শেখ রাসেলের জন্মদিনে গৌরব’৭১-এর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা
প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫০
শেখ রাসেলের জন্মদিনে গৌরব’৭১-এর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গৌরব’৭১।


সোমবার (১৮ অক্টোবর) বিকাল ৩টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এই প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে চলে ৪টা পর্যন্ত।


চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল ‌‘ভোরের পাখি শেখ রাসেল’। তিন বিভাগে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ক বিভাগে ছিল ১ম-৩য় শ্রেণি, খ বিভাগে ছিল ৪র্থ থেকে ৭ম ও গ বিভাগে ছিল ৮ম-১০ম শ্রেণি।


চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের গ্রাফিক ডিজাইন বিভাগের সহাকারী অধ্যাপক সীমা ইসলামসহ দেশবরেণ্য চিত্রশিল্পীরা।


শিশু-কিশোরদের এই চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা শেষ হওয়ার পর সীমিত পরিসরে আলোচনাও অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি।


এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা দেখার জন্য আমরা যুদ্ধ করিনি। এই বাংলাদেশ দেখার জন্য ৩০ লাখ শহীদ আত্মাহুতি দেননি। আমরা যুদ্ধ করেছি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার জন্য। যে সমস্ত মৌলবাদী, ধর্মান্ধ এখনো ধর্মের দোহাই দিয়ে একাত্তরের মতো সমাজে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্প ছড়াচ্ছে, যারা এখনো ঘর-বাড়ি জ্বালাচ্ছে তাদেরকে আমরা একাত্তরের মতোই প্রতিহত করে অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ গড়বো।


হানিফ বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি ও তাদের মিত্ররা জাতির পিতাকে শহীদ করেছিলো। একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ থেকে শেখ রাসেলও রেহাই পায়নি। ছোট্ট রাসেল মাত্র নয় বছর বয়সে প্রাণ হারিয়েছে। আজ জীবিত থাকলে ৫৮ বছর বয়স হতো। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতার কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল ১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট খুন হয়েছে। আমাদের জাতির জন্য দিনটি অত্যন্ত কলঙ্কময়।