জর্দান দেশের খানাপিনা
প্রকাশ : ০৭ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:০৬
জর্দান দেশের খানাপিনা
হুমায়ুন সাদেক চৌধুরী
প্রিন্ট অ-অ+

মধ্যপ্রাচ্যের রাজতান্ত্রিক দেশ জর্দানের নাম আমরা প্রায়-সবাই জানি। বইপত্র ঘাঁটলে আরো জানা সম্ভব যে জর্দানের আয়তন ৮৯,৫৫৬ বর্গকিলোমিটার। আম্মান জর্দানের বৃহত্তম শহর ও রাজধানী। জর্দানের উত্তরে সিরিয়া, পূর্বে ইরাক ও সৌদি আরব, দক্ষিণে সৌদি আরব ও আকাবা উপসাগর এবং পশ্চিমে ইসরায়েল ও পশ্চিম তীর ইত্যাদি।


কিন্তু এ সবই নিরস তথ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কিংবা কর্মজীবনে প্রবেশের পরীক্ষায় এসব তথ্য কখনো-কখনো কাজে লাগতেও পারে। কিন্তু আমরা কখনো জানতে পারি না, এই যে এতো বড় একটা দেশ, সেদেশের মানুষরা কী খায় আর কী খেতে পছন্দ করে!


জর্দানের প্রাচীন উপকথায় আছে, আজ থেকে ছয় হাজার বছর আগে একদিন এক আরব মেষপালক নতুন কোনো মরুদ্যানের খোঁজে মরুভূমি পাড়ি দিচ্ছিলেন। তিনি তার পশুদের দোহন করা দুধগুলো ভরে নিয়েছিলেন পশুদেরই পাকস্থলীর চামড়া দিয়ে তৈরি একটি মশকে। তারপর তো পথ চলতে শুরু করলেন। পথে মশকের চামড়ার সাথে প্রখর সূর্যালোকের রাসায়নিক বিক্রিয়ায় দুধগুলো দই হয়ে গেল আর সেই সাথে উদ্ভাবিত হলো পনির বানানোর প্রক্রিয়া। তখন থেকেই বেদুঈন পশুপালকরা ছাগল ও ভেড়ার দুধ থেকে দই ও পনির তৈরি করতে থাকে।


পনির জর্দানে একটি পরিচিত খাদ্য। সেদেশের একটি জনপ্রিয় পনিরের নাম হালৌমি। ছাগল ও ভেড়ার দুধ থেকে তৈরি এ পনির পিঠার মতো এক ধরনের রুটি দিয়ে তৈরি স্যান্ডউইচের সাথে খায় জর্দানবাসী। কখনো সালাদের সাথেও টুকরো-টুকরো করে পরিবেশন করা হয়।


জর্দানবাসীর খাদ্যতালিকায় এছাড়া আছে ভাত, সীমের বিচি, জলপাই, দই, সাদা রুটি, সব্জি (ফুলকপি, বেগুন, আলু, ঢ্যাঁড়শ, টম্যাটো ও শসা), মাংস এবং ফলমূল (এপ্রিকট, আপেল, কলা, তরমুজ ও কমলা)। মশলামাখা ভাত ওরা প্রায়-প্রতিদিনই খায়, এটাই ওদের প্রধান খাদ্য। ওদের প্রধান খানাপিনাটা হয় দুপুরে। মেঝের ওপর কিছু-একটা বিছিয়ে তার ওপর সবাই গোল হয়ে বসে। মাঝখানে বড় ট্রে-তে থাকে ভাত ও মাংস। তার চারদিকে ছোট-ছোট ডিশে দই ও সালাদ। থাকে রুটির ছোট-ছোট টুকরো। সবাই ডান হাত দিয়েই খায়, কখনোই খাওয়ার কাজে বাম হাত ব্যবহার করে না।



জর্দানবাসী আত্মীয়স্বজন বা বন্ধুবান্ধব কারো বাড়িতে বেড়াতে গেলে কিংবা তাদের কাছে কেউ এলে তাদের চা, কফি বা ফলের রস দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়। মিষ্টিও থাকে প্রায়ই, বিশেষ করে যদি সেটা ছুটির দিন হয়।


জর্দানে মেহমানকে আপ্যায়নের প্রধান ডিসটির নাম মানসাফ। এটি হলো দই দিয়ে রান্না করা ভেড়ার মাংস, যা খাওয়া হয় ভাত অথবা রুটি দিয়ে। ছুটির দিনে জর্দানীরা বিশেষ খাবার হিসেবে মানসাফ খায়, বাড়িতে অতিথি এলেও তা-ই। আর বিয়েবাড়িতে তো এটা থাকবেই।


বিবার্তা/হুমায়ুন/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com