শেবাচিম হাসপাতালে কর্মচারীদের আমরণ অনশন
প্রকাশ : ০২ জুলাই ২০১৮, ১৮:১৩
শেবাচিম হাসপাতালে কর্মচারীদের আমরণ অনশন
বরিশাল ব্যুরো
প্রিন্ট অ-অ+

বেতন-ভাতা প্রদানের দাবিতে আমরণ অনশন পালন করছে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীরা। সোমবার টানা দ্বিতীয় দিনের মতো এ কর্মসূচি পালন করছেন তারা। এ পর্যন্ত ৫ অনশনকারী অসুস্থ হয়ে পড়ার খবর পাওয়া গেছে।


সোমবার সকাল ৮টা থেকে হাসপাতাল কম্পাউন্ডে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে তারা এ কর্মসূচি পালন করে আসছেন। সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত ২১২ কর্মচারীর এই কর্মসূচির সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে আমরণ অনশন করছেন হাসপাতালের পুরাতন কর্মচারী ও বাংলাদেশ সরকারি ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী সমিতির বরিশাল জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।


এদিকে কর্মচারীদের কর্মবিরতি ও আমরণ অনশনের জরুরী রোগী ব্যতীত সাধারণ রোগী সেবা ব্যহত হচ্ছে। পাশাপাশি আন্দোলনরত পরিছন্ন কর্মীরা কাজ না করায় হাসপাতালের সর্বত্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পরেছে।


কর্মবিরতি ও অনশন কর্মসূচি চলাকালে বক্তারা বলেন, ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর শেবাচিম হাসপাতালের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির বিভিন্ন পদে ২১২ জন কর্মচারী যোগদান করেন। ২০১৬ সালের ১৮ জানুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্মচারীদের কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ প্রদান করলে কর্মচারীরা উচ্চাদালতের রিট মামলা করে। ওই বছরের ২২ আগস্ট উচ্চাদালত কর্মচারীদের পক্ষে রায় প্রদান করলে ওই রায়ের বিরুদ্ধে সরকার সুপ্রিম কোর্টে আপীল করে এবং আদালত আপীলটি খারিজ করে দেয়।


বক্তারা বলেন, চলতি বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি ওই রায়টি বাস্তবায়নের জন্য পরিচালকে নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও অধিদফতরের ডিজি। আদেশটি পেয়ে পরিচালক ২৪ ফেব্রুয়ারি কর্মচারীদের বিভিন্ন দফতরে কার্যাদেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে পরিচালককে গত ৪ এপ্রিল যোগদানকৃত কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধের নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডিজি। কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদানের সকল প্রক্রিয়া শেষ হয়ে গেলেও অদৃশ্য ও রহস্য জনক কারণে পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন বেতন-ভাত প্রদান করছেন না।


এ ব্যাপারে পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন বলেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে কর্মচারীরা হাসপাতালের বিভিন্ন দফতরে কাজ করে আসছেন। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তাদের বেতন ভাতা প্রদান করা হয়নি। সর্বশেষ কর্মচারীদের বেতন ভাতা প্রদানের জন্য মতামত চেয়ে ফের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠির জবাব পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


বিবার্তা/আরিফ/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com