এই আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা?
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৩৬
এই আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা?
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ফেনী জেলার কোন হাসপাতালে আইসিইউ নাই। পার্শ্ববর্তী জেলাসমূহেও তাই। অবাক হয়ে গেলাম। এই আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা? লোকজন যাবে কোথায়? শুধু ঢাকা? করোনাকে কেন্দ্র করে ফেনী হার্ট ফাউন্ডেশন বা ডায়াবেটিক হাসপাতালে জরুরী ভিত্তিতে আইসিইউ স্থাপন করা যায় কিনা সে ব্যপারে নিজাম হাজারী এমপি’র সাথে আলোচনাক্রমে খোঁজ খবর নিই। ৩ কোটি টাকার মধ্যে পাঁচ শয্যা বিশিষ্ট ভেন্টিলেশন সুবিধাসহ আইসিউ স্থাপন করা সম্ভব বলে জানতে পারি। এত কম টাকার জন্য জেলা পর্যায়ে হাসপাতালসমুহে আইসিইউ নাই। এটা ভাবতেও অবাক লাগছে।


জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার বিগত ১২ বছরে কত বরাদ্ধ স্বাস্থ্যখাতে দিয়েছেন আর তা কোন কাল গর্তে (Black hole) হারিয়ে গেছে তা খবর নেয়ার সময় এসেছে। ৩ মেয়াদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব এড়ানোর সুযোগ নাই। তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা প্রয়োজন। স্বাস্থ্যখাতের বরাদ্দ যদি সঠিকভাবে ব্যবহার হতো তাহলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সমূহেও সর্বাধুনিক সুযোগ সুবিধাসহ অন্তত ১০ শয্যাবিশিষ্ঠ আইসিইও থাকার কথা। সব সেক্টরের সর্বোচ্চ পৃষ্ঠপোষকতায় জিকে শামীমদের সিন্ডিকেট আজ এ দুরবস্থার জন্য দায়ী।


জিকে শামীমরা ব্যবসায়ী, তারা তাদের ব্যবসার সুবিধার জন্য কর্তাব্যক্তিদের ব্যবহার করতে চাইবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যারা এমপি, মন্ত্রী হিসাবে শপথ নিয়েছেন এবং সরকারী কর্মকর্তা হিসাবে সৎভাবে কার্যসম্পাদনের মুচলেকা দিয়ে চাকুরীতে ঢুকে লুটেরাদের লুটপাটের সুযোগ করে দিয়েছেন নিজে লাভবান হয়ে। তাদের না ধরে জিকে শামীমদের জেলে পুরে সমস্যার সমাধান হবে না। স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়সহ অন্যান্য মন্ত্রনালয়ের জিকে শামীমদের এবং লুটপাট চিহ্নিত করে তাদের পৃষ্ঠপোষকদের সহ আইনের আওতায় আনা খুবই জরুরী হয়ে পড়েছে।


বিএমএ এবং সাচিবকে অনুরোধ করব ডাক্তারদের নিয়োগ-বদলী- Departmental proceeding এর দিকে নজর না দিয়ে লুটপাটের বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন। প্রত্যেকটা হাসপাতালে বাজারের প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সর্বোচ্চ সুবিধা নিশ্চিতকরণের ব্যবস্থা করুন। প্রত্যেকটা টেন্ডার এর সর্বনিম্ন মূল্যের সাথে বাজার মূল্য মিলিয়ে দেখুন। অনিয়ম এবং মূল্যের ব্যাপক ফারাক দেখলে সেখানেই প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ করুন।


এদেশ শুধু মন্ত্রী-সচিব-ডিজির নয়। এদেশ আমাদের সবার। আজ করোনা সংক্রমণের এ পর্যায়ে এসে অবশ্যই বুঝতে পারছেন সাধারণ রোগীদের থেকে ডাক্তার এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা বেশী বিপদসংকুল অবস্থায় আছেন। সঠিক সময়ে বিএমএ এবং সাচিপ এ বিষয়ে প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা এমন বেহাল হয়তো হতো না। কারণ বিএমএ এবং সাচিপ নেতৃবৃন্দ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে যেকোন সময় নিয়ম-অনিয়মের বিষয়ে জানানোর ক্ষমতা রাখেন। অনিয়ম এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান।


আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমের ফেসবুক থেকে...


বিবার্তা/এনকে

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com