পারুল চরিত্রে রিচির বিকল্প ভাবেননি চয়নিকা চৌধুরী
প্রকাশ : ২৭ আগস্ট ২০১৮, ১৩:৫৪
পারুল চরিত্রে রিচির বিকল্প ভাবেননি চয়নিকা চৌধুরী
অভি মঈনুদ্দীন
প্রিন্ট অ-অ+

জনপ্রিয় অভিনেত্রী রিচি সোলায়মান এখন স্বামী সন্তান নিয়ে আমেরিকাতেই থাকেন। তবে দেশে যখন ছুটিতে আসেন তখন রিচিকে নিশ্চিত থাকতে হয় যে নাট্যনির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীর নির্দেশনায় তাকে কাজ করতেই হবে। এটা অবশ্য রিচি এবং চয়নিকা চৌধুরীর সুসম্পর্কের জায়গা থেকে অধিকার আদায়ের মতো একটি বিষয়। যথারীতি এবারের ঈদের আগেও রিচি ঢাকায় এলে তাকে চয়নিকা চৌধুরীর নির্দেশনায় নাটকে কাজ করতে হয়।


এবারের ঈদেও রিচিকে চয়নিকার নির্দেশনায় বেশ কয়েকটি কাজ করতে হয়েছে। তবে টেলিছবি ‘চাঁদের আলোয়’ নিয়ে অনেক বেশি উচ্ছসিত চয়নিকা চৌধুরী। এই টেলিছবিতে গল্পের কেন্দ্রীয় একটি চরিত্র পারুল। আর তাতেই অভিনয় করেছেন রিচি সোলায়মান।


টেলিছবিটির গল্প প্রসঙ্গে জানা যায়, পারুল যৌবনে ভালোবেসেছিলো দীপুকে। দীপুও পারুলকে। কিন্তু পাশের বাড়ীর পারুলের সাথে বিয়েতে রাজী হয় না দীপুর বাবা। দীপু কষ্ট পেলেও বাবার অবাধ্য হয়নি। নিম্নবিত্ত পরিবারের পাররুলের বিয়ে হয় ওম চৌধুরীর সাথে। ওমর চৌধুরীর প্রথম স্ত্রী মারা গেছেন। সংসার সামলাবার জন্য প্রয়োজন পারুলকে।


ওদিকে পাররুলের বিয়ের পর দীপু বুঝতে পারে কি হারালো সে। বিবাগী হয়ে দীপু একসময় হাজির হয় পারুলের গ্রামে এবং মারা যায়। সেই থেকে পারুলের ঘর থেকে বের হওয়া বন্ধ। কিন্তু মনতো বন্ধ না। পারুল দীপুকে দেখতে পায় ওর পুকুর ঘাটে বাগানে। সেখানে দীপুর সাথে কথা হয় ওর। এ বাড়ীতে ওমর চৌধুরীর ভাতিজি বকুল, বিধবা। যেন পারুলের বান্ধবী। একদিন হঠাৎ এবাড়ীতে আসে প্রিয়, দীপুর ছোটভাই। দেখতে অবিকল দীপু। সে লেখক। বকুল প্রেমে পড়ে প্রিয়র। ওদিকে পারুল জীবন্ত প্রিয়কে দীপু বলে ভুল করে। বকুল দেখে পারুল আর প্রিয়র তরল সময়। কি হবে শেষ পযর্ন্ত? ওমর চৌধুরীর স্ত্রীর মন না পাবার ক্ষোভ। পারুলের না পাওয়া প্রেমের বেদনা।


আর বকুলের বসন্তদিনের হাহাকার সব মিলিয়ে টেলিছবি চাঁদের আলোয়। এটি নির্মাণ করেছেন মেধাবী নাট্যনির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। আর ঈদের সপ্তম দিনে এনটিভিতে প্রচার হবে দুপুর ২.৩০ মিনিটে।


নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে রিচি বলেন, ‘এই কাজটি আমার জন্য একটি চ্যালেঞ্জ ছিলো। কারণ পারুল চরিত্রটি ভীষণ চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্র। ইফফাত আরেফিন তন্বী খুব চম’কার লিখেছেন। আর দিদিও নির্দেশনা নিয়ে নতুন করে কী বলবো। যখন তিনি কোন ভালো গল্প পান তখন তা কী যে আন্তরিকতা নিয়ে নির্মাণ করেন, শুধু সেট এ যারা থাকেন তারাই তা উপলদ্ধি করতে পারেন। আর পরবর্তীতে দর্শক তা ভালোভাবে উপলদ্ধি করেন প্রচারের পর। এই কাজটি নিয়ে আমি নিজেই অনেক বেশি উচ্ছসিত।’


চয়নিকা চৌধুরী বলেন, ‘এই টেলিছবিতে আমি রিচির বিকল্প কাউকেই ভাবতে পারিনি। মূল কথা রিচির বিকল্প যে কে হতে পারতো সেটা আমি ভুলেও চিন্তা করিনি। রিচি তার ছোট্ট কন্যা ইলমাকে সঙ্গে নিয়ে শুটিং করেছে। প্রতিটি দৃশ্যেই তার উপস্থিতি ছিলো। যে কারণে টানা ছয়দিন তার কোনই বিশ্রাম ছিলোনা। কিন্তু তারপরও রিচি যে আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করেছে, তাতে মুগ্ধ আমি।’


চয়নিকার নির্দেশনায় রিচি অভিনীত প্রথম কাজ ছিলো ‘যে ভুলে তোমায় ভুলি’। এটি ২০০৭ সালে আরটিভিতে প্রচার হয়েছিলো। এতে রিচির বিপরীতে ছিলেন মিলন ও অপূব। এবারের ঈদে চয়নিকার নির্দেশনায় রিচি ‘স্বপ্নগুলো তোমায় খোঁজে’এবং ‘তোমার আমার গল্প’ নাটকে অভিনয় করেছেন।


বিবার্তা/অভি/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com