গিনিতে ডায়নামাইট বিস্ফোরণে নিহত ১৭, আহত চার শতাধিক
প্রকাশ : ০৮ মার্চ ২০২১, ০৯:৫৪
গিনিতে ডায়নামাইট বিস্ফোরণে নিহত ১৭, আহত চার শতাধিক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ইকুয়েটোরিয়াল গিনিতে সেনা ব্যারাকের কাছে ভয়াবহ ডায়নামাইট বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছেন। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৪২০ জন। রবিবার (৭ মার্চ) দেশটির বাটা শহরের কাছে এ ঘটনা ঘটে। খবর এএফপি ও বিবিসির।


দুর্ঘটনার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট তেওডোরো ওবিয়াং নিগমা এমবাছোগো রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বক্তৃতা করেন। তিনি হতাহতদের পরিবার-পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানান। দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেন, সেনা ব্যারাকের পাশে ডায়নামাইটের সংরক্ষণাগারে অবহেলার কারণেই ভয়াবহ এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।


বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, বিস্ফোরণের সময় ধারণ করা অনেক ভিডিও ও ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে- গোটা এলাকায় ধোঁয়া আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। ধ্বংসস্তুপে চাপা পড়া মানুষ বাঁচার জন্য আকুতি জানাচ্ছেন। ধারণা করা হচ্ছে- বিস্ফোরণে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।


একাধিক টুইট করে স্বাস্থ্যকর্মীদের বাটা রিজিওনাল হাসপাতালে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, আহতদের প্রচুর রক্ত প্রয়োজন। যারা রক্ত দিতে আগ্রহী তারা যেন যোগাযোগ করেন। এছাড়া গুরুতর এবং খুব বেশি গুরুতর আহতদের চিকিৎসার জন্য তিনটি হাসপাতাল বরাদ্দ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।


স্থানীয় বাসিন্দা টিওডোরো নিগমা বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, তারা হঠাৎ বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পান এবং কালো ধোঁয়া দেখতে পান। পরে আরও কয়েক দফায় বিস্ফোরণ হয়। ফলে গোটা এলাকায় ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে পড়ে।


দেশটিতে দায়িত্বরত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত অলিভিয়ার ব্রোচেনিন এ ঘটনাকে বড় বিপর্যয় আখ্যায়িত করে হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।


এছাড়া স্পেনের রাষ্ট্রদূত তাদের দেশের নাগরিকদের ঘরে অবস্থান করার নির্দেশনা দিয়েছেন। ইকুয়েটোরিয়াল গিনি ১৯৬৮ সালে স্বাধীনতা অর্জন করে। এর আগ পর্যন্ত দেশটি স্পানিশ উপনিবেশ ছিল।


বিবার্তা/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com