গণহত্যার দায়ে দুই খেমাররুজ নেতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৪৫
গণহত্যার দায়ে দুই খেমাররুজ নেতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
খিউ সামফান (৮৭) ও নুওন চিয়া (৯২)
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

১৯৭৫- ১৯৭৯ সালে খেমাররুজ শাসনকালে গণহত্যার দায়ে খেমাররুজের দুই জ্যেষ্ঠ নেতাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। জাতিসংঘ সমর্থিত যুদ্ধাপরাধ আদালত শুক্রবার এ ঐতিহাসিক রায় দেয়।


অভিযুক্ত ওই দুজন হলেন খেমাররুজের সাবেক রাষ্ট্রপ্রধান খিউ সামফান (৮৭) ও ‘ব্রাদার নাম্বার টু’ নামে পরিচিত নুওন চিয়া (৯২)।


মার্ক্সবাদী নেতা পল পটের নেতৃত্বে ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত কম্বোডিয়াকে শাসন করেছিল খেমাররুজ। এই সময় শহরের লাখ লাখ মানুষকে গ্রামাঞ্চলে পাঠিয়ে কৃষিকাজ করতে বাধ্য করে শাসকগোষ্ঠী। গণহত্যা, নির্যাতন, অনাহার, রোগ-জরা ও অতি শ্রমের কারণে প্রায় ২০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়।


শিক্ষিত মধ্যবিত্ত শ্রেণির লাখ লাখ মানুষকে বিশেষ কেন্দ্রে নিয়ে নির্যাতন ও হত্যা করা হতো। এর মধ্যে সবচেয়ে কুখ্যাত কেন্দ্রটির নাম ছিল এস-২১ কারাগার, যার অবস্থান ছিল নমপেনে।


আদালতের বিচারক জজ নীল নুন বলেন, আদালতে প্রমাণিত হয়েছে, সমস্ত অপরাধের জন্য নুওন চীয়াই দায়ী। বিচরে নুওন চীয়াকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়, এটি একটি গণহত্যা মামলা। চ্যাম প্রদেশের মুসলিম ও ভিয়েতনামী ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে গণহত্যা সংঘঠিত হয়েছিল।’


বিচারক আরো বলেন, প্রাদেশিক প্রধান খিউ সামফানও ভিয়েতনামী নৃগোষ্ঠীর গণহত্যায় দোষী সব্যস্ত হয়েছে এবং তাকেও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।


মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত কম্বোডিয়ার সাবেক নেতা খিউ সামফান ও নুয়ান চিয়ার বিরুদ্ধে ২০১১ সালে গণহত্যার মামলার বিচার শুরু করে জাতিসংঘ-সমর্থিত কম্বোডিয়ান ট্রাইব্যুনাল। সূত্র: এএফপি


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com