নারী পাচারকারী চক্রের হোতা ‘বস রাফি’র স্বীকারোক্তি
প্রকাশ : ০৮ জুন ২০২১, ২২:৫৬
নারী পাচারকারী চক্রের হোতা ‘বস রাফি’র স্বীকারোক্তি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি এক তরুণীকে বীভৎস কায়দায় যৌন নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার আশরাফুল ইসলাম মণ্ডল রাফি ওরফে ‘বস রাফি’ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।


৩০ বছর বয়সী বস রাফি ভারতে নারী পাচারকারী চক্রের ‘হোতা’। তিনি চক্রের নেতৃত্ব দিয়ে বিভিন্ন তরুণীকে প্রলোভন দেখিয়ে পাচারের শিকার করতেন।


সম্প্রতি বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি ওই তরুণীর ওপর বর্বর যৌন নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তদন্তে নামে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সন্ধান পায় নারী পাচারের একটি চক্রের। এই চক্রের কাছ থেকে পালিয়ে আসা এক তরুণী ঢাকার হাতিরঝিল থানায় মানবপাচার ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করলে সেই মামলায় বস রাফিসহ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে র্যাব।


ওই মামলায় গত ২ জুন বস রাফিসহ চারজনকে পাচঁ দিনের রিমান্ডে দেন আদালত। রিমান্ড শেষে মঙ্গলবার (৮ জুন) রাফিকে আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিতে আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা হাতিরঝিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুক। পরে ঢাকার মহাগর হাকিম মোহাম্মদ জসীম আসামি রাফির জবানবন্দি নিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।


ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি তরুণীকে বিবস্ত্র করে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে দুই নারীসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করে দেশটির স্থানীয় পুলিশ। গ্রেফতারের সময় গুলিবিদ্ধ হয় টিকটক হৃদয় বাবু ও সাগর।


মঙ্গলবার র্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, মাত্র অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়েছে নারীপাচারকারী আশরাফুল মণ্ডল ওরফে বস রাফি। আট বছর আগে থেকে ভারতে নিয়মিত যাতায়াত ছিল তার। প্রথমে ব্যাঙ্গালুরুতে ট্যাক্সি চালিয়ে জীবন নির্বাহ করত সে। পরে হোটেলে রিসোর্ট কর্মচারী এবং কাপড়ের ব্যবসা করত।


গত দুই বছর আগে টিকটক হৃদয়ের সঙ্গে রাফির পরিচয় হয়। এরপর টিকটক হৃদয়ের মাধ্যমে প্রায় অর্ধশতাধিক তরুণীকে ভারতে পাচার করে সে।


কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, উচ্চ বেতনে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে নারীদের ভারতে পাচার করত রাফি। বাংলাদেশ থেকে তাকে নারীর যোগান দিত টিকটক হৃদয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গ্রুপ খুলে বিভিন্ন বয়সের নারী ও তরুণীদের সঙ্গে যোগাযোগ করত হৃদয়।


এই গ্রুপের মাধ্যমে তরুণীদের মডেল বানানোসহ ও বিভিন্ন চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে আকৃষ্ট করত। পরবর্তীতে ভারতে বিভিন্ন সুপার শপ ও বিউটি পার্লারে চাকরি দেয়ার কথা বলে বস রাফির সহযোগিতায় এসব তরুণীদের পাচার করত।


বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com