কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক হলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী
প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:২৬
কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক হলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বহু বছরের জল্পনার অবসান। অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসে যোগদান করলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢ়রা।


বুধবার প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করে প্রিয়াঙ্কাকে এআইসিসি সাধারণ সম্পাদক পদে নিয়োগ করেছেন দলের সভাপতি রাহুল গান্ধী। তাকে উত্তরপ্রদেশের পূর্বাঞ্চলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে এ দিনই পশ্চিমাঞ্চলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে।


কংগ্রেস সভাপতি রাহুলের মন্তব্য, প্রিয়াঙ্কা-জ্যোতিরাদিত্যর উপর আস্থা রাখুন, ওরা ভাল ফল করে দেখাবে।


এতদিন প্রিয়াঙ্কা যেন কংগ্রেসে থেকেও ছিলেন না। তার গণ্ডি ছিল মূলত সোনিয়া-রাহুলের আসন রায়বরেলী ও অমেথী। লোকসভা ভোটের প্রচারসভায় তাকে মাঝে মধ্যে দেখা যেত। তার বাইরে কংগ্রেসের কার্যক্রমে তার উপস্থিতি ছিল হাতেগোনা। কিন্তু বহু বছর ধরে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা ছিল, কবে সক্রিয় রাজনীতিতে আসবেন প্রিয়াঙ্কা।


প্রিয়ঙ্কা রাজি নন, কিংবা দলের তরফে তাকে সেভাবে প্রস্তাব দেয়া হয়নি, ইত্যাদি নানা মতামত ভেসে বেড়াত রাজনৈতিক মহলে। অবশেষে সেই জল্পনায় ইতি টানলেন রাহুল। লোকসভা ভোটের আগে মোক্ষম সময়ে প্রিয়াঙ্কাকে এআইসিসি সাধারণ সম্পাদক পদে নিয়ে এলেন।


মোক্ষম সময় কারণ, নানা ইস্যুতে প্রশ্নের মুখে প্রধানমন্ত্রী নরন্দ্রে মোদি সরকার। দেশ জুড়ে কার্যত মোদিবিরোধী হাওয়া। বিজেপিবিরোধী মহাজোট গঠনের প্রস্ততিও চলছে জোরকদমে। এই পরিস্থিতিতে প্রিয়াঙ্কা সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় সাধারণ মানুষের কাছে কংগ্রেসের গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক শিবির।


পর্যবেক্ষকদের একটা বড় অংশ মনে করেন, সব রাজ্যে কংগ্রেসের সব স্তরের নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে আমজনতার মধ্যে প্রিয়াঙ্কার গ্রহণযোগ্যতা তার দাদি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর মতোই। পরীক্ষিত না হলেও প্রিয়াঙ্কার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতার উপরও অনেকেই আস্থা রাখেন। এই সব কারণেই তাকে কংগ্রেসের ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ হিসেবেও অনেকে উল্লেখ করেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ।


এবার লোকসভা ভোটের ঠিক আগে আগে আস্তিন থেকে সেই তুরুপের তাস বের করলেন রাহুল।


২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে উত্তরপ্রদেশে বিজেপির বিপুল সাফল্যই কার্যত মোদির জন্য দিল্লির সিংহাসনের রাস্তা খুলে দিয়েছিল। এবার সেখানে বিপরীত স্রোত। বিজেপিকে হারাতে জোট বেঁধে ফেলেছেন মায়াবতী-অখিলেশ। কংগ্রেসও ৮০টি আসনেই প্রার্থী দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে। ফলে এবারের ভোটে কংগ্রেসের কাছেও বড় চ্যালেঞ্জ উত্তরপ্রদেশ।


একদিকে বিজেপি এবং অন্যদিকে বিএসপি-এসপি জোটকে মোকাবেলা করতে নিয়ে এলেন ৪৭ বছরের প্রিোঙ্কাকে। সঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে মধ্যপ্রদেশের তরুণ নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে।


রাহুল এদিন বলেন, এবার ব্যাকফুটে নয়, সরাসরি মাঠে নেমে গরিব, কৃষক, মজুরদের জন্য লড়াই করবেন প্রিয়াঙ্কা-জ্যোতিরাদিত্য। দু’জনের উপর আস্থা রাখুন, ওরা ভাল ফল করে দেখাবেন।


অন্যদিকে ঘোষণার পরই সারা দেশ থেকে কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছা বার্তায় ভাসছেন প্রিয়াঙ্কা। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com