সাভারে গরু মোটাতাজাকরণে ব্যস্ত খামারিরা
প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১০:২৩
সাভারে গরু মোটাতাজাকরণে ব্যস্ত খামারিরা
সাভার প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজাকরণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন সাভার ও আশুলিয়ার খামারি ও কৃষকেরা। দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজা করণ করায় এই অঞ্চলের গরুর চাহিদা হাটে বেড়েছে। হাটে ভালো দাম পেতে প্রস্তুত করা হচ্ছে বিভিন্ন জাতের গরু।


নিরাপদ গো-মাংস উৎপাদনের জন্য মোটাতাজা করছেন খামারিরা। আর এ কাজে তাদের পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করছেন জেলার সরকারি কর্মকর্তারা। এছাড়া সাভার ও আশুলিয়ার গরুর খামার থেকেই কোরবানি দেয়ার জন্য ক্রেতারা গরু আগেই কিনে নিয়ে যাচ্ছে। ক্রেতারা জানিয়েছে হাটে অনেক সময় চলে যায় গরু কিনতে তাই তারা খামার থেকেই গরু কিনে নিয়ে যাচ্ছে।


সাভার উপজেলার আশুলিয়ার সেনওয়ালিয়া এলাকায় আহমেদ ডেইরি ফার্ম নামের একটি গরুর ফার্ম গড়ে উঠেছে। এখানে সম্পূর্ণ দেশীয়ভাবে গরু মোটা তাজা করণ করা হচ্ছে। দেশীয় পদ্ধতিতে মোটাতাজা করণ করায় এই অঞ্চলের গরুর চাহিদাও অনেক বেশি। এবার বাজারে দেশীয় গরুর ব্যাপক চাহিদা তৈরি হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এর ওপর যদি ভারত থেকে গরু আসা বন্ধ থাকে তাহলে দেশীয় খামারিরা লাভবান হবেন বলে আশায় বুক বেঁধে আছেন তারা।


সরেজমিনে দেখা যায় পরম যত্নে গরু গুলোর প্রতিনিয়ত দেখভাল করছেন খামারিরা। কারণ কোরবানির হাটে যে গরু দেখতে যতো আকর্ষণীয় হবে, তার দামও হবে ততো বেশি। তাই গরুর খাদ্য তালিকাটাও বেশ সমৃদ্ধ দেখা গেছে। অন্য অসাধু গরু ব্যবসায়ীদের মতো কৃত্রিম উপায়ে গরু মোটাতাজাকরণ করছেন না এখানকার খামারি ও কৃষকরা। তারা মানুষকে দেশি গরুর স্বাদ দিতে চান। এ জন্য দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজাকরণ করছেন। ক্ষতিকর ইনজেকশন ও ট্যাবলেট ব্যবহার না করে ঘাস-খড়ের পাশাপাশি খৈল, ছোলা ও ভুষি খাওয়াচ্ছেন গরুকে।


খামারিরা জানান, বাজারে দেশীয় গরুর ব্যাপক চাহিদা থাকায় বেশীর ভাগ খামারে দেখা গেছে দেশীয় গরুই বেশি। এদিকে সাভারের আশুলিয়ায় এই খামার থেকেই ক্রেতারা বাজারের ঝামেলা এড়াতে গরু আগেই কিনে নিয়ে যাচ্ছে। এই খামারে ক্রেতাদের সবসময় ভিড় লক্ষ করা যাচ্ছে। এছাড়া এই খামারে কয়েক’শ ষাঁড় গরুর পাশাপাশি দুধ দেয়ার গরুর দেখা গেছে। এখান থেকে প্রতিদিন সাড়ে ছয়’শ লিটার করে গরু দুধ দিচ্ছে গরুগুলো। তা বিক্রি করে খামারি মালিকরা লাভবান হচ্ছে। তবে, এ বছর কোরবানি ঈদে ভারত থেকে অবৈধ পথে গরু আসা বন্ধ থাকলে লাভবান হবেন বলে জানান খামারিরা।


এছাড়া ক্রেতারা জানিয়েছে ঝামেলা এড়াতে তারা খামার থেকেই আগেই কোরবানির গরু কিনে নিয়ে যাচ্ছে। খামারে একটু দাম কমে পাওয়া যায় বলে জানিয়েছে গরু কিনতে আসা ক্রেতারা।


এবিষয়ে সাভারের সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান জানান, কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে সাভার উপজেলায় ছোট-বড় কয়েক’শ খামার রয়েছে এই খামার গুলোতে সম্পূর্ণ দেশীয়ভাবে গরু মোটাতাজা করণ করা হচ্ছে।


খামারি ও কৃষকরা যাতে বিষাক্ত কোনো রাসায়নিক ব্যবহার না করে সে জন্য নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে এবিষয়ে সব খামারে খোঁজ খবর রাখার জন্য বলা হয়েছে ও গরুর হাটে যাতে কোনো দালাল অথবা চাঁদাবাজি না থাকে সে ব্যাপারে নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।


এবার কোরবানির ঈদে গরুর খামারিরা গরু বিক্রিতে ভালো দাম পাবে বলে আশাপ্রকাশ করেন সাভার ও আশুলিয়ার গরুর খামারি।


বিবার্তা/আমিনুল/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com