চায়ের রাজ্যে উপচে পড়া ভিড়, খালি নেই হোটেল-রিসোর্ট!
প্রকাশ : ২৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:৫৪
চায়ের রাজ্যে উপচে পড়া ভিড়, খালি নেই হোটেল-রিসোর্ট!
শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

দেশি-বিদেশি পর্যটকে মুখরিত হয়ে উঠেছে পর্যটন শহর শ্রীমঙ্গল। সাপ্তাহিক ছুটির দিন ও খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিনের ছুটি উপলক্ষে পর্যটকদের ভিড় জমেছে চায়ের রাজ্য মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। দুই দিনের ছুটিতে খালি নেই কোনো হোটেল, গেস্টহাউস ও রিসোর্টের কক্ষ। শুক্রবার (২৪ ডিসেম্বর) ও শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) পর্যন্ত হোটেল-রিসোর্টের সব কক্ষ অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। অনেক পর্যটকই শুক্রবার কক্ষ না পেয়ে ফিরে গেছেন। পুরো শ্রীমঙ্গল এখন পর্যটকদের আগমনে মুখর।


শনিবার উপজেলার বিভিন্ন পর্যটন স্পট ঘুরে দেখা যায় পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়। নয়নাভিরাম চা বাগান, চা জাদুঘর, ডিনস্টন সিমেট্রি, চা কন্যা ভাস্কর্য, নির্মাই শিববাড়ি, চা গবেষণা ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন, খাসিয়াপুঞ্জি, মণিপুরী পাড়া, গারোপল্লি, সাত রঙের চায়ের দোকান, লেবু ও আনারসবাগান, রাবার বাগান, হাইল হাওর, বাইক্কা বিলসহ প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়ে ওঠা রিসোর্টগুলোতে সময় কাটাচ্ছেন পর্যটকেরা।


রিপন দেব নামের এক পর্যটক বলেন, এক সপ্তাহ আগে অনলাইনে একটি রিসোর্টের কক্ষ বুকিং করেছিলাম। দুই দিন থেকে চলে যাবো নিজ বাড়িতে। সকালবেলায় স্ত্রীকে নিয়ে হাঁটতে বের হয়েছি। কুয়াশায় ঢাকা ছিল সবকিছু। খুবই ভালো লেগেছে।


ঢাকা থেকে আসা পর্যটক মনিরুল বলেন, শীত মৌসুমে প্রতিবছরই পরিবার নিয়ে বের হই। গত বছর গিয়েছিলাম রাঙ্গামাটি, এ বছর শ্রীমঙ্গলকে বেছে নিয়েছি। স্ত্রী, দুই ছেলেমেয়ে নিয়ে এখানে প্রথম এলাম। এখানকার চা–বাগানগুলো দেখতে খুবই সুন্দর। সবাইকে নিয়ে চা বাগান, লেক ইত্যাদি ঘুরে বেড়াচ্ছি। সবাই বেশ আনন্দিত।


ইউসুফ নামের এক পর্যটক বলেন, শুক্রবার রাতে শ্রীমঙ্গল এসেছেন। ভোরবেলায় বের হয়েছেন শ্রীমঙ্গল দেখতে। কুয়াশায় মোড়ানো শ্রীমঙ্গল অনেক সুন্দর। তা ছাড়া চা বাগানের ভেতর চমৎকার সূর্যোদয় দেখেছেন। এখানে অনেক ঠান্ডা। সকালে কনকনে শীতে শরীর প্রায় বরফ হয়ে যাচ্ছিলো। সূর্য ওঠার পর ধীরে ধীরে ঠান্ডা কমে গেছে।


গ্রীনলীফ রিসোর্টের মালিক বলেন, এ মাসে সব শুক্রবার ও শনিবার তারা হাউসফুল পেয়েছেন। পর্যটকেরা প্রচুর ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বেশিরভাগ হোটেল রিসোর্টেরই একই অবস্থা।


আবাসন সেবা সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সামসুল হক বলেন, শীতকালে এমনিতেই শ্রীমঙ্গলে পর্যটকদের ভিড় থাকে। এখন সাপ্তাহিক ছুটির দিন ও খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের বড়দিনের ছুটির কারণে পর্যটকেরা বেশি এসেছেন। এখন বর্তমানে শ্রীমঙ্গলের হোটেল-রিসোর্টগুলোর প্রায় ৮০ শতাংশ কক্ষ ভাড়া হয়ে আছে।


শ্রীমঙ্গল থানার এসআই নয়ন কারকুন বলেন, এখন শ্রীমঙ্গলে ভিআইপি ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের পর্যটক রয়েছেন। সব হোটেল–রিসোর্ট পর্যটকেরা ভাড়া করে নিয়েছেন। এখানে আসা পর্যটকেরা যেনো পর্যটনকেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখে নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারেন, সে জন্য পুলিশের টহল অব্যাহত রাখা হয়েছে। তা ছাড়া পুরো শ্রীমঙ্গলই তাদের নজরদারির মধ্যে আছে। পর্যটকেরা নির্বিঘ্নে ঘোরাফেরা করছেন।


বিবার্তা/কাউছার/জনি/এসএফ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com