মাদকবিরোধী অভিযানে বন্দুকযুদ্ধে নিহত আরো ১১
প্রকাশ : ২৭ মে ২০১৮, ০৯:৫৭
মাদকবিরোধী অভিযানে বন্দুকযুদ্ধে নিহত আরো ১১
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সারাদেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে ১১ জেলায় আরো অন্তত ১১জন নিহত হয়েছে।


পুলিশ বলেছে, শনিবার রাত থেকে রবিবার সকালের মধ্যে সাত জেলায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের গুলিতে কক্সবাজারের টেকনাফের একজন পৌর কাউন্সিলরও রয়েছেন। এছাড়া চট্টগ্রাম, ঝিনাইদহ, চাঁদপুর, কুষ্টিয়া, ময়মনসিংহ, নোয়াখালী, মেহেরপুর ও বাগেরহাট, ঠাকুরগাঁও ও খুলনায় নিহত হয়েছে বাকি ১০জন।


নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। তাদের মধ্যে প্রায় সবার বিরুদ্ধেই থানায় মাদক আইনে একাধিক মামলাও রয়েছে।


আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযানে নামার পর গত ১৯ মে রাত থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ৭৯জন নিহত হলো।


ঠাকুরগাঁও:


ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রবিবার ভোররাতে রফিকুল ইসলাম ওরফে তালেবান (৫১)এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযানে ঠাকুরগাঁওয়ের এটি তৃতীয় বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা।


রাণীশলকৈল পুলিশ সুত্র জানায়, উপজেলার নেকমরদ ইউনিয়নের দূর্লভপুর গ্রামের মহারাজাহাটগামী রাস্তায় বিপুল পরিমাণ মাদক কেনাবেচা হচ্ছে এমন সংবাদে পুলিশের টিম সেখানে পৌঁছালে মাদক চোরাকারবারীরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে তারা পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে পুলিশ তাদের খোঁজাখুঁজি করার সময় একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পায়। তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে প্রেরণ করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।


রাণীশংকৈল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল মান্নান সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছে। এছাড়াও ঘটনাস্থল থেকে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল, একটি পাইপগান ও দুটি দেশি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তালেবানের বিরুদ্ধে রাণীশংকৈল ও বালিয়াডাঙ্গী থানায় আটটি মাদক মামলা রয়েছে।


খুলনা:


খুলনায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবুল কালাম (৪০) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত ৩টার দিকে জেলার দীঘলিয়া উপজেলার বারাকপুর সিদ্দিকপাশা খেয়াঘাটে এ ঘটনা ঘটে।


খুলনা জেলা পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ জানিয়েছেন, কালামের কাছে ১০০ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পাঁচটি মামলা রয়েছে।


চট্টগ্রাম:


চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে রায়হান উদ্দিন (২৮) নামে একজন নিহত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে খুন, ডাকাতি ও মাদকের সাতটি মামলা রয়েছে।


সীতাকুণ্ড থানার ওসি সৈয়দ ইফতেখার হাসান বলেছেন, ইয়াবা পাচারের খবরে’ পুলিশের একটি দল রাত ১টার দিকে নড়ালিয়া বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযানে যায়। সেখানে ইয়াবা পাচারকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রায়হানের মৃতদেহ পাওয়া যায়।


তিনি আরো বলেন, এ সময় রায়হানের তিন সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র, পাঁচ হাজার ইয়াবা, ২০ রাউন্ড গুলি ও দুটি ধারাল অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।


চাঁদপুর:


চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সেলিম (৩৭) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে সাতটি মাদক মামলা রয়েছে।


মতলব দক্ষিণ থানার ওসি কুতুব উদ্দিন বলেন, থানা ও ডিবি পুলিশের একটি যৌথ দল রবিবার ভোরে মতলব সড়কের হাজীর ডোন এলাকায় অভিযান চালিয়ে সেলিমকে আটক করে। এ সময় সেলিমের সহযোগীরা পুলিশের উপর গুলি ও হামলা চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে সেলিম গুলিবিদ্ধ হলে তাকে মতলব স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।


তিনি বলেন, বন্দুকযুদ্ধে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে চার রাউন্ড গুলি, ছয় রাউন্ড কার্তুজ, ১১০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।


ঝিনাইদহ:


ঝিনাইদহের শৈলকুপায় রফিকুল ইসলাম লিটন (৪০) নামে একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া গেছে। লিটন এলাকার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা এবং তার বিরুদ্ধে ১০টি মাদকের মামলাসহ ১২টি মামলা আছে।


শৈলকুপা থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন, রাত ১ টার দিকে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের পাশে শৈলকুপা উপজেলার বড়দাহ জামতলা এলাকায় লিটনের লাশ পাওয়া যায়। গোলাগুলির খবর পেয়ে মহাসড়কে থাকা টহল পুলিশ সেখানে পৌঁছে। ঘটনাস্থলে একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ পড়ে থাকতে দেখে। পরে তার পরিচয় জানতে পারে পুলিশ।


তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান, পাঁচ রাউন্ড গুলি, অনেকগুলো ব্যবহৃত গুলির খোসা, ১০ বোতল ফেন্সিডিল ও ৪০০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।


ময়মনসিংহ:


ময়মনসিংহ নগরীর মরাখলা এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক যুবক নিহত হয়েছে। এ সময় কনস্টেবল হুমায়ূন এবং আমির হামজা নামে দুই পুলিশ সদস্য আহত হন।


জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আশিকুর রহমান বলেন, শনিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে নগরীর মরাখলা এলাকায় মাদক বিক্রেতারা মাদক ভাগাভাগি করছে বলে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মাদক বিক্রেতারা পিছু হটলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে পাওয়া যায়। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ গ্রাম হেরোইন, ৪টি গুলির খোসা, ২টি রামদা, ১০০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারের কথাও জানান তিনি।


নোয়াখালী:


নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে হাসান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক কেনা-বেচাসহ বিভিন্ন অপরাধে ২১টি মামলা রয়েছে।


নোয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম জহিরুল ইসলাম বলেছেন, শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে বগাদিয়ায় মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে হাসান ও তার সহযোগীদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থলে হাসান মারা যায়। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি,৭ রাউন্ড কার্তুজ ও ১২০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।


কুষ্টিয়া:


কুষ্টিয়ায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে হালিম মন্ডল (৩৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।


গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে শহরের হাউজিং ডি-ব্লক মাঠে পুলিশ অভিযানে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে মাদক ব্যবসায়ীরা। জবাবে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে হালিম গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি শুটারগান, একটি পাইপগান, তিন রাউন্ড গুলি ও ৮০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।


কক্সবাজার:


কক্সবাজারের টেকনাফ থানার নোয়াখালীপাড়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে র‌্যাব-৭’এর বন্দুকযুদ্ধে তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও টেকনাফ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর একরামুল হক (৪৬) হক নিহত হয়েছে।


র‌্যাব জানিয়েছে, একরাম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদকের অসংখ্য মামলা রয়েছে।


র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজার ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর রুহুল আমিন বলেন, নোয়াখালিয়াপাড়ায় একটি মাদক চক্রের লোকজন ইয়াবার চালান লেনদেনের জন্য জড়ো হয়েছে খবরে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক চক্রের লোকজন এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করতে থাকে। আত্মরক্ষার্থে এক পর্যায়ে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এতে মাদক চক্রের লোকজন পিছু হটে পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পৌর কাউন্সিলর একরামুলের মৃতদেহ পাওয়া যায়।


ঘটনাস্থল থেকে ১০ হাজার ইয়াবা, একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ওয়ান শুটার গান, ছয় রাউন্ড গুলি ও পাঁচটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।


মেহেরপুর:


মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার গাড়াবাড়ীয়া গ্রামের বাথানমাঠে কথিত বন্ধুকযুদ্ধে হাফিজুর রহমান ওরফে হাফিজ (৪৮) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।


পুলিশ বলেছে, শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মাদক ব্যবসায়ী দুই গ্রুপের মধ্যে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ গোলাগুলির শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে হাফিজুরের লাশ পায়। হাফিজুর একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। নিজেদের মধ্যে গোলাগুলিতে সে নিহত হয়েছেন। গাংনী থানায় তার বিরুদ্ধে মাদকের দুই ডজনের বেশি মামলা রয়েছে।


বাগেরহাট:


বাগেরহাটের চিতলমারীতে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মিটুল বিশ্বাস (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। রবিবার ভোর রাতে চিতলমারী উপজেলার চিংগুড়ি মোচন্দপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। মিটুল উপজেলার চিংগুড়ি মোচন্দপুর গ্রামের খোকা বিশ্বাসের ছেলে।


চিতলমারী থানার ওসি অনুকুল বিশ্বাস বলেন, মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালে উপজেলার কুনিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে রাতে মিটুল বিশ্বাসকে আটক করা হয়। এ সময় তার দেয়া তথ্যমতে মাদকদ্রব্য উদ্ধার করতে যাওয়ার সময় চিংগুড়ি লুৎফর মেলেটারী বাড়ির বাগানে ওঁৎ পেতে থাকা তার সহযোগীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছোড়ে। এ সময় মিটুল পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তাৎক্ষনিক পুলিশও পাল্টাগুলি ছুটলে সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়।


ওসি বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মিটুল বিশ্বাসের মরদেহ উদ্ধার করে। এছাড়া ওই বাগানে তল্লাশি চালিয়ে একটি শটগান, ২ রাউন্ড গুলি, ২ কেজি গাঁজা ও ১০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ।


ওসি আরো বলেন, মিটুলের নামে ৯টি মাদক মামলা, হত্যা ও পুলিশের উপর হামলাসহ মোট ২২টি মামলা রয়েছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


বিবার্তা/জাকিয়া/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com