বিভীষিকাময় ৯/১১’এর ১৭তম বার্ষিকী আজ
প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১:৩৯
বিভীষিকাময় ৯/১১’এর ১৭তম বার্ষিকী আজ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ইতিহাসের বিভীষিকাময় ৯/১১ আজ। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসী হামলার ১৭তম বার্ষিকী। ২০০১ সালের এই দিনে সন্ত্রাসীরা যাত্রীবাহী চারটি উড়োজাহাজ ছিনতাই করে একযোগে নিউইয়র্ক, পেনসিলভানিয়া ও সামরিক সদর দফতর পেন্টাগনে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা।


ওই হামলায় নিহত হন প্রায় ৩ হাজার মানুষ এবং আহত হন ১০ হাজার। একটি ঘটনাই পাল্টে দেয় বিশ্ব রাজনীতি। এ হামলার জন্য আল কায়েদা জঙ্গিদের দায়ী করা হয় এবং তারা দায়ও স্বীকার করে।


এরপর থেকে বিশ্বব্যাপী মার্কিন নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান শুরু হয়। মধ্যপ্রাচ্যে আজ যে দুর্দশা তার জন্য অনেকেই ৯/১১’কে দায়ী করেন। তাছাড়া এর প্রভাব পড়েছে সারা বিশ্বের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতিতে।


নিউইয়র্কের স্থানীয় সময় তখন সকাল পৌনে ৯টা। চারটি মার্কিন যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ ছিনতাই করে তার মধ্যে দু’টো নিয়ে টুইন টাওয়ারে হামলা চালায় আল কায়েদা। গুঁড়িয়ে যায় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ভবন দু’টি।


মার্কিন এয়ারলাইন্সের ছিনতাই করা আরেকটি উড়োজাহাজ নিয়ে হামলা চালানো হয় মার্কিন প্রতিরক্ষা সদর দফর পেন্টাগনে। আর যাত্রীদের বাধায় নির্ধারিত স্থানে হামলা চালাতে ব্যর্থ হয়ে পেনসিলভেনিয়ার আকাশে বিধ্বস্ত হয় চতুর্থ উড়োজাহাজটি।


হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ জানিয়ে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ জাতির উদ্দেশে ভাষণে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন। এ ঘটনার জেরেই ওই বছরের অক্টোবরে আফগানিস্তানে হামলা চালানো হয়। পরে ২০০৪ সালে হামলা চালানো হয় ইরাকেও। ইরাক ও আফগানিস্তানে অভিযান চালাতে গিয়ে প্রাণ হারায় ৭ হাজার মার্কিন সেনা। লাখো মানুষের মৃত্যু এবং গৃহহারা হওয়ার ঘটনায় বদলে যায় বিশ্ব রাজনীতির প্রেক্ষাপট।


আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে ২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে হত্যা করে মার্কিন বিশেষ বাহিনী ‘নেভি সিল’৷


আল কায়েদা অনেকটা দুর্বল হলেও বিশ্ব জুড়ে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে একাধিক জঙ্গি সংগঠন। আফ্রিকায় আছে বোকো হারাম, ইরাকের বড় অংশ জুড়ে রয়েছে কথিত ইসলামিক স্টেট (আইএস)।


বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দিনটি স্মরণ করা হয়। কিন্তু আজও ম্লান হয়নি স্বজন হারানোর স্মৃতি। হতাহতের পরিবারের প্রতি সংহতি জানাতে তাই এবারো মার্কিনিরা নিউইয়র্কের গ্রাউন্ড জিরোতে সমবেত হবেন। নীল বাতি জ্বালিয়ে স্মরণ করবেন হারিয়ে যাওয়া প্রিয়জনদের।


নিউইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলার স্থলে নির্মিত হয়েছে ন্যাশনাল সেপ্ট. ইলেভেন মেমোরিয়াল অ্যান্ড মিউজিয়াম।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com