় না যে, আর এই দেশে থাকতে ইচ্ছে করে না, এই দেশ আমার নয়!


খবরটি অত্যন্ত মর্মান্তিক। খাগড়াছড়ির ৯ বছর বয়সী পূর্ণাকে প্রথমে ওরা ধর্ষণ করেছে। তাতেও পুরোপুরি সন্তুষ্ট হয়নি ওরা। তাই এবার ওর দুটো হাত কেটে দিয়েছে। এরপর ওর যৌনাঙ্গ কেটে ক্ষতবিক্ষত করেছে! পায়ুপথে গাছের গুড়ি ঢুকিয়ে দিতেও দ্বিধা করেনি দুরাচারের দল।


ধর্ষণ, হাত কাটা, যৌনাঙ্গ ক্ষত-বিক্ষত, পায়ুপথে গাছের গুড়ি.. উফ! ভাবতেই আমার শরীরের রক্ত টগবগিয়ে ওঠে। প্রচন্ড ইচ্ছে করে, সবগুলো নরপশুকে হত্যা করতে, খুনী হতে..!!


অন্যদিকে ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর করুণ মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন।


এটা মৃত্যু নয়, হত্যা। রাষ্ট্রের অব্যবস্থাপনায় জনগণ প্রতিনিয়ত হত্যা হচ্ছে। পঙ্গুত্বের শিকার হচ্ছে।


শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী ছেলে-মেয়ের ছবি স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। আমি অপলক তাকিয়ে অশ্রু ধরে রাখতে পারেনি। এখানেও কতিপয় নরপশু দুই শিক্ষার্থীর জীবনের আলো নিভিয়ে দিয়েছে।


তারও আগে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ পঞ্চম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. সাইদুর রহমান পায়েলকে অচেতন অবস্থায় সেতু থেকে খালে ফেলে দেয় বাসের ড্রাইভার-হেল্পার। ফেলে দেয়ার আগে তার পরিচয় লুকাতে হানিফ পরিবহনের বাসের চালক থেঁতলে দিয়েছিল পায়েলের মুখ।


কতটা বর্বর, নৃশংস!


খাগড়াছড়ির পূর্ণাকে ধর্ষণ ও হত্যা, শিক্ষার্থী পায়েলকে পরিকল্পতিভাবে হত্যা এবং শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু - এগুলো রাষ্ট্রযন্ত্রের কতিপয় নীতিনির্ধারকের হৃদয় স্পর্শ না করলেও রাষ্ট্র এসব হত্যার দায়ভার এড়াতে পারে না।


ধর্ষক-খুনীরা চায়, আমি-আপনি যেন বলি, এই দেশ আমার নয়। এই দেশে আর বাঁচতে ইচ্ছে করে না। এই দেশে আর থাকতে ইচ্ছে করে না।


কিন্তু বেজন্মারা না-চাইলেও এই দেশ আমার। এই দেশ আমাদের। এই দেশ কোনো খুনী কিংবা ধর্ষকের নয়। এই দেশ কোনো ভণ্ড রাজনীতিকের নয়।


শুধু আমাদের একটু জেগে উঠতে হবে। ধর্ষক-খুনীদের সামাজিক-রাষ্ট্রীয়ভাবে বিতাড়িত করতে হবে। তাদের পাপের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে আমাদের একে অন্যের হাত ধরে সিদ্ধান্ত নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।


লেখক : সভাপতি, বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com