মৃত সন্তান নিয়ে অপেক্ষায় কাশ্মীরি বাবা
প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩৪
মৃত সন্তান নিয়ে অপেক্ষায় কাশ্মীরি বাবা
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

‘আমাদের সব স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল। সবই ঈশ্বরের ইচ্ছা। তবে এমনটা হবে ভাবিনি।’


হাসপাতালের মেঝেতে শুকনো মুখে বসে কথাগুলো বলেন বিলাল মাণ্ডু। ডান হাতে আঁকড়ে রেখেছেন ছোট্ট একটি বাক্স।


বাক্সের গায়ে সস্নেহে হাত বুলিয়ে বিড়বিড় করে উঠলেন কাশ্মীরি যুবক। জানান, এখানেই রয়েছে আদরের সন্তানের মৃতদেহ।


চারদিন আগে শ্রীনগরের লাল দেদ হাসপাতালে মৃত সন্তান প্রসব করেন তার স্ত্রী। কারফিউ থাকায় কাশ্মীরে সেই দুঃসংবাদ পৌঁছেনি বিলালের বাড়িতে। যেখানে প্রথম নাতি-নাতনির মুখ দেখতে অধীর আগ্রহে বসে আছেন বৃদ্ধ দাদা-দাদি।


গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা লোপ এবং রাজ্যকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরে থেকে উপত্যকার বিভিন্ন জয়গায় দফায় দফায় চলছে কারফিউ। মোবাইল, ল্যান্ড ফোন, ইন্টারনেটসহ যোগাযোগের সব মাধ্যম বন্ধ রাখা হয়েছে।


এ অবস্থায় ৮ আগস্ট শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় বিলালের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী রাজিয়ার। স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি থেকে ১৭ কিলোমিটার দূরে কুপওয়ারার একটি হাসপাতালে যান বিলাল। অর্ধেকের বেশি রাস্তাই হেঁটে যেতে হয়েছে। সেখান থেকে রাজিয়াকে শ্রীনগরে নেয়া হয়।


সন্তানহারা বিলাল বলেন, ‘এখানে আসতেই অনেক দেরি হয়ে যায়। ততক্ষণে সব শেষ।’ সন্তানের মরদেহ নিয়ে এবার বাড়ি ফিরতে চান বিলাল।


তিনি বলেন, ‘বাবা-মা সদ্যোজাত নাতিকে স্বাগত জানাতে অপেক্ষা করছেন। ওদের হাতে এই মৃতদেহ তুলে দেব কীভাবে? হাউহাউ করে কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, হাসপাতাল থেকে একমাত্র অ্যাম্বুল্যান্স ছাড়া বাড়ি ফেরার উপায় নেই। তাও পাওয়ার জন্য রীতিমতো লড়াই করছি।


বিবার্তা/রবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com