ভ্যাকসিন এসেছে বাংলাদেশের মানুষের উপর গবেষণা চালানোর জন্য: রিজভী
প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৫৭
ভ্যাকসিন এসেছে বাংলাদেশের মানুষের উপর গবেষণা চালানোর জন্য: রিজভী
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ভারত থেকে যে টিকা এসেছে তা বাংলাদেশের মানুষের ওপর গবেষণা চালানোর জন্য। ভারত উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে যে ২০ লাখ ডোজ করোনার টিকা দিয়েছে তা নিয়ে জনমনে সংশয় রয়েছে।


সোমবার (২৫ জানুয়ারি) তেজগাঁও অঞ্চলের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের উদ্যোগে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।


রিজভী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ ভারতের গবেষণাগারের ‘ব্যাঙ, বিড়াল, তেলাপোকায় পরিণত হয়েছে। ভারত তিস্তার পানি তো দেয় না, কিন্তু উপহার হিসেবে ২০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দিল। এই দরদ উতলে ওঠার কারণ কী? ভারত মূলত বাংলাদেশের মানুষদের ওপর ভ্যাকসিনের পরীক্ষা চালাতে চায়। বাংলাদেশ সরকার ভারতকে সেই সুযোগ করে দিয়েছে। কারণ ভোটারবিহীন বর্তমান মিডনাইট সরকারের দেশের মানুষের বাঁচা-মরা নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই।


করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে সরকার বিপজ্জনক ও সর্বনাশা খেলায় মেতেছে’ অভিযোগ করে তিনি বলেন, ভারত থেকে যে টিকা এসেছে তা বাংলাদেশের মানুষের ওপর পরীক্ষা চালানোর জন‌্য এসেছে। ওরা (ভারত) দেখবে এই ভ্যাকসিন নেয়ার পরে মানুষ বাঁচে, না মরে, না অসুস্থ হয়। তারপরে ভিআইপিরা নেবে। তারপরে ভারত নেবে। ভারত বলছে, তারা মার্চে এটা ট্রায়াল করবে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম রয়টার্স বলেছে, ভারত যে টিকা বাংলাদেশকে দিচ্ছে এটা ট্রায়ালের জন্য দিচ্ছে।


রিজভী বলেন, সরকার আরেকটি ভানুমতির খেল দেখাচ্ছে। সেটা হচ্ছে ভ্যাকসিন নিয়ে। ২০ লাখ লোককে বিনা পয়সায় ভ্যাকসিন দেবে। ভারত থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছে। ভারতের হাইকমিশন বলছে, বাংলাদেশে আওয়ামী লীগই ভারতের বড় বন্ধু। অন্য কেউ না। যারা একটি দেশের একটি রাজনৈতিক দলকে বন্ধু মনে করে, তাদের দেয়া ভ্যাকসিন যদি দেশের জনগণ নেয় তাহলে মানুষ বাঁচবে কী বাঁচবে না, সেই গ্যারান্টি নেই।


বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার বারবার বলছে ভ্যাকসিন ভিআইপিদের আগে দেয়া হবে না। আগে দেয়া হবে সাধারণ জনগণকে। প্রশ্ন হলো, ভিআইপিদের আগে দেয়া হবে না কেন? আগে ভিআইপিদের দেন, তারা সুস্থ থাকুক, তারপর দেশের জনগণকে দেন। কিন্তু এখানেই রহস্য, সরকার সাধারণ জনগণকে আগে ভ্যাকসিন দিয়ে এর কার্যকারিতা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরীক্ষা করতে চায়। কারণ, দেশের মানুষের বাঁচা-মরা নিয়ে সরকারের কোনো মাথাব্যথা নেই।


তিনি বলেন, গবেষণাগারে ব্যাঙ, বিড়াল যেমন বিচ্ছিন্ন করা হয়, তার ভেতরে যেমন দেখা হয় কী আছে, মানবদেহ সম্পর্কে জানার জন্য যেমন ওই প্রাণীগুলোর দেহ কাটা হয়, আজ ঠিক তেমনিভাবেই বাংলাদেশের মানুষ ভারতের গবেষণাগারের ব্যাঙ, বিড়ালে পরিণত হয়েছে। ওরা দেখবে, এই ভ্যাকসিন নেয়ার পরে মানুষ বাঁচে, না মরে, না অসুস্থ হয়।


ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার প্রমুখ।


বিবার্তা/বিপ্লব/এসএ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com