সিসিকের টিউবওয়েল স্থাপনে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ
প্রকাশ : ২১ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৩৪
সিসিকের টিউবওয়েল স্থাপনে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রিন্ট অ-অ+

সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক’র) টিউবওয়েল স্থাপনে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মসজিদ-মন্দিরের নামে বরাদ্দ করা কয়েকটি টিউবওয়েল ব্যক্তি মালিকানাধীন বাসা-বাড়িতে স্থাপন করা নিয়ে জনমনে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তোলপাড় চলছে সিসিক’র উন্নয়ন নিয়ে।ম্যানেজ ফর্মুলায় এসব অনিয়ম-অব্যস্থাপনা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সাধারণ নাগরকিবৃন্দ।


জানা গেছে, ২০১৭ সালে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিসিকের অর্থায়নে নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন মসজিদ ও মন্দিরে বেশ কিছু টিউবওয়েল স্থপান করেন। স্থাপিত টিউবওয়েলের সঠিক সংখ্যা পাওয়া না গেলেও প্রতিটি ওয়ার্ডে ৩ থেকে ৫টি মসজিদ ও মন্দিরে শতাধিক টিউবওয়েল বিতরণ ও স্থাপন করেন মেয়র আরিফ।


এ সময় সিটির ৫ নং ওয়ার্ডের ৩টি মসজিদে টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়। কিন্তু এর মধ্যে মসজিদের নামে দেয়া একটি টিউবওয়েল ওই ওয়ার্ডের ব্যক্তি মালিকানাধীন একটি বাড়িতে স্থাপন করা হয়। আর সেই বাইড়টি হচ্ছে সিলেট সিটির ৫নং ওয়ার্ডের কল্বাখানীস্থ জালালী ২৫ নং আন্বিয়া পাভেল মঞ্জিল। এ নিয়ে এলাকার জনমনে ক্ষোড়ের সৃষ্টি হয়। কিন্তু ভয়ে অনেকে মুখ খোলতে সাহস পাননি।


অভিযোগ পাওয়া গেছে, আন্বিয়া-পাভেল মঞ্জিলের দখলকার শাসকদলীয় পরিচয়ের সাংবাদিক।তাই টিউবওয়েলটি কোনো মসজিদ বা মন্দিরে স্থাপন না করে ধনাঢ্য ওই সাংবাদিকের বাড়িতে স্থাপন করে সিসিকের পানি শাখার কর্তা-ব্যক্তিরা। ব্যক্তিমালিকাধীন একটি বাড়িতে মসজিদ বা মন্দিরের নামীয় ওই টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়েছে এবং সিসিকের কর্তাব্যক্তিদের উপস্থিতে এটা স্থাপন করা হয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন।


এ ব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের পানি শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবর ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুনীল মজুমদারের সঙ্গে বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করা হলে তারা সাংবাদিকের ফোন রিসিভ করেননি।


সিসিকের ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ২০১৭ সালে তার ৫নং ওয়ার্ডে মেয়র আরিফুল হকের উদ্যোগে তিনটি মসজিদে টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়। তবে ব্যক্তিমালিকানা কোনো বাড়িতে টিউবওয়েল স্থাপনের বিষয়টি অবগত নন বলে জানান তিনি।


এ ব্যাপারে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মসজিদ মন্দিরের নামে সিসিকের দেয়া টিউবওয়েল ব্যক্তি মালিকানাধীন কোনো বাসাবাড়িতে স্থাপনের কোনো কারণ নেই। এধরনের কোনো অনিয়ম সম্পর্কে আদৌ তিনি অবগত নন। অনিয়ম পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।


বিবার্তা/খলিলুর রহমান/জাই

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com