৬ মাসে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড যুক্তরাষ্ট্রে
প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১০:১১
৬ মাসে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড যুক্তরাষ্ট্রে
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর গতি বাড়ছেই। দেশটিতে নতুন করে একদিনে প্রায় আড়াই হাজার মানুষের প্রাণ কেড়েছে করোনা। জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৪৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা গত ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।


ওই পরিসংখ্যান বলছে, দেশটিতে একদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ২ লাখ মানুষ। অপরদিকে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২ লাখ ৬২ হাজার ৮০।


এদিকে, ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩১ লাখ ৩৭ হাজার ৯৬২। এর মধ্যে মারা গেছে ২ লাখ ৬৮ হাজার ২১৯ জন।


ওই পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশটিতে এর মধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে ৭৮ লাখ ৫ হাজার ২৮০ জন। দেশটিতে বর্তমানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ৫০ লাখ ৬৪ হাজার ৪৬৩। এছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে ২৪ হাজার ১৫০ জন।


বৃহস্পতিবার দেশটিতে থ্যাংকসগিভিং উৎসব উপলক্ষে লোকজন পরিবার ও বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে মিলিত হচ্ছে। ছুটির দিনে বেশিরভাগ মানুষই ঘর থেকে বের হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক মাধ্যমের বিভিন্ন ছবিতে দেখা গেছে, বিমানবন্দরগুলোতে লোক সমাগম বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনা ঝুঁকি নিয়ে যেসব সতর্কতা জারি করা হচ্ছে লোকজন সেগুলোকে গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছে না।


এদিকে, বেশ কিছু ভ্যাকসিন ইতোমধ্যেই প্রায় ৯৫ শতাংশ কার্যকারিতার প্রমাণ দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে ভ্যাকসিনের অগ্রগতি নিয়ে ভাষণ দেবেন জো বাইডেন।


তিনি থ্যাংকসগিভিং উৎসবকে কেন্দ্র করে টেলিভিশনে ভাষণ দিয়েছেন। লোকজনকে এই উৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আপনারা আবারও আগের মতো জীবন-যাপনে ফিরে যেতে পারবেন। জীবন-যাত্রা আবারও আগের গতিতে ফিরে যাবে। এই সমস্যা দীর্ঘস্থায়ী হবে না।


সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন প্রোগ্রামের প্রধান ডা. মোনসেফ স্লাউয়ি জানিয়েছেন, আগামী ১১ ডিসেম্বরের মধ্যেই প্রথম ধাপে আমেরিকানরা ভ্যাকসিন পেতে পারেন। তিনি জানিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব ভ্যাকসিন সহজলভ্য করার চেষ্টা চলছে।


গত শুক্রবার জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেতে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছে মার্কিন ফাইজার ও জার্মান জৈবপ্রযুক্তি কোম্পানি বায়োএনটেক। এর আগে যৌথভাবে তৈরি করোনার এই ভ্যাকসিন ‘৯৫ শতাংশ কার্যকর’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।


চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে প্রাথমিকভাবে পাওয়া ফলাফলে দেখা গেছে, ফাইজার ও বায়োএনটেকের তৈরি সম্ভাব্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে ৯৫ শতাংশ কার্যকর। চলতি বছরের শেষ দিকেই ৫ কোটি ভ্যাকসিন তৈরির আশা প্রকাশ করেছে ফাইজার।


সম্প্রতি মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মডার্নাও জানিয়েছে যে, তাদের তৈরি ভ্যাকসিন প্রায় ৯৫ শতাংশ কার্যকর। আগামী কয়েক সপ্তাহর মধ্যেই ভ্যাকসিনের অনুমোদন পাওয়া যাবে বলে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে আশা প্রকাশ করা হয়েছে।


বিবার্তা/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com