ঢাকা আ.লীগের ইতিহাসে আমরাই প্রথম ইউনিট পর্যায়ে সম্মেলন করছি
প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৪৬
ঢাকা আ.লীগের ইতিহাসে আমরাই প্রথম ইউনিট পর্যায়ে সম্মেলন করছি
সোহেল আহমদ
প্রিন্ট অ-অ+

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হওয়ার পর বছর পার হতে চললেও পুরনো কমিটিতে চলছে থানা-ওয়ার্ডের কার্যক্রম। এ নিয়ে বিবার্তা২৪ ডটনেট কথা বলেছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমানের সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বিবার্তা প্রতিবেদক সোহেল আহমদ।


২০২০ সালের ১৮ নভেম্বর ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের ৯২ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হওয়ার পর বছর পার হতে চললেও পুরনো কমিতে চলছে থানা-ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যক্রম। এসব থানা-ওয়ার্ডে নতুন করে কমিটি গঠনের জন্য শুরু হয়েছে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন। ইউনিট পর্যায়ে চলছে সম্মেলন। উত্তর আওয়ামী লীগের ৬৪টি ওয়ার্ডে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠনের জন্য মহানগরের নেতা ও থানা কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে যুক্ত করে গঠন করা হয়েছে টিম।


বিবার্তা: অক্টোবরের শুরুর দিকে আপনাদের ইউনিট পর্যায়ের সম্মেলন শুরু হয়েছিলো। বর্তমানে কোন পর্যায়ে আছে?


বজলুর রহমান: ঢাকা মহানগর উত্তরে ৬৪টি ওয়ার্ড রয়েছে। এসব ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে ৭টি থেকে ১৫ টি পর্যন্ত ইউনিট রয়েছে। এসব ওয়ার্ডে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠনের জন্য মহানগরের নেতা ও থানা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে যুক্ত করে টিম গঠন করা হয়েছে। ইউনিট পর্যায়ে দলের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের কাজ একসাথে চলছে। সবমিরিয়ে প্রায় সাড়ে ৭শ’-৮শ’ ইউনিট হবে। এসব ইউনিটের যেখানে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের কাজ শেষ হচ্ছে সেখানেই আমরা সম্মেলন করছি। নভেম্বরের শেষ দিকে আমাদের ইউনিটগুলোর সম্মেলন শেষ হবে।


বিবার্তা: ইউনিট পর্যায়ে সম্মেলন করার কারণ কি?


বজলুর রহমান: ঢাকার ইতিহাসে ইউনিট পর্যায়ে এর আগে কখনো আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়নি। ঢাকা আওয়ামী লীগের ইতিহাসে আমরাই প্রথমবারের মতো এটি করছি। সংগঠনের সাথে একেবারে তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের যোগযোগ স্থাপন হচ্ছে। এভাবে ঢাকার ইতিহাসে কখনোই হয়নি। ইউনিট পর্যায়ে সম্মেলনের প্রথম সেশনের পর দ্বিতীয় সেশনে প্রার্থিতা দেখে, প্রার্থীদের ডেকে তারপর কমিটি ঘোষণা করা হচ্ছে।


বিবার্তা: গত বছরের নভেম্বরের মহানগর উত্তর আ.লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওয়ার্ড ও থানা কমিটিগুলো পুরাতন কমিটিতে চলছে। নতুন কমিটি গঠনের অগ্রগতি কতদূর?


বজলুর রহমান: পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর অনেক জায়গায় বিতর্ক ছিলো। আমরা সবাইকে নিয়ে কাজ করছি। অনেক জায়গায় সম্মেলন শেষ হয়েছে। ইউনিট পর্যায়ে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম শেষ হচ্ছে বলেই সম্মেলন হচ্ছে। যেখানেই শেষ হচ্ছে সেখানেই সম্মেলনের তারিখ দেয়া হচ্ছে। ইউনিট গঠনের কাজ শেষ হয়ে গেলে ওয়ার্ড, থানা পর্যায়ের সম্মেলন শুরু হবে। ইউনিটের কাজ শেষ হওয়ার পর নতুন করে ওয়ার্কিং কমিটি করে সেখানে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে কবে ওয়ার্ড এবং থানার সম্মেলন হবে। নভেম্বরের শেষ দিকে আমরা এ সিদ্ধান্ত নেবো। ইউনিট কমিটি কমপ্লিট হওয়ার পরেই আমরা এটা শুরু করবো। আমাদের বিশ্বাস ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ে সুন্দরভাবে কাজ করতে পারবো।


বিবার্তা: ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ে হাইব্রিড-অনুপ্রবেশকারীদের দৌরাত্ন দেখা যায়। এসব রোধে আপনারা কি করছেন?


বজলুর রহমান: আমাদের মহানগর উত্তরে তিনটা স্তর আছে। ইউনিটে ওয়ার্ড থেকে কমিটি করে দেয়া হয়েছে। তারপর থানা আছে। এতগুলো স্তর পার হওয়ার পর বিএনপি-জামায়াতের লোকজন দলে ঢোকার সম্ভাবনা খুবই কম। নেট অনেক, বেশ কয়েকটা নেট রয়েছে। এগুলো ভেদ করে আসা খুব কঠিন। এবার যেহেতু সম্মেলন হচ্ছে, সেখানে কেউ বিতর্কিত থাকলে তারা আওয়ামী লীগের দলীয় পদের প্রার্থী হবে এ আশা করা যায় না। এ ধরণের কেউ প্রার্থী হতে গেলে চারদিক থেকে বাধা আসবে। সুতরাং এখানে ঐরকম সুযোগ একেবারেই নাই।


বিবার্তা: আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলেছেন। আপনারা কি প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন?


বজলুর রহমান: শেকড় ঠিক না করলে তো হবে না। ভালোভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য আমরা শেখড়গুলোকে ঠিক করছি। ইউনিট পর্যায়ে যারা আছে তারাই ভোট সংগ্রহ করে। মানুষের বাড়ি বাড়ি যায়, ভোটকেন্দ্রে ভোটার আনতে উৎসাহিত করে। আমরা এই জায়গাটা শক্তিশালী করছি। সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যেখানে যেখানে ঘাটতি আছে, সেসব জায়গা আমরা পূরণের চেষ্টা করছি।


বিবার্তা/সোহেল/গমেজ/আবদাল/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com