বাচ্চুর জন্য কাঁদছে পশ্চিমবঙ্গও
প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:০৯
বাচ্চুর জন্য কাঁদছে পশ্চিমবঙ্গও
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

২০১৩ সাল। আমরা তখন সবে থার্ড ইয়ারে উঠেছি। ডানা গজিয়েছে। তাই পড়াশোনা ফেলে দিন-রাত গলা ছেড়ে গান গাওয়াই তখন আমাদের 'কাজ'। এমন সময় আমাদের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেস্টে এলো বাংলাদেশের বিখ্যাত ব্যান্ড ‘এলআরবি’। ততদিনে ‘এলআরবি’ নামটার সাথে আমাদের রোজকারের ওঠাবসা। নতুন প্রেমে ধাক্কা খেলে সারা বিশ্ববিদ্যালয় যেন একসাথে গেয়ে ওঠে, ‘সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে’। প্রেমে পড়লে সবার কল্পনার ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজে টুটুল ভাইয়ের কী-বোর্ড, সাথে আইয়ুব বাচ্চুর যাদুকরী ‘রুপালি গিটার’।


শুধু শহুরে কলেজ-ক্যাম্পাসে নয়, ভারতীয় বাংলাভাষী মফস্বলের শ্রোতাদের কাছেও সহজ কথায় বাঁধা তাঁর গানের, বাজনার গ্রহণযোগ্যতা ছিল তাঁরই সমসাময়িক অনেক ভারতীয় শিল্পীর ঈর্ষার কারণ। এলআরবি-র কণ্ঠ ও গিটারশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর জনপ্রিয়তা ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি কাঁটাতারের বেড়া।


আসামের ছোট্ট শহর শিলচরে বেড়ে ওঠার কারণে কলকাতার জনপ্রিয় গান আমাদের কাছে খানিক দেরিতেই এসে পৌঁছত। কিছু হাতেগোনা লোকশিল্পী ছাড়া সেভাবে বাংলাদেশের ব্যান্ডসংগীতকে বড় হওয়ার সময় কাছে পাইনি। পরে কলকাতায় গিয়ে সেই বাধাটুকু আর ছিল না। আস্তে আস্তে গানের জগতের সাথে সখ্য আরো গভীর হয়ে উঠলে কাছ থেকে বিভিন্ন শিল্পীর সাথে পরিচয় করার সুযোগ পাই।


ছাত্রজীবনে স্বচক্ষে দেখেছি কীভাবে আইয়ুব বাচ্চু ‘ভিনদেশী’ শিল্পী হয়েও কত সহজে আপন করে নিতেন এপার বাংলার ব্যান্ডের সদস্যদের। তাঁদের অনেকের কাছেই তিনি তাই বড় শ্রদ্ধার, ভালোবাসার ‘বাচ্চু ভাই’।


‘এই রুপালি গিটার ফেলে একদিন চলে যাব দূরে বহুদূরে, সেদিন চোখে অশ্রু তুমি রেখো গোপন করে’ - তাঁর এই গানটি যেন আজ এপিটাফ।


সেই আইয়ুব বাচ্চু’র মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই শোকস্তব্ধ গোটা বাংলাদেশের সাথে ভারতেরও বাংলা সংগীত জগৎ। সোশ্যাল মিডিয়াতে তাঁকে স্মরণ করছেন পুরোনো থেকে নতুন - সব প্রজন্মের শিল্পীরা।


জনপ্রিয় ব্যান্ড ফসিলস-এর শিল্পী রূপম ইসলাম ফেসবুকে দিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চুর সাথে তাঁর কাটানো সময়ের একটি ভিডিও। দুঃখের সাথে জানিয়েছেন দু'জনের সাংগীতিক পরিকল্পনার কথা, যা রয়ে গেলো অপূর্ণই।


দুই বাংলায় সমানভাবে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাহানা বাজপেয়ী লিখেছেন, ‘‘আমাদের দিনগুলি রঙিন করে তোলার জন্য ধন্যবাদ, বাচ্চু ভাই!’’


ভারতের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়িকা ইমন চক্রবর্তীও এই কিংবদন্তি শিল্পীকে তাঁর শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।



প্রসঙ্গত বলে রাখি, এ বছরই কয়েক মাস আগে কলকাতায় এসেছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। শহরের বিখ্যাত পাব ‘সামপ্লেস এল্স’-এ তাঁকে হঠাৎ দেখা যায়। এই শহরেরই আরেক তরুণ গিটার বাদক সানি ভট্টাচার্য তখন মঞ্চে। মঞ্চে উঠে তাঁর কাঁধে হাত রাখলেন সানির আজীবনের অনুপ্রেরণা আইয়ুব বাচ্চু।


আজ শোকের এই দিনে সেদিনে ফিরে গিয়ে সানি বলেন, ‘‘ছোটবেলা থেকে যাঁর গান শুনেছি, বাজিয়েছি, সেই মানুষটা সেদিন আমার পাশে। অন্য অনুভূতি! আমার আইয়ুব বাচ্চুর সাথে এক মঞ্চে দাঁড়িয়ে ‘সেই তুমি’ বাজানোর স্বপ্ন সেদিন পূরণ হয়েছিল।’’


আরেক তরুণ কন্ঠশিল্পী তিমির জানালেন, ‘‘বাচ্চু ভাই আমাদের প্রজন্মকে অসম্ভব স্নেহ করতেন। দেশ-কাল-রাষ্ট্রের উপরে থাকা এই মানুষটি চলে যাওয়ায় আমাদের দায়িত্ব কয়েকগুণ বেড়ে গেল। তিনি ছিলেন একজন প্রকৃত মানুষ।’’


শিল্পীমহলে ইতিমধ্যেই শোনা যাচ্ছে খবর। অতি প্রিয় ‘বাচ্চু ভাই’-এর স্মৃতিতে কলকাতার বিখ্যাত ম্যাডক্স স্কোয়ারে শীঘ্রই বসতে চলেছে বাংলা গানের আসর। চিরবিনয়ী এই মানুষটির চলে যাওয়া আসলে একটি যুগের, প্রতিষ্ঠানের অবসান। দেখনদারী ও প্রতিযোগিতায় ঘেরা বর্তমান সংগীতজগতে তিনি ছিলেন ব্যতিক্রমী উদাহরণ। দেশে হোক বা বিদেশে, নতুন শিল্পীদের পাশে দাঁড়ানোর মতো একজন অভিভাবক হারালো আজ দুই বাংলার সংগীত জগত।


শবনম সুরিতা ডানা-র ব্লগ থেকে


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com