ধানমন্ডি লেকে পলকের চমক!
প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:০৪
ধানমন্ডি লেকে পলকের চমক!
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা। হঠাৎ রাজধানীর ধানমন্ডি লেকের ৮ নম্বর ব্রিজের পাশে গাড়ি থেকে নামলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। তিনি একা নন, সঙ্গে ছিলেন তার জীবন সঙ্গী আরিফা জেসমিন কনিকাও। গাড়ি থেকে নেমেই ওই দম্পতি সরাসরি চলে গেলেন লেকের আট নম্বর ব্রিজের উপর। সেখানে গিয়ে একান্তে কিছু সময় কাটালেন। প্রতিমন্ত্রীর এমন সাধারণ চলাফেরা দেখে ধানমন্ডি লেকে আসা লোকজন চমকে যান।


জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ধানমন্ডির লেকের রবীন্দ্র সরোবরে চারদিন ব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে গৌরব ৭১। শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় ওই আয়োজনের উদ্বোধন করা কথা। কিন্তু শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এমন ব্যতিক্রমী আয়োজন দেখতে উদ্বোধনের আগেই স্ত্রীকে নিয়ে রবীন্দ্র সরোবরে ছুটে আসেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। তবে অনুষ্ঠান স্থলে যাওয়ার আগে স্ত্রী কনিকাকে নিয়ে তিনি লেকের ৮ নম্বর ব্রিজের ওপর পরিদর্শন করেন। এ সময় সাধারণ দর্শনার্থীদের সাথে ছবিও তুলেও তারা। এতে অনেক দর্শনার্থী নিজেকে ধন্য মনে করেছেন। এছাড়াও প্রতিমন্ত্রীর এমন দৃশ্য দেখে অনেকেই চমকে গেছেন।


এক পর্যায়ে ১০টা ৫০ মিনিটের সময় জুনায়েদ আহমেদ পলক ও তার সহধর্মীনি আরিফা জেসমিন কনিকা রবীন্দ্র সরোবরে অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ করেন। এ সময় অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত গৌরব ৭১ এর সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীন ও দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল বিবার্তা২৪ ডটনেটের সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি তাদের স্বাগত জানান। হঠাৎ করে প্রতিমন্ত্রী ও তার স্ত্রীর উপস্থিতে আয়োজকরাও চমকে উঠেন। সবাইকে চমকে রবীন্দ্র সরোবরের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ঘুরে দেখেন তারা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে ৭৪টি ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছিল রবীন্দ্র সরোবর। ছবিগুলো দেখে মুগ্ধ হলেন পলক ও তার স্ত্রী। পরে আয়োজকদের অনুরোধে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় যোগ দেন তারা। এ সময় ছবিগুলো ডিজিটাল প্লাটফর্মে সংরক্ষণ করার ঘোষণাও দেন দেশের জনপ্রিয় ওই প্রতিমন্ত্রী।


বক্তব্যপ্রদানকালে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে পলক বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে স্থিরচিত্র প্রদর্শনী হবে; এমন খবর পেয়ে আমি এখানে হাজির হয়েছি। আমি মূলত এই অনুষ্ঠানে এসেছি, অনুপ্রাণীত হওয়ার জন্য এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এই না বলার ইতিহাসগুলো তুলে ধরার জন্যে।



তিনি বলেন, ২৮ সেপ্টেম্বর এই অনুষ্ঠান শেষ হয়ে গেলেও যাতে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য এই স্থিরচিত্রগুলো যেভাবে রেখে দেয়া যায়, সেটার ব্যাপারে আয়োজকদের সাথে কথা বলেছি। এই স্থিরটিত্রগুলো ডিজিটাল প্লার্টফর্মের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সংরক্ষণে রাখা হবে। এতে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম প্রধানমন্ত্রীর শৈশব, রাজনৈতিক, পারিবারিক, আন্তর্জাতিক অঙ্গনের ইহিতাসগুলো জানতে পারবে। এমনকি তা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে অনুপ্রেরণা যোগাবে বলে মনে করেন তিনি।


তিনি বলেন, স্থান সংকুলনের কারণে এখানে অনেক ছবি প্রদর্শন করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু ডিজিটাল প্লার্টফর্মে তো স্থান সংকুলনের কোনো সমস্যা হবে না। তাই সকলের সহযোগিতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওই ছবিগুলো জিডিটাল প্লাটফর্মে নিয়ে যেতে চাই।


সবাইকে আশ্বাস দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর রবীন্দ্র সরোবরের আলোকচিত্র প্রদর্শনী শেষ হবে। আর ওই দিন নতুন ডিজিটাল স্থিরচিত্র পদর্শনীর উদ্বোধন হবে।


অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রীর সহধর্মীনি আরিফা জেসমিন কনিকা বলেন, এখানে যেসব ছবি প্রদর্শন করা হয়েছে; এর মধ্যে অনেক ছবি আমি আগে কখনো দেখিনি। ছবিগুলো দেখে আমি মুগ্ধ। ছবিগুলো থেকে অনেক কিছু শেখা রয়েছে।


এদিকে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক ও আরিফা জেসমিন কনিকার এমন আচরণে আগত দর্শনার্থীরা মুগ্ধ হয়েছেন।


রবিন্দ্র সরোবরে আসা মাহফুজ রহমান নামের এক দর্শনাথী বিবার্তাকে বলেন, মাননীয় প্রতিমন্ত্রী সহজে সাধারণ মানুষের সাথে মিশতে পারেন। বিষয়টি আগে থেকেই জানতাম। কিন্তু কখনো সরাসরি এমন দৃশ্য দেখি নাই। আজ সরাসরি প্রতিমন্ত্রীর এমন দৃশ্য দেখে মুগ্ধ হয়েছি।


আলোচিত্র প্রদর্শনী দেখতে আসা আতিক নামের আরেক দর্শনাথী বিবার্তাকে বলেন, স্থিরচিত্রগুলো ডিজিটাল প্লাটফর্মে রাখা হলে তরুণ প্রজন্ম অনেক কিছু শিখতে পারবে। যে কোনো সময় যে কেউ ছবিগুলো দেখতে পারবে। প্রতিমন্ত্রীর এমন উদ্যোগের সাধুবাদ জানাই।



উল্লেখ্য, ‘প্রজন্মের প্রার্থনা, শতায়ু হোক শেখ হাসিনা’ স্লোগানে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথি ছিলেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এমরান কবির চৌধুরী, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান-প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর, সাবেক এমপি সেলিনা জাহান লিটা, দৈনিক সময়ের আলো'র নির্বাহী সম্পাদক শাহনেওয়াজ দুলাল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন ও ঢাকা কর অঞ্চলের কর কমিশনার আসাদুজ্জামান।


রাজধানীর ধনমন্ডি লেকের রবীন্দ্র সরোবরে এ আয়োজনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন ছোট্ট শোনামনি আরিয়াহ তাজিম প্রাপ্তি। ব্যতিক্রমি ওই উদ্বোধনের জন্য আমন্ত্রিত অতিথিরা করতালির মাধ্যমে স্বাগত জানান তাকে।


‘প্রজন্মের প্রার্থনা, শতায়ু হোক শেখ হাসিনা’ স্লোগানে আলোকচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠানটি জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে শুরু হয়। গৌরব'৭১ এর সভাপতি এসএম মনিরুল ইসলাম মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীন।


বিবার্তা/খলিল/জাই

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com