শত বছর মেয়াদী ব-দ্বীপ পরিকল্পনা অনুমোদন
প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:০৩
শত বছর মেয়াদী ব-দ্বীপ পরিকল্পনা অনুমোদন
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, নদী, পানিসম্পদ ও ব-দ্বীপ ব্যবস্থাপনায় শতবছরের ব-দ্বীপ পরিকল্পনা অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (এনইসি)।


পরিকল্পনাটি তৈরি করেছে পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনৈতিক বিভাগ (জেইডি)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে নেদারল্যান্ডসের সহযোগিতায় এ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে।


রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে মঙ্গলবার এনইসি সম্মেলন কক্ষের সভায় এটি অনুমোদন দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন এনইসির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি এ উদ্যোগকে ঐতিহাসিক বলে আখ্যায়িত করেন।


পরিকল্পনার আওতায় বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, খরাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক সমস্যা মোকাবেলায় নয়টি নদী, খাল ও জলাধার ব্যবস্থাপনায় পলি অপসারণসহ নদী ড্রেজিংয়ে ছয়টি, পাহাড়ি এলাকায় পাঁচটি এবং মোহনা ও উপকূলীয় এলাকায় ১২টি প্রকল্প, কম দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় ১৫টি প্রকল্পসহ বিরাজমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনায় প্রাথমিকভাবে ৮০টি প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে।


সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর সঙ্গে সমন্বয়ে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বিরাজমান উপ-পর্যায়ের কমিটি পরিকল্পনা বাস্তবায়নে অর্থায়ন ও অগ্রগতি পর্যালোচনা করবে। ৮০টি প্রকল্পের জন্য দশ বছরের বাজেট ধরা হয়েছে ৩৭ বিলিয়ন ডলার।


সব নদী দখলমুক্ত করে, আধুনিক ড্রেনেজ সিস্টেম, সেচ চ্যানেল, নাব্যতা বাড়িয়ে নৌপথ বাড়ানোর দিক নির্দেশনাসহ আধুনিক ব-দ্বীপ ব্যবস্থাপনার মাস্টার প্ল্যান হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে ডেল্টা প্ল্যানকে।


এ পরিকল্পনা নিয়ে রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও গণভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ এর মাধ্যমে ১০০ বছরে বাংলাদেশ কোন পর্যায়ে যাবে সেই পরিকল্পনা চলছে।


শেখ হাসিনা বলেন, ব-দ্বীপকে জলবায়ু পরিবর্তনসহ অন্যান্য অভিঘাত থেকে বাঁচাতে এ প্ল্যান। দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতেই ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ বাস্তবায়ন হাতে নেয়া হচ্ছে। ব-দ্বীপ পরিকল্পনায় বন্যা, নদীভাঙন, নদীশাসন, নদী ব্যবস্থাপনা, নগর ও গ্রামে পানি সরবরাহ এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, নগর বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থাপনায় দীর্ঘমেয়াদি কৌশল নির্ধারণ করা হয়েছে।



পরিকল্পনায় বলা হয়েছে, নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং বিদ্যমান অবকাঠামো উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে ব-দ্বীপ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রতিবছর জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) প্রায় আড়াই শতাংশ অর্থের প্রয়োজন হবে।


২০৩১ সাল নাগাদ প্রতি বছর ২৯ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের প্রয়োজন হবে। নেদারল্যান্ডসের ডেল্টা ব্যবস্থাপনার অভিজ্ঞতার আলোকে বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০ প্রণয়ন করা হয়েছে।


পরিকল্পনার ধারণা অনুযায়ী, দেশজ আয়ের মোট চাহিদার আড়াই শতাংশের মধ্যে শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ অর্থায়ন বেসরকারি খাত থেকে এবং ২ শতাংশ সরকারি খাত থেকে জোগান দিতে হবে।


জিইডি সূত্রে জানা যায়, ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০ এর প্রাথমিক ধাপ বাস্তবায়ন হবে ২০৩০ সাল নাগাদ।


বৈঠকে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান ও জেইডির সদস্য সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম উপস্থিত ছিলেন।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com