অভিনব পদ্ধতিতে পানি সংগ্রহ উত্তর প্রদেশের প্রত্যন্ত গ্রাম বান্দায়
প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৮, ১২:০০
অভিনব পদ্ধতিতে পানি সংগ্রহ উত্তর প্রদেশের প্রত্যন্ত গ্রাম বান্দায়
ফাইল ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

পানি সংগ্রহে নজির গড়েছে ভারতের উত্তর প্রদেশের বান্দা গ্রাম। দীর্ঘদিন ধরে পানির অভাবে ধুকছে গ্রামের কৃষি জমি। সুরাহা পেতে উদ্যোগ নিলেন গ্রামবাসীরাই।


পানির অপচয় রুখতে ব্যবহৃত পানিও সংগ্রহ করতে উদ্যোগী গ্রামের মানুষ। বান্দা গ্রামের প্রত্যেক ঘরে নালা ও পাইপ একসঙ্গে যুক্ত। ব্যবহৃত পানি পাইপ দিয়ে বেরিয়ে ড্রেনে গিয়ে জমা হয়। সেই পানিই চাষের কাজে ব্যবহার করছেন গ্রামবাসীরা।


কয়েক বছর ধরেই পানির অভাবে মারাত্মক ক্ষতির মুখে বান্দার চাষীরা। পানীয় জলের জোগাড় করতেই তাদের বেগ পেতে হত। সমস্যা সমাধানে সরকারের সাহায্য চাইলেও মেলেনি সমাধান সূত্র। তাই নিজেদের উদ্যোগেই পানির অভাব দূর করতে মাঠে নামেন গ্রামবাসী। গ্রামের প্রত্যেক বাড়িতে নালা ও পানির পাইপ একই সঙ্গেই রয়েছে। পাইপ থেকে পানি বেরিয়ে নালায় জমা হচ্ছে। গ্রামের এক নারী বলেন, হাত ধোওয়ার জন্য যে পানি খরচ হচ্ছে সেই পানিও জমা হচ্ছে নালায়। পানি সংগ্রহের এই পদ্ধতি এতটাই লাভজনক যে, গ্রামের শুকনো পকুর, ছোট জলাশয়গুলো এই পদ্ধতিতে ভরে উঠছে।


পানি সংগ্রহের এই পদ্ধতিতে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। এক বছর আগেই পানি সংগ্রহের এই পদ্ধতি গ্রামে চালু হয়। গ্রামের এক কৃষক বলেন, নালায় জমা হওয়া পানি কৃষির জন্য আলাদা করে ধরা থাকে। তাই পানি না থাকলেও চালু থাকছে কৃষিকাজ। বান্দা গ্রামে এই বছরই ১১ হাজার মেট্রিক টন ফসল উৎপাদন হয়েছে। যা গত ১০ বছরেও হয়নি বলে জানিয়েন স্থানীয়রা। ভবিষ্যতের কথা ভেবে পানি সংগ্রহের এই ড্রেনেজ সিস্টেমকে আরো বাড়াতে চাইছেন তারা।


শুধু ব্যবহার করা পানিই নয়, রেইন হারভেসটিং বা বৃষ্টির পানি সংগ্রহে এগিয়ে বান্দা গ্রাম। প্রত্যেক ঘরে রয়েছে একাধিক নালা। কৃষি জমির সঙ্গে সরাসরি যুক্ত বেশ কয়েকটি নালা, আবার অন্য নালাগুলোতে জমা হচ্ছে বৃষ্টির পানি। বৃষ্টির পানি নালায় জমা হয়ে বড় জলাশয়ে পড়ছে । গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষদের মাথা থেকেই জল সংগ্রহের এই অভিনব পদ্ধতিটি বেরিয়েছে।


বান্দা গ্রামে শিক্ষার আলো খুব একটা চোখে পড়ে না। বেশিরভাগ মানুষ কৃষিজীবী। কিন্তু পানির প্রয়োজনীয়তা বোঝেন প্রত্যেকটি মানুষ। পানির অভাবে উত্তর প্রদেশের বেশিরভাগ গ্রামেই ফসল নষ্ট হয়। পানীয় জলের অভাবও থাবা বসায়। সেই সমস্যার সমাধানে নতুন পথ দেখাল রাজ্যের প্রত্যন্ত বান্দা গ্রাম। সূত্র: কলকাতা২৪/৭


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com