সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করল যুক্তরাষ্ট্র
প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৬:২০
সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করল যুক্তরাষ্ট্র
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতিকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।


১ ডিসেম্বর, শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশিত ‘কান্ট্রি রিপোর্টস অন টেরোরিজম ২০২২ : বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রতিবেদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সরকারের অন্যান্য কর্মকর্তা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির ওপর জোর দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।


সেই সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের লড়াইয়ের শুরু থেকেই দেশটির গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারের ভূমিকায় থেকেছে যুক্তরাষ্ট্র।


বিবৃতিতে ২০১৬ সালে হোলি আর্টিজান হামলা থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের ধর্মীয় জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের উত্থান এবং তা মোকাবিলায় সরকারের বিভিন্ন প্রচেষ্টা সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরেছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে বিবৃতিতে মূলত বাংলাদেশের ২০২২ সালের পারফরম্যান্সকেই গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বেশি।


‘বিশেষত আল-কায়েদা অনুমোদিত গোষ্ঠী জামাআতুল মুজাহিদীন (জেএমবি) এবং আইএসের অনুমোদিত জেএমবি শাখা, নব্য জেএমবির মতো জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোকে কর্তৃপক্ষ অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে আমলে নেওয়ায় ২০২২ সালে বাংলাদেশে সন্ত্রাসী সহিংসতার অল্প কিছু ঘটনা ঘটেছে,’ বলা হয়েছে বিবৃতিতে


মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত কয়েক বছরে জঙ্গিবাদ দমনে যুক্তরাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের সঙ্গে নিয়মিত বিভিন্ন তথ্য শেয়ারের পাশাপাশি কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিসিটিউ), অ্যান্টি টেরোরিজম ইউনিটসহ (এটিইউ) বিভিন্ন পুলিশ ইউনিট গঠন করেছে বাংলাদেশ সরকার। পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত মামলাগুলো পরিচালনা করতে তৃণমূল পর্যায়ে সন্ত্রাসবাদবিরোধ আদালতও (এটিটি) গঠন করেছে।


এ প্রসঙ্গে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ তার আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং সন্ত্রাসবাদের নেটওয়ার্ক দমনে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে নিয়মিত তথ্য শেয়ারসহ সহযোগিতামূলক সম্পর্ক বজায় রেখেছে। সন্ত্রাসবাদ দমনে দেশটি সিসিটিউ, এটিইউ, এটিটিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে এবং বাংলাদেশকে এসব প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা ও সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।’


জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন বন্ধেও বাংলাদেশের ভূমিকায় সন্তোষজনক উল্লেখ করে বিবৃতিতে মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট কানাডাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এগমন্ড গ্রুপের এশিয়া-প্যাসিফিক শাখার সদস্য এবং ২০২২ সালে দেশটিতে জঙ্গি অর্থায়ন সংক্রান্ত কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায়নি।’


বিবার্তা/এমজে

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com