শিরোনাম
বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশনী নিষিদ্ধ
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৮:১৮
বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশনী নিষিদ্ধ
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

এবারের একুশে বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশনীকে স্টল বরাদ্দ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আয়োজক কমিটি।


২০১৭ সালের বইমেলার আয়োজক কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে।


এ বিষয়ে শ্রাবণ প্রকাশনীর কর্ণধার রবীন আহসান বলেন, আমাদের প্রকাশনীকে এবারের বইমেলায় স্টল বরাদ্ধ দেয়া হচ্ছে না। কারণ হিসেবে বাংলা একাডেমি জানিয়েছে গত বইমেলায় বাংলা একাডেমির একটি ভূমিকার আমি সমালোচনা করেছি। যার ফলে বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে বইমেলায় শ্রাবণ দুই বছর নিষিদ্ধ থাকছে।


রবীন আহসান আরও বলেন, গত বইমেলায় একজন প্রকাশককে বিতর্কিত বই প্রকাশের জন্য গ্রেফতার করা হয়। যেখানে বাংলা একাডেমির ভূমিকা ছিল নীরব ও দুঃখজনক। বিষয়টি নিয়ে আমি একাত্তর টিভিতে ও শাহবাগের একটি সমাবেশে বাংলা একাডেমির ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করেছি। যার ফলে আমাদের বিরুদ্ধে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলা একাডেমি।


বিষয়টি জানতে চাইলে ২০১৭ সালের বাংলা একাডেমির একুশে বইমেলা আয়োজক কমিটির সচিব জালাল আহমেদ বলেন, গত বইমেলায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে মহানবীকে (সা.) নিয়ে বিতর্কিত বই প্রকাশকারী একটি প্রকাশনীর মালিককে গ্রেফতার করা হয়। যা নিয়ে শ্রাবণ প্রকাশনী সমালোচনা করে। বিষয়টির বিরুদ্ধে কথা বলে। তাই এবার শ্রাবণকে স্টল বরাদ্ধ দেয়া হয়নি।


তবে রবীন আহসান এ বিষয়ে বলেন, একজন সাংবাদিককে যদি কেউ গ্রেফতার করে নিয়ে যায় তাহলে আপনি তার পক্ষে কথা বলবেন না? একজন প্রকাশককে গ্রেফতার করলে আমরা তার পক্ষে কথা বলব না? আমি কিংবা আমার শ্রাবণ প্রকাশনীকে কেন নিষিদ্ধ করা হলো? শ্রাবণ প্রকাশনী কী স্পর্শকাতর কোনো বই প্রকাশ করেছে? যদি অপরাধ করে থাকি তাহলে আমাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হোক, তারা স্টল নিষিদ্ধ করবে কেন?


এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, দেশে প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করা যাবে, কিন্তু উনার দয়ায় চাকরি পাওয়া বাংলা একাডেমির মহাপরিচালকের সমালোচনা করা যাবে না কেন? এই কোন সাংস্কৃতিক বুজুর্গদের যুগে আমরা প্রবেশ করলাম? আমি এখনো বিশ্বাস করতে চাই, বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশনী নিষিদ্ধের ব্যাপারটা কোনো অফিসিয়াল সিদ্ধান্ত না। আরো বিশ্বাস করতে চাই, মাননীয় সংস্কৃতি মন্ত্রী নুর ভাই এই তুঘলকি কাজটা ঘটতে দেবেন না। আর যদি ইতিমধ্যেই গোপনে ঘটে থাকে, তাহলে গোপনেই উহা হটাইয়া দিবেন।


বিবার্তা/মনোজ


সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com