সরকার সংবিধানকে কেটে ছিঁড়ে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিয়েছে : ফখরুল
প্রকাশ : ০৩ মার্চ ২০২১, ২১:২০
সরকার সংবিধানকে কেটে ছিঁড়ে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিয়েছে : ফখরুল
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই আওয়ামী লীগ সেই আওয়ামী লীগ যারা স্বাধীনতার পরে মানুষের যে আকাঙ্ক্ষা ছিল, যে স্বপ্ন ছিল একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ সেই বাংলাদেশকে তারা ধ্বংস করে দিয়েছে। যে সংবিধান রচনা করা হয়েছিল সেই সংবিধানকে তারাই কেটে ছিঁড়ে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিয়েছে। স্বাধীনতার স্বপ্ন আওয়ামী লীগ কোনোদিনও বাস্তবায়নের কাজ করেনি আজকে তারা একটি ভিন্ন মোড়কে একদলীয় শাসনব্যবস্থা কায়েম করেছে।


বুধবার (৩ মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ‘স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠের’ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


বর্তমান সরকারের কঠোর সমালোচনা করে এই সরকারের বিরুদ্ধে জোরালো আন্দোলন গড়ে তুলে সরকার পতনের জন্য সকল রাজনৈতিক শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব বলেন, আজকে সমস্ত শক্তিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। দেশের সমস্ত রাজনৈতিক দল সমস্ত দেশপ্রেমিক মানুষকে আহ্বান জানাতে চাই। ১৯৭১ সালে যে চেতনা নিয়ে যুদ্ধ করেছিলাম, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা কায়েম করার জন্য আরেকটি লড়াই আমাদের করতে হবে। কারো হুকুমের দাস হতে চাই না। আমরা আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক আবাসস্থল গড়ে তুলতে চাই। সেজন্য সবাই ঐক্যবদ্ধ হই। আমাদের উপর যে দানব বসে আছে কথাটা আমার না এ কথা বলেছিলেন সাবেক বিচারপতি এসকে সিনহা।


তিনি বলেন, লেখক ব্লগার মোস্তাক আহমেদকে শুধু সরকারের সমালোচনা করে একটি লেখার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল। এবং ছয় মাস তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে আটক রাখা হয়েছিল। শুধু মোস্তাক আহমেদ একা নন এরকম বহু মানুষকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে আটক রাখা হয়েছে। আপনারা দেখেছেন সরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে যাওয়ায় আমাদের ছাত্রনেতাদের কি অমানবিক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে গত কয়েকদিন আগে। এবং হাসপাতাল থেকে একটি ছেলেকে তুলে নিয়ে গিয়ে রিমান্ডে নিয়ে তার উপর পৈশাচিক নির্যাতন চালানো হয়। আমরা জানতে চাই জনগণের প্রতিপক্ষ কেন পুলিশ? প্রতিপক্ষ তো আপনারা বানিয়েছেন নিজেরা। আমি গত কালকে বলেছি আজকে আর রিপিট করতে চাইনা।


বিএনপি মহাসচিব বলেন, গণমাধ্যমের সামনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরেকজন নির্বাচন কমিশনারের সাথে ভিশন তর্ক যুদ্ধ করেছে, একজন বলেছেন এখনতো নির্বাচন হয় না।


আমরা ইতিহাসকে বিকৃত করতে চাইনা সেজন্যই স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন জাতীয় কমিটিতে সেইসব বীর যোদ্ধাদের সামনে নিয়ে এসেছি। আমরা ইতিহাসে যার যা প্রাপ্য সেটি তাকে দিতে চাই। যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় নেতৃত্ব দিয়েছিল নির্যাতিত হয়েছিল তাদেরকে আওয়ামী লীগ স্মরণ করতে চায় না।


সংগঠনের সভাপতি ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বেএবং বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল সালাম এর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান, ডক্টর আসাদুজ্জামান রিপন, সাবেক ছাত্র নেতা ফজলুল হক মিলন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, জহির উদ্দিন স্বপন ও নাজিম উদ্দিন আলম বক্তব্য দেন।


এ ছাড়াও সমাবেশে যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় নেতা মো. মাইনুল ইসলাম, সাবেক নেত্রী আরিফা সুলতানা রুমা সহ বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


বিবার্তা/বিপ্লব/জাই

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com