বুক ব্যথা হার্ট অ্যাটাকের একমাত্র লক্ষণ নয়
প্রকাশ : ২৭ জুলাই ২০২১, ১৯:০৬
বুক ব্যথা হার্ট অ্যাটাকের একমাত্র লক্ষণ নয়
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আমরা সাধারণত মনে করি হার্ট অ্যাটাক মানেই বুকে ব্যথা কিংবা শরীরের বাম পাশে ব্যথা। তবে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন ভিন্ন কথা। হার্ট অ্যাটাকের ক্ষেত্রে যে উপসর্গ গুলোকে সাধারণ মানুষ প্রধান বলে মনে করেন সেগুলো তো আছেই। পাশাপাশি নারীরা সম্পূর্ণ ভিন্ন উপসর্গ অনুভব করেন পুরুষের তুলনায়।


নারীদের ক্ষেত্রে হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলো ভিন্ন হতে পারে। আর তা দেখা দিতে পারে মাস খানেক আগেই। আমেরিকাল হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের এক গবেষণায় জানানো হয়, অনেক সময় দেখা যায় মূল ‘কার্ডিয়াক ইভেন্ট’য়ের কয়েক সপ্তাহ আগ থেকেই উপসর্গ দেখা দেয়া শুরু করে। তবে রোগী তা ধরতে পারে না। ৯৫ শতাংশ নারীর মাঝে হার্ট অ্যাটাকের প্রায় এক মাস আগ থেকে নতুন উপসর্গ দেখা দেয়। আর তার মধ্যে ৭১ শতাংশের উপসর্গই মিলে যায়। উপসর্গগুলো হলো-


অস্বাভাবিক ক্লান্তি


২০০৩ সালে ‘আমেরিকাল হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’ ৫০০ নারীকে নিয়ে একটি জরিপ চালায়, যাদের প্রত্যেকেই হার্ট অ্যাটাকের শিকার হয়েছেন। এদের মধ্যে ৯৫ শতাংশই জানান, হার্ট অ্যাটাকের প্রায় এক মাসেই আগ থেকেই তারা অনুভব করছিলেন শরীরের কোথাও একটা সমস্যা হচ্ছে। ৭১ শতাংশ বলেছেন তাদের ক্লান্ত লাগত কোনো ভারী পরিশ্রম না করেও।


যুক্তরাষ্ট্রের ‘ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিক’য়ের এক প্রতিবেদনে ‘কার্ডিওলজিস্ট’ লেজলি চো বলেন, অবসাদের কোনো অনুভূতি যদি কারো কাছে নতুন ধরনের হয় কিংবা তার কোনো কারণ খুঁজে পাওয়া না যায় তবে সেখানে হৃদরোগ কিংবা হার্ট অ্যাটাকের একটা সম্ভাবনা সবসময়ই থাকে। প্রতিদিন যেসব কাজ করা হয় সেই কাজ করতে গিয়ে, যেমন সামান্য বিছানা গোছাতে গিয়েই যদি কেউ ক্লান্তি অনুভব করেন তবে তার অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।


অনিদ্রা


ঘুমাতে না পারাও হার্ট অ্যাটাকের উপসর্গ। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’য়ের ওই জরিপ মতে, প্রায় ৪৮ শতাংশ অংশগ্রহণকারি জানিয়েছেন হার্ট অ্যাটাকের এক মাস আগ থেকেই রাতে ঘুমাতে তাদের সমস্যা হতো। ডা. লেজলি চো বলেন, অতিরিক্ত ক্লান্তি, যার কোনো উপযুক্ত কারণ নেই, আবার ঘুমাতেও সমস্যা হচ্ছে, তবে বুঝে নিতে হবে হার্ট অ্যাটাক বেশি দূরে নয়।


বুকে ব্যথা


হার্ট অ্যাটাক মানেই যেন বুকব্যথা। তবে জরিপ বলছে এই উপসর্গটি নাকি সবচাইতে কম অনুভব করেছেন অংশগ্রহণকারীরা। মাত্র ৩১ শতাংশ। অপরদিকে ৪৩ শতাংশ বলেছেন তারা কোনো বুকে ব্যথা টের পাননি।


‘ইউনিভার্সিটি অফ আরকানসাস ফর মেডিকেল সায়েন্সেস’য়ের অধ্যাপক জিন সি. ম্যাকসুয়েনি বলেন, পুরুষের তুলনায় নারীর মাঝে উল্লেখযোগ্য মাত্রায় বুকে ব্যথা দেখা না দেয়ায় অনেকে হার্ট অ্যাটাক চিহ্নিত করতে পারেন না। একই কারণে রোগ নির্ণয়েও ভুল হয় এবং সঠিক চিকিৎসা ছাড়াই রোগীকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে ছাড় দেয়া হয়। কারণ অনেক চিকিৎসকও ধারণা করেন বুকে ব্যথাই হার্ট অ্যাটাকের প্রধান লক্ষণ।


দম আটকে আসা


হার্ট অ্যাটাকের সবচাইতে বেশি চোখে পড়া লক্ষণ দম আটকে আসা বা ‘শর্টনেস অফ ব্রেথ’, যা বিশেষত নারীদের ক্ষেত্রে বেশি হয়। জরিপে ৫৮ শতাংশ নারী এই উপসর্গ অনুভব করেছেন বলে জানান অধ্যাপক জিন সি।


প্রাণঘাতি হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলো সামান্য বুক জ্বালাপোড়া ভেবে উড়িয়ে দেয়ার প্রবণতা নারীদের মধ্যে বেশি। তাই বুকে ব্যথা থাক আর না থাক, দম আটকে আসার অনুভুতি হলেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।


বিবার্তা/অনামিকা/ইমরান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com