সরকারি গাছ কাটায় এনজিও'র বিরুদ্ধে মামলা
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০২
সরকারি গাছ কাটায় এনজিও'র বিরুদ্ধে মামলা
সাভার প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ঢাকার ধামরাইয়ে সরকারি রাস্তা থেকে অবৈধভাবে গাছ কাটার অভিযোগে বেসরকারি সংস্থা সজাগের পরিচালকসহ চারজনের নামে থানায় মামলা করা হয়েছে। রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে ধামরাই উপজেলা বন কর্মকর্তা মো. মোতালিব আল মোমিন বাদী হয়ে মামলা করেন।


অভিযুক্তরা হলেন, বেসরকারি সংস্থা (সজাগ) -এর পরিচালক আব্দুল মতিন (৬২), ম্যানেজার মো. মাসুদুর রহমান মাসুদ (৫০), গাছের ক্রেতা মো. হানীফ আলী বেপারী (৩০) ও সধু বেপারী (৬০)।


অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বন বিভাগের কোনো অনুমতি ছাড়াই সজাগ (এনজিও) ধামরাইয়ের সোমভাগ ইউনিয়নের চাপিল এলাকা থেকে নওগাঁও পর্যন্ত ৩ কিলোমিটার রাস্তার দুই পাশের ১০৭টি গাছ এবং কুশুরা ইউনিয়নের বান্নাখোলা এলাকা থেকে পথহারা পর্যন্ত ১ কিলোমিটার রাস্তার ২৫টি গাছসহ মোট ১৩২টি গাছ বিক্রি করে।


ধামরাই উপজেলার বন কর্মকর্তারা গাছ কাটতে বাধা দিলে এনজিও কর্মকর্তারা ও গাছের ক্রেতা বলেন, আমরা গাছ কাটবোই। আপনারা যা পারেন তাই করেন। পরে বন বিভাগের কর্মকর্তা মোতালিব আল মোমিন বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও ধামরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানানোর পর সজাগ কর্তৃপক্ষ আরো বেশি করে জনবল নিয়ে গাছ কাটার ২টি দা, ২টি কুড়াল, ২টি করাত, সাবল, রশি নিয়ে আসেন গাছ কাটার জন্য।


ধামরাই উপজেলা বন বিভাগের অফিস সূত্রে জানা যায়, রাস্তার দু'পাশে ১৯৯০ সালে ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগাম -এর আওতায় গাছ লাগানো হয়। কিন্তু এ বিষয়ে সজাগ এনজিও'র সাথে ওই কর্মকর্তাদের কোন চুক্তি হয়নি। পরে বন বিভাগকে বিষয়টি না জানিয়ে সজাগ এনজিও'র কর্মকর্তারা রাস্তার দু'পাশের ১৩২টি মেহগনি গাছ কেটে ফেলে। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৯ লাখ ১০ হাজার টাকা।


এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলা বন কর্মকর্তা মো. মোতালিব আল মোমিন জানান, সজাগ বন বিভাগের কোনো অনুমতি না নিয়েই নিজেরদের ইচ্ছেমতো এই গাছগুলো বিক্রি করেছে এবং প্রায় সব গাছই কেটে ফেলেছে। দুই জাগায় মোট ১৩২টি কাটা গাছসহ গাছ কাটার যন্ত্রপাতি জব্দ করা হয়েছে।


সজাগ -এর পরিচালক আব্দুল মতিনকে বার বার ফোন করলেও তার ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।
ধামরাই থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান বলেন, গাছ কাটার বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী বলেন, সরকারি রাস্তার সরকারি গাছ কেটে নেয়া সম্পূর্ণ অবৈধ। এভাবে সরকারি জায়গার গাছ কাটার এখতিয়ার কারো নেই। আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।


বিবার্তা/শরিফুল/জুয়েল


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com