লাখো হজযাত্রী মিনায়, পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু
প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০৯:১৬
লাখো হজযাত্রী মিনায়, পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

তাবুর শহর মিনায় হজযাত্রীদের সমবেত হওয়ার মধ্য দিয়ে পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। সারা বিশ্বের লাখো ধর্মপ্রাণ মুসলমান শনিবার মিনায় পৌঁছেছেন। মিনায় অবস্থান করা হজের অংশ।


সৌদি আরবের পরিসংখ্যান সংস্থার হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বের ১২২ দেশ থেকে আসা ১৮ লাখ ৯২ হাজার ৮২৬ জন হজযাত্রী চলতি বছর হজে অংশ গ্রহণ করছেন।


হজযাত্রীদের আরামের জন্য মিনায় তাবুতে ২১ হাজার এয়ারকন্ডিশন, ১০ হাজার স্প্রে ওয়াটার মিস্ট ফ্যান (কুয়াশা পাখা) স্থাপন করা হয়েছে। তাদের যাতায়াতে ১৩ হাজার ৬৫০ টি যানবাহন ও প্রযুক্তিগত সহায়তা দানে ৪২ গবেষণা প্রতিষ্ঠান কাজ করছে।


মিনামুখী পুরো রাস্তায় ছিল হজযাত্রীদের স্রোত। বাসে, গাড়িতে এমনকি হেঁটেও মক্কা থেকে ৯ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেন মুসল্লিরা। তাদের মুখে ছিল তালবিয়া ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইকা লা শারিকা লাকা লাব্বাইক, ইন্নাল হাম্‌দা ওয়ান নি’মাতা লাকা ওয়াল মুল্‌ক, লা শারিকা লাক’।


রবিবার ৮ জিলহজ হজযাত্রীরা মিনায় অবস্থান করবেন। ৯ জিলহজ ফজরের নামাজ আদায় করে প্রায় ১৪ কিলোমিটার দূরে আরাফাতের ময়দানে যাবেন এবং সূর্যাস্ত পর্যন্ত সেখানে থাকবেন। এদিন দুপুর ১২ টার পর মসজিদে নামিরা থেকে হজের খুতবা পাঠ করবেন মসজিদে নববীর ইমাম ও খতিব ড. হোসাইন বিন আব্দুল আজিজ আল শাইখ।


এরপর প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে মুজদালিফায় গিয়ে রাত যাপন ও পাথর সংগ্রহ করবেন। সেখানে খোলা আকাশের নিচে অবস্থানের পাশাপাশি প্রতীকী শয়তানকে নিক্ষেপের জন্য পাথর সংগ্রহ করবেন। এ বছর কর্মী দিয়ে পাথর সংগ্রহ করে হজযাত্রীদের সরবরাহ করবে সৌদি সরকার।


১০ জিলহজ ফজরের নামাজ আদায় করে মুজদালিফা থেকে মিনায় ফিরবেন।



হাজিরা মিনায় বড় শয়তানকে পাথর মারবেন, কোরবানি দেবেন, মাথা মুণ্ডন করবেন। তারপর মক্কায় গিয়ে কাবা শরিফ তাওয়াফ করবেন। তাওয়াফ, সাঈ শেষে আবার মিনায় ফিরে ১১ ও ১২ জিলহজ অবস্থান করবেন। সেখানে প্রতিদিন তিনটি শয়তানকে পাথর নিক্ষেপ করবেন তারা।


প্রত্যেক শয়তানকে সাতটি করে পাথর মারতে হয়। মসজিদে খায়েফের দিক থেকে মক্কার দিকে আসার সময় প্রথমে জামারায় সগির বা ছোট শয়তান, এরপর জামারায় ওস্তা বা মেজ শয়তান, এরপর জামারায় আকাবা বা বড় শয়তানকে পাথর মারতে হবে।


হজকে সুন্দর ও সুষ্ঠ করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে সৌদি সরকার। হজযাত্রীদের সেবা প্রদান করছে সৌদি সরকারের ১৯টি সংস্থার ৩ হাজার ১৪১ জন নারীসহ ১ লাখ ৯২ হাজার ২৫৪ জন সদস্য। এছাড়াও রোভার স্কাউট ও স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী তাদের সহযোগিতা করছেন।


এ বছর সৌদি সরকারের আমন্ত্রণে হজের সংবাদ সংগ্রহের জন্য বিশ্বের আটশ সংবাদকর্মী সৌদিতে কাজ করছেন।


সৌদি আরবে বাংলাদেশ হজ মিশনের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছর শুক্রবার শেষ ফ্লাইটসহ ১ লাখ ২৭ হাজার ২৯৭ জন হজযাত্রী (ব্যবস্থাপনা সদস্যসহ) সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। বিমান বাংলাদশে এয়ারলাইন্সের শেষ ফ্লাইট ছিল ১৫ আগস্ট আর সৌদি এয়ারলাইন্সের ছিল ১৭ আগস্ট।


এদিকে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হওয়ার পূর্বে শনিবার পর্যন্ত বার্ধক্য, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ৫১ জন বাংলাদেশী হজ যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৪২ জন পুরুষ ও ৯ জন নারী।


বিবার্তা/সাগর/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com