নির্বাচনী আচরণবিধি রক্ষায় চট্টগ্রামে ২৭ ম্যাজিস্ট্রেট
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ২০:৫১
নির্বাচনী আচরণবিধি রক্ষায় চট্টগ্রামে ২৭ ম্যাজিস্ট্রেট
চট্টগ্রাম ব্যুরো
প্রিন্ট অ-অ+

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন ঠেকাতে চট্টগ্রামে কাজ করছেন ২৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। বুধবার থেকে তারা মাঠে নেমেছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন।


জেলা প্রশাসক জানান, ‘চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে এই ২৭ জন ম্যাজিস্ট্রেট আচরণবিধি লঙ্ঘন ঠেকাতে কাজ করবেন। এদের মধ্যে ১৩ জন চট্টগ্রাম নগরীতে দায়িত্ব পালন করবেন। অন্যরা নগরীর বাইরে উপজেলা পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করবেন।’


নগরীতে দায়িত্ব পালন করবেন ফারহানা জাহান উপমা, ফোরকান এলাহি অনুপম, তাহমিলুর রহমান, সাবরিনা আফরিন মুস্তফা, এস এম শান্তুনু চৌধুরী, শারমিন আখতার, মাহফুজা জেরিন, রমিজ আলম, মারুফা বেগম নেলী, শান্তা রহমান, উজালা রানী চাকমা, তাহমিনা আক্তার এবং মাসুদ রানা।


এছাড়া উপজেলা পর্যায়ে যেসব ম্যজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন তারা হলেন- রাউজানে জোনায়েদ কবীর সোহাগ, মীরসরাইয়ে মো. কায়সার খসরু, পটিয়ায় সাব্বির রাহমান সানি, ফটিকছড়িতে মো. জানে আলম, আনোয়ারায় সাইদুজ্জামান চৌধুরী, বোয়ালখালীতে একরামুল ছিদ্দিক, রাগুনিয়ায় প‚র্বিতা চাকমা, চন্দনাইশে নিজাম উদ্দিন আহমেদ, লোহাগাড়ায় পদ্মাসন সিংহ, হাটহাজারীতে সম্রাট খীসা, বাঁশখালীতে সুজন চন্দ্র রায়, সাতকানিয়ায় রঞ্জন চন্দ্র দে, কর্ণফুলীতে আশরাফুল আলম এবং সন্দ্বীপে জিল্লুর রহমান।


রিটার্নিং অফিসার বলেন, ‘গত ১২ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন থেকে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের জন্য নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। ওই নির্দেশনার আলোকে ২৭ জন ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন ঠেকাতে বুধবার তারা মাঠে কাজ করছেন।'


নির্বাচনী প্রচারণামূলক সামগ্রী অপসারণে আর্থিক বাজেটের প্রয়োজন আছে উল্লেখ করে মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেন, 'আমরা ওই খাতে কোনও বরাদ্দ পাইনি। তাই সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজ উদ্যোগে তাদের প্রচারণা সামগ্রী সরিয়ে নিতে হবে। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এখনও প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি। চ‚ড়ান্ত হওয়ার পর কোনও প্রার্থী নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘন করলে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’


জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, 'কোনও প্রার্থী নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করলে তাকে সর্বোচ্চ ৬ মাসের সাজা ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দণ্ডিত করার বিধান রয়েছে। রাজনৈতিক দল লঙ্ঘন করলে তাদেরও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান আছে।’


‌উল্লেখ্য, গত ১২ নভেম্বর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৩০০ আসনে নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন করার জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশনা দেয় নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশন থেকে এ নির্দেশনা পাওয়ার পর ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত করে জেলা প্রশাসন।


বিবার্তা/জাহেদ/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com