পায়ের তালুতে জ্বালাভাব, কমিয়ে ফেলতে মাথায় রাখুন এই টিপসগুলো
প্রকাশ : ০৯ জুন ২০২১, ২০:১৫
পায়ের তালুতে জ্বালাভাব, কমিয়ে ফেলতে মাথায় রাখুন এই টিপসগুলো
অনামিকা রায়
প্রিন্ট অ-অ+

অনেকেরই পায়ের তলায় জ্বালা অনুভুত হয়ে থাকে। তাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তা বেজায় কষ্টদায়ক হয়ে ওঠে। যার ফলে ঘুম কম হওয়া, শরীরে অস্বস্তি বোধও হয়ে থাকে। তবে পায়ে এ জাতীয় জ্বালা রোগের লক্ষণ হতে পারে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিশ্বে এটি বার্নিং ফিট সিনড্রোম হিসাবে পরিচিত। পায়ে এই জ্বলন্ত সংবেদনটি রাতে আরও বেদনাদায়ক হয়ে ওঠে।


কখনও কখনও পায়ের পিছনে, গোড়ালি এবং পায়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘটতে শুরু করে। ডায়াবিটিস এই সমস্যার মূল বলে মনে করা হয়। এই ব্যথা হালকা এবং মারাত্মক হতে পারে। তার আগে জানুন কেন হয় এই সমস্যা। অতিরিক্ত রিচ খাবার খেলে, শরীর কষে গেলে, জল কম খেলে বা কড়া ওষুধ খেলে এই সমস্যা হতে পারে। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে, যারা এই সমস্যায় ভুগছেন তারা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি সমাধানের উপায় সন্ধান করেন।


অ্যাপল সিডার ভিনিগার


অ্যাপল সিডার ভিনিগার হলো এরকম একটি প্রতিকার। অ্যাপল সিডার ভিনেগার জ্বলন্ত পায়ের সিনড্রোম থেকে মুক্তি দেয়। তবে কয়েক শতাব্দী ধরে পায়ের সাথে সম্পর্কিত সমস্যা দূর করতে আপেল ভিনেগার ব্যবহার করা হচ্ছে। পায়ের সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেতে লোকেরা প্রায়শই পা ধুয়ে এই ভিনিগার প্রয়োগ করলে ভালো ফল দেয়।


ঠাণ্ডা জল দিন


পা জ্বালা অনুভুত হলে তাতে ঠাণ্ডা জল দিন, বা কোনও কাপড় ভিজিয়ে হাতে জড়িয়ে রাখুন। এতে স্বস্তি মিলবে। রাতে এই প্রতিকারটি করলে বেশি উপকার পাবেন। কারণ এই জ্বলন এবং ব্যথা রাত্রেই বাড়তে শুরু করে। এই পরিস্থিতিতে যদি কোনও ব্যক্তি ঘুমের আগে কিছুক্ষণ ঠান্ডা জলে এপসোম লবন রাখেন এবং পা জলে কিছুক্ষণ রাখেন, তবে ব্যথা এবং জ্বলন হ্রাস হতে পারে। এগুলি ছাড়াও আপনার গরম জল এবং কোনও ধরণের ক্রিম প্রয়োগ করা এড়ানো উচিত। চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করার পরেই ক্রিম বা অন্যান্য পণ্য ব্যবহার করুন।


মাছের তেল


ফিশ অয়েল অনেক কিছুর জন্য ব্যবহৃত হয়। এর ব্যবহার স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। সাম্প্রতিক এক গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে যে যদি মাছের তেল ব্যবহার করা হয় তবে এটি ব্যথা কমাতে পারে।


হলুদ


হলুদ এমন একটি মশলা বা ওষুধ যা প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই পাওয়া যায়। এটি কয়েক শতাব্দী ধরে রান্না এবং ক্ষত নিরাময়ে ব্যবহৃত হচ্ছে। একই সঙ্গে এটি বার্নিং ফিট সিনড্রোম থেকেও স্বস্তি দিতে পারে। এর জন্য আপনাকে কেবল একটি ছোট কাজ করতে হবে, আপনাকে নারকেল তেলের ভিতরে হলুদ মিশিয়ে নিতে হবে এবং এর পেস্টটি পায়ে লাগাতে হবে। এর মাধ্যমে আপনার ব্যথা হবে এবং পায়ের জ্বালা থেকে মুক্তি পাবেন।


ম্যাসাজ করলে মিলবে আরাম


শুধু আজ নয়, বহু শতাব্দী ধরে, বহু ব্যথা এবং সমস্যাগুলি ম্যাসেজের মাধ্যমে সমাধান করা হয়। এটি বিশ্বাস করা হয় যে শরীরের যে কোনও অংশে ম্যাসেজ করলে রক্ত সঞ্চালনের উন্নতি ঘটে। অন্যদিকে, যদি আপনার পায়ের মধ্যে জ্বলন্ত সংবেদন থাকে তবে আপনার জন্য পায়ের ম্যাসাজও একটি ভাল বিকল্প হতে পারে।


বিবার্তা/অনামিকা/জাই


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com