বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা, পরে কৌশলে গর্ভপাত
প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, ১৯:২০
বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা, পরে কৌশলে গর্ভপাত
গাইবান্ধা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্কের পর কৌশলে দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা নারীর গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।


এ ঘটনায় ওই নারী সোমবার দুপুরে গাইবান্ধা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে তিন জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করেছেন।


অভিযুক্তরা হলো- বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার লক্ষীকোলা (বাদারপাড়া) গ্রামের নারায়ণ চন্দ্রের ছেলে উদয় চন্দ্র (৩০), গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের রসুলপুর গ্রামের জয়নালের ছেলে আজাদুল ইসলাম (৪০) ও শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স মলি বেগম (৪৫)।


মামলা সূত্রে জানা যায়, শিবগঞ্জের চকিরঘাট জয়জুট মিলের ম্যানেজার পদে উদয় চন্দ্র ও আজাদুল ইসলাম সুপারভাইজার পদে চাকরি করেন। একই মিলে স্বামী পরিত্যক্তা ওই নারী শ্রমিকের কাজ করতেন। সেখানে দীর্ঘদিন কাজ করার এক পর্যায়ে উদয় চন্দ্র তার প্রতি আকৃষ্ট হন। পরে মুসলিম হয়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এতে মেয়েটি দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়।


এদিকে, উদয় চন্দ্র বিষয়টি জেনে গর্ভপাত ঘটানোর চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মারধর করলে তাকে শুক্রবার (২ আগস্ট) দুপুরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে রবিবার (৪ আগস্ট) বিকালে বিয়ের কথা বলে হাসপাতাল থেকে তাকে সুপারভাইজার আজাদুলের বাড়িতে নিয়ে নার্স মলির মাধ্যমে গর্ভপাত ঘটান।


ট্রাইব্যুনালের অ্যাডভোকেট শাহনেওয়াজ খান জানান, আদালতের বিচারক বিষয়টি তদন্তের জন্য মামলার নথিপত্র গোবিন্দগঞ্জ থানায় পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।


বিবার্তা/রুবেল/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com