ওদের থামান!
প্রকাশ : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৬:৪৩
ওদের থামান!
প্রিন্ট অ-অ+

সাত মাস বয়সী ছোট ছেলে আরাফাতের চিকিৎসার জন্য ঢাকা এসেছিলেন শরীয়তপুরের শাহ আলম-আকলিমা দম্পতি। সঙ্গে তাঁদের দুই শিশুসন্তান। সোমবার ভোর ৫টার দিকে রাজধানীর সূত্রাপুর থানার দয়াগঞ্জ দিয়ে রিকশায় যাওয়ার পথে আকলিমার হাতের ব্যাগ ধরে টান দেয় ছিনতাইকারী নামের শয়তানেরা। এতে আকলিমা ও তাঁর কোলের শিশু - দু'জনই পড়ে যান নিচে। আকলিমা এতে সামান্য আহত হলেও সাত মাসের শিশু আরাফাত এ আঘাত সইতে পারেনি। সে চলে যায় না-ফেরার দেশে।


শয়তানের দল টাকা ও সোনাদানা নিতে এসে নিয়ে গেল একটি শিশুর জীবন। কী মর্মান্তিক!


মর্মান্তিক হলেও আমাদের চারপাশে এ ঘটনা মোটেই বিরলদৃষ্ট নয়। বরং বলা যায়, এই দুর্বৃত্তের দল ক্রমেই বেপরোয়া হয়ে উঠছে। পত্রপত্রিকা খুললেই তার প্রমাণ মেলে। মঙ্গলবার একটি পত্রিকা লিখেছে, ''রাজধানীতে কোনো-না-কোনো এলাকায় এমন ঘটনা ঘটছে প্রতিদিনই। পুলিশ প্রশাসনের উদাসীনতায় রাজধানীতে ছিনতাইয়ের ঘটনা বাড়ছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ‘টানা পার্টি’র দৌরাত্ম্য; যারা ছোঁ মেরে ব্যাগ, ল্যাপটপসহ মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নেয়।''


পত্রিকাটি আরো লিখেছে, ''রাজধানীতে গত দুই মাসের অপরাধ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ছিনতাইকারীদের গুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত হয়েছে তিনজন, আহত অর্ধশতাধিক।''


পত্রিকাটি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় লিখেছে, গত দুই মাসে তিন ডজন ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। অথচ কী মজার ব্যাপার, পুলিশের নথিপত্রে মাত্র ১২টি ছিনতাই ঘটনার কথা উল্লেখ আছে।


তিন ডজন ছিনতাই হওয়া সত্ত্বেও পুলিশ কেন মাত্র ১২টি ছিনতাইয়ের ঘটনার কথা উল্লেখ করছে, এ নিয়ে পুলিশের নিশ্চয়ই অনেক 'যুক্তি' আছে। আবার মানুষ কেন শয়তানদের হাতে সর্বস্ব হারিয়েও পুলিশের কাছে যায় না, এ নিয়েও ভুক্তভোগীদের অসংখ্য অভিজ্ঞতা আছে। আমরা এসব বাদ-প্রতিবাদে যেতে চাই না। পুলিশের উদ্দেশে আমাদের কোনো বক্তব্যও নেই। আমাদের কথা সরকারের প্রতি।


সরকারকে আমাদের করজোড়ে মিনতি, অপরাধীদের থামান। ওদের যে ঘৃণ্য কালো হাত মানুষের জীবন, সম্পদ ও নিরাপত্তা কেড়ে নেয়, সেই শয়তানী হাত ভেঙ্গে দিন। এ জন্য যে পদক্ষেপই নিন না কেন, জনগণ অবশ্যই আপনাদের পাশে থাকবে। জনগণ পাশে থাকলে একটি গণতান্ত্রিক সরকারের আর কী লাগে!

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com