নলছিটিতে ঢাকের তালে জমে উঠেছে দুর্গোৎসব
প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২০:৩০
নলছিটিতে ঢাকের তালে জমে উঠেছে দুর্গোৎসব
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ক্ষণে ক্ষণে উলুধ্বনি, শঙ্খ কাঁসা আর ঢাকের বাদ্যর সঙ্গে সঙ্গে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য আর উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে ঝালকাঠির নলছিটিতে জমে উঠেছে সনাতন ধর্মালম্বীদের শারদীয় দুর্গা পূজা। অস্টমীতে হয়ে গেল নানা আনুষ্ঠানিকতা। সকালে ত্রিনয়নী দেবী দুর্গার চক্ষুদান করা হয়। দেবীকে আসন, বস্ত্র, নৈবেদ্য, স্নানীয়, পুষ্পমাল্য, চন্দন, ধুপ ও দীপ দিয়ে পূজা করবে ভক্তরা।


সপ্তমী পূজা উপলক্ষে সন্ধ্যায় হবে বিভিন্ন পূজামন্ডপে ভক্তিমূলক সঙ্গীত, রামায়ণ পালা, আরতিসহ নানা অনুষ্ঠান। এবার উপজেলার ২২টি মন্ডপে দুর্গাপূজা উৎসব আয়োজন করা হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের এ মহা উৎসবকে ঘিরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।


এ দুর্গা পূজাকে ঘিরে উপজেলার পুজা মন্ডপগুলোতে করা হয়েছে জমকালো চোখ ধাঁধানো আয়োজন। ব্যবস্থা করা হয়েছে আধুনিক লাইটিং ও সাউন্ড সিস্টেম। গত কয়েক মাস ধরে প্রতিমা শিল্পীদের রাত-দিন পরিশ্রম করে তৈরি করেছেন দুর্গাপূজার প্রতিমা। এসব প্রতিমায় ফুটিয়ে তুলেছেন সত্য, ত্রেতা, দ্বাপর ও কলি যুগের কাহিনী।


ধর্মীয় গুরুরা জানিয়েছেন, এবার দেবী দুর্গা ঘোড়ায় চড়ে এসেছেন আর যাবেন দোলায়। এসব পূজা মন্ডপ দেখতে এরই মধ্যে ভিড় করছে ভক্ত ও দর্শনার্থীরা।


উপজেলা সদরের শ্রী শ্রী তারা মন্দির পুজা মন্ডপে দর্শনার্থী রাজীব কুমার মালো বলেন, প্রতিবছর তারা বাড়িতে পূজার সময় দেখতে আসি। মন্দিরের প্রতিমা সাজসজ্জা দেখে আমি মুগ্ধ।


সঞ্জয় দাস নামে আরেক দর্শনার্থী বলেন, মন্ডপে ঘুরে প্রতিমা দেখে অভিভূত হয়েছি।


নলছিটি উপেজলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বাবু জর্নাধন দাস বলেন, গত কয়েক মাস ধরে প্রতিমা শিল্পীরা রাত-দিন কাজ করে দুর্গাদেবীসহ অন্যান প্রতিমা তৈরি করেছে। এখানে সত্য, ত্রেতা, দ্বাপর ও কলি এ চার যুগের কাহিনী তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। তাছাড়া সমসাময়িক কিছু বিষয়ও ওঠে এসেছে প্রতিমায়।


দর্শক আকৃষ্ট করতে মন্ডপ গুলোর আশ পাশে এলাকা দৃষ্টিনন্দন আলোকসজ্জা করা হয়েছে। আশা করছি গত বছরের থেকে এবছর দর্শনার্থীরা বেশি আনন্দ উপভোগ করবেন। সব ধর্মের মানুষ এই দুর্গোৎসবে মিলিত হবে। আশা করছি এসব পূজা মন্ডপে ভক্তরা ও দর্শনার্থীরা আসবেন। ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে অংশ নিবেন।


নলছিটি হরিসভা মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক পলাশ সজ্জন বলেন, উৎসবে সকল ধর্মের মানুষ সামিল হয়েছে। প্রতিদিন আমাদের মন্ডপে ভক্তরা আসছেন। মন্ডপের প্রতিমা ও আলোক সজ্জায় এ বছর নতুনত্ব আনা হয়েছে।


আয়োজকদের পক্ষে নলছিটি উপজেলা হিন্দু বৈদ্য খিস্টান ঐক্য পরিষদের দপ্তর সম্পাদক রাকেশ রায় শুভ বলেন, আগত দর্শকদের নিরাপত্তার জন্য আইন-শৃঙ্খলার পাশাপাশি শতাধিক নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত থাকবে। মন্ডপের আশপাশের অনেক জায়গা জুড়ে লাইটিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাতে রাতে দর্শনার্থীদের কোনো সমস্যা না হয়।


নলছিটি থানার ওসি মো. শাখওয়াত হোসেন বলেন, আমরা প্রতিটি পুজা মন্দিরে সব ধরণের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিটি দূর্গা মন্ডপে ইতোমধ্যে আনসার ভিডিপি, পুলিশের মোবাইল টিম, গোয়েন্দা নজরদারি রাখা হয়েছে।


বিবার্তা/আমিনুল/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com