ভেন্না- একটি অবহেলিত উপকারী উদ্ভিদ
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০২০, ১৭:২৪
ভেন্না- একটি অবহেলিত উপকারী উদ্ভিদ
অনামিকা রায়
প্রিন্ট অ-অ+

'বাড়ি তো নয় পাখির বাসা


ভেন্না পাতার ছানি


একটু খানি বৃষ্টি হলে


গড়িয়ে পড়ে পানি'।


পল্লীকবির বিখ্যাত আসমানী কবিতায় খোঁজ পাওয়া যায় গ্রামের এক অতি সাধারণ তেল ফসল ভেন্না/ক্যাস্টর যা থেকে উৎপাদন হয় বিভিন্ন গুনে গুণান্বিত ক্যাস্টর অয়েল। কিন্তু বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ভোজ্য তেলের প্রতি মানুষের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় এবং অবহেলায় হারিয়ে যেতে বসেছে এই ভেন্না। অথচ ভেন্নাকে করা যেতে পারে এক সম্ভাবনাময় তেল ফসল হিসেবে। যাতে করে আমদানি নির্ভর তেলের চাহিদা অনেকাংশ পূরণ করা যেতে পারে।


‘দৈবাৎ কখনো আমার জ্বর হয়েছে; তাকে চক্ষেও দেখি নি। ডাক্তার একটু গায়ে হাত দিয়েই প্রথম দিনের ব্যবস্থা করতেন ক্যাস্টর অয়েল আর উপোস।’


রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আমার ছেলেবেলায় ক্যাস্টর অয়েল ওষুধ হিসেবেই এসেছে। এই তেলের গুণপনা এখনো কম নয়। সৌন্দর্যচর্চায় এখনো আছে এই ক্যাস্টর অয়েল। চুল গজাতে নাকি সাহায্য করে ক্যাস্টর তেল। এমন কথা শুনেছেন কমবেশি সবাই।


ভেন্নার ইংরেজি নাম Castor বৈজ্ঞানিক নাম Jatropha curcas এবং এটি Euphorbi Aceae পরিবারে অন্তর্ভূক্ত। ভেন্না গাছ ১০-১৫ ফুট পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। এরা প্রায় ডালপালাহীন গাছ, উপরের দিকে অল্প ক'টি ডাল হতে দেখা যায়। গাছের কাণ্ডের ভেরতটা ফাঁপা থাকে। এদের কাণ্ডের বেড় ৫-৬ ইঞ্চি হয়ে থাকে। কাণ্ডে ৫-৬ ইঞ্চি দূরে দূরে একটি করে গিঁট থাকে। প্রতিটা গিট থেকে একটা করে পাতা বের হয়।


সাধারণত বর্ষাকালে ভেন্নার চারা গজায়। প্রতি বছর হেমন্ত ও শীতকালে ভেন্নার ফুল-ফল হয়। সবুজ ফলের গায়ে নরম নরম কাঁটা থাকে। কাঁটা এতোই নরম যে গায়ে ফোঁটে না।


ভেন্নার তেলের উপকারী গুণসমূহ


১. কাঁচা ভেন্না সবজি হিসাবে খাওয়া যায় ( পরিপক্ক বীজ এবং ফল খাওয়া উচিত নয়)


২. চুল পরা রোধ করে।


৩. চুলকে ঘন করে।


৪. চোখের আইব্রো কে ঘন এবং কালো করে।


৫. ভেন্নার তেল ত্বককে মোলায়েম করতে সাহায্য করে।


৬. স্কিন থেকে ময়লা দূর করে।


৭. ডার্ক সার্কেল থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন ভেন্নার তেল।


৮. শুষ্ক ত্বক কে মোলায়েম করে।


৯. ত্বকের বর্ণবিলোপ দূর করে।


১০. বলিরেখা দূর করে।


১১. ত্বকের কালো দাগ দূর করে।


১২. মাথার স্ক্যাল্পকে সুস্থতা দান করে।


১৩. চুলের কন্ডিশন হিসেবে কাজ করে।


১৪. গোলকৃমির চিকিৎসার জন্যে এই তেল উপকারী।


১৫. কাঁটা ঘা জীবানুমুক্ত করে।


১৬. ব্যাক পেইন কে দূর করে।


১৭. শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে।


১৮. জয়েন্ট পেইনকে ধ্বংস করে।


১৯. ফুড এডিটিভস হিসাবে ব্যবহৃত হয়।


২০. ফুডের ফ্লেভার করতে ভেন্নার তেলের বিভিন্ন রেসিপি আছে।


২১. ফাংগাস প্রতিরোধে করে ফলে মোল্ড প্রতিরোধ করে।


২২. বীজ সংরক্ষণ করতে এর জুড়ি মেলা ভার।


২৩. ফুড প্যাকেজিং করতে ভেন্নার তেল ব্যবহৃত হয়।


২৪. আধুনিক ফার্মা কোম্পানি তে বিভিন্ন মেডিসিন বানাতে ভেন্নার তেল একটি গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।


যেমন – এন্টি ফাংগাল (মাইকোনাজোল)


– আলাসার চিকিৎসায়


– ত্বকের ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে


– প্যাক্লিক্যাক উপাদান হিসাবে


– আরও অন্যান মেডিসিনের প্রিকারসর হিসাবে ব্যবহৃত হয়।।


২৫. ঠোঁট ফাঁটা রোধ করে।


২৬. পা ফাঁটা রোধা করে।


২৭. নখের অসুস্থতায় ব্যবহৃত হয় ভেন্নার তেল।


২৮. বায়োফুয়েল হিসাবে ভেন্নার তেল সাশ্রয়ী।


২৯. এয়ারক্র্যাফট এর জ্বালানি হিসাবে ব্যবহৃত হয়।


৩০. প্রথম বিশ্বযুদ্ধের রোটারি মেশিন এর ইঞ্জিন ওয়েল হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছিল ভেন্নার তেল।


৩১. লুব্রিকেশন এর কাজে উত্তম লুব্রিকেন্ট হিসাবে ব্যবহৃত হয়।


৩২. খাদ্য সামগ্রী কোটিং করতে ব্যবহৃত হয় ভেন্নার তেল।


৩৩. এই তেলে রয়েছে ভিটামিন ই, মিনারেল, প্রোটিন এবং অন্যান্য পুষ্টি উপাদান।


৩৪. গর্ভাবস্থার দাগ দূর করতে ব্যবহৃত হয়।


৩৫. চোখের ছানি পড়া দূর করতে ব্যবহৃত হয়।


৩৬. ফোঁড়া সারাতে এই তেল দারুন কার্যকরী।


৩৭. গায়ের আঁচিল দূর করতে এই তেলের অসাধারণ গুণ রয়েছে।


৩৮. পেট ফাঁপা দূর করতে এই তেল বেশ উপকারী।


৩৯. তারুণ্য ফিরে পেতে ক্যাস্টর অয়েল দারুন।


৪০. হেপাটাইটিস এর চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়।


৪১. কন্ঠের কর্কশ ভাব দূর করতে এই তেল ব্যবহৃত হয়।


৪২. এলার্জির চিকিৎসার উপাদান হিসাবে ব্যবহার হয়।


৪৩. ভেন্নার খইল অর্গানিক সার হিসাবে ব্যবহৃত হয়।


বিবার্তা/অনামিকা/জাই


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com