ভোলায় কালবৈশাখী কেড়ে নিলো দরিদ্র হালিমার আশ্রায় স্থল
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০২০, ২১:১৫
ভোলায় কালবৈশাখী কেড়ে নিলো দরিদ্র হালিমার আশ্রায় স্থল
ভোলা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ভোলার দৌলতখানে কালবৈশাখী ঝড়ে হালিমা বেগম (৭৫) নামে এক বৃদ্ধার মাথাগোজার একমাত্র ঠাই নড়মরে ঘরটি ভেঙে চুমার করে দিয়েছে।


সোমবার ভোলার দৌলতখানে কালবৈশাখী ঝড়ে পৌরসভা ৩ নং ওয়ার্ডে এই ঘটনা ঘটে। হালিমা বেগম একই এলাকার মৃত জনু মাঝীর স্ত্রী।


এলাকাবাসী জানান, হালিমা বেগমের তিন ছেলে রয়েছে। ওই তিন ছেলের মধ্যে একজন মারা গেছে। বাকি দু’জন অনত্রে থাকে। হালিমার স্বামী মারা যাওয়ার পর কোনো রকম খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাতেন। তার থাকার ঘরটিও ছিল নড়বড়ে। সোমবার দুপুরে হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে কেড়ে নিলো অসহায় হালিমার একমাত্র ঘরটি।


মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) বিকালে হালিমা সাংবাদকর্মীদেও কাছে কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, ১৩ বছর পূর্বে আমার স্বামী মারা যান। দুই ছেলে কোনো খোঁজখবর রাখেন না। এরপর থেকে কোনো রকম দু’বেলা-দু’মুঠো খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছি। থাকার জন্য একমাত্র সম্ভল ছিলো ওই ঘরটি। তাও কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে ঘরের উপর গাছ পরে ঘরটি ভেঙে মাটির সাথে মিশে গেছে। বর্তমানে আমি অসহায়। সংসারের আয় রোজগারের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন হালিমা বেগম।


হালিমা আরো জানান, সরকারিভাবে ত্রাণ সামগ্রী হিসেবে একটি চালের বস্তা পেয়েছি। খবর পেয়ে দৌলতখান পৌরসভার মেয়র জাকির হোসেন তালুকদার ও পৌর ৩ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিল আলাউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।


স্থানীয়রা জানান, হালিমা বেগম খুব অসহায় মহিলা। তার স্বামী নেই। ছেলে থাকলেও তার কোনো খোঁজখবর রাখেন না। হালিমা খুব কষ্টে দিন কাটাছে। এ সময় সকলে তার সাহায্যে এগিয়ে আসা উচিত।


এদিকে ওইদিনের কালবৈশাখী ঝড়ের আঘাতে ভবানীপুর ইউনিয়নে ২০/৩০টি বাড়ি-ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। দৌলতখান উপজেলার ভবানীপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম নবী নবু বলেন, কাল বৈশাখী ঝড়ের আঘাতে আমার ইউনিয়নে ২০/৩০টি ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়াও অনেক গাছ উপরে পড়েছে।


দৌলতখান পৌরসভার মেয়র জাকির হোসেন তালুকদার বলেন, ইতিমধ্যে ত্রাণ সামগ্রী আমি হালিমার বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। কালবৈশাখীর ঝড়ের তাণ্ডবে গাছ উপড়ে পড়ে যেহেতু তার ঘর ভেঙে গেছে। সেহেতু আমরা স্থানীয়ভাবে একটি ঘর করে দিব।


দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জীতেন্দ্র কুমার নাথ বলেন, কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে অনেকের ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি আমি শুনেছি। চেয়ারম্যানগণ ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে পাঠালে সরকারিভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে সহায়তা প্রদান করা হবে।


বিবার্তা/শাহীন/জাহিদ

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com