লামায় বসতবাড়ি দখলের চেষ্টা, ১৮ পরিবারের মানববন্ধন
প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২২, ২৩:০৯
লামায় বসতবাড়ি দখলের চেষ্টা, ১৮ পরিবারের মানববন্ধন
লামা প্রতিনিধি, বান্দরবান
প্রিন্ট অ-অ+

বান্দরবানের লামায় বসতবাড়ি দখলচেষ্টার অভিযোগে পাহাড়িকা প্লান্টেশন লিমিটেডের প্রকল্প পরিচালক মো. কামাল উদ্দিন ও মাঠ পরিচালক রবিউল হোসেন ভুইয়ার বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছেন সদর ইউনিয়নের পাহাড়ি ঠাকুরঝিরির ১৮ বাঙ্গালী পরিবার।


রবিবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে উপজেলা পরিষদের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করেছেন ভুক্তভোগীরা।


মানববন্ধনে ভুক্তভোগীরা বলেন, ১৯৮০ থেকে ৮১ সাল থেকে ম্যালেরিয়া, সন্ত্রাসী হামলা ও প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলা করে এবং শত বাধা উপক্ষো করে উপজেলার পোপা মৌজার ঠাকুরঝিরিতে নিজেদের জায়গায় বসবাস করে আসছি। সম্প্রতি কতিপয় ভুমিদস্যূ পাহাড়িকা প্লান্টেশনের নামে বিভিন্ন জনের নিকট হতে জালজালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে ভুয়া কবলিয়তের মাধ্যমে জায়গা ক্রয় করে ২৯৭নং পোপা মৌজাস্থ আমাদের বসতভিটা ও বাগান জোরপূর্বক দখল করে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র করছেন রবিউল হোসেন ভূইয়া ও পাহাড়িকা প্লান্টেশন লিমিটেডের প্রকল্প পরিচালক মো. কামাল উদ্দিন।


তারা বলেন, কোম্পানির মাঠ পরিচালক রবিউল হোসেন ভুইয়া আমাদেরকে জায়গা ছেড়ে চলে যেতে বলছেন, নতুবা সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে ও মিথ্যা মামলা করে এলাকা ছাড়া করবে। প্রয়োজনে ঘরে আগুন লাগিয়ে দিয়ে পুড়িয়ে হত্যাযজ্ঞ চালানোর হুমকি দিচ্ছেন তারা। তাই জীবন ও ঘরবাড়ী রক্ষার্থে আমরা মানববন্ধন করছি।


এ বিষয়ে পাহাড়িকা প্লান্টেশনের মাঠ পরিচালক রবিউল হোসেন ভুইয়ার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জায়গাগুলো পাহাড়িকা প্লান্টেশনের।যারা মানববন্ধন করেছেন, তাদের কোনো জায়গা জমি নাই। তারা তৃতীয় পক্ষের ইন্দনে পাহাড়িকা প্লান্টেশনকে বিতর্কিত করার জন্য পায়তারা করছে।


প্রকল্প পরিচালক মো. কামাল উদ্দিন, ১০ থেকে ১২ বছর আগে স্থানীয় রবিউল হোসেন ভুইয়ার মাধ্যমে ওই জায়গাগুলো ক্রয় করে পাহাড়িকা প্লান্টেশনের কার্যক্রম শুরু করি। জায়গাগুলো নিয়ে অতীতে কোন অভিযোগ ছিলনা। বর্তমানে জায়গার মূল্য বেড়ে যাওয়ায় ওই পরিবারগুলো কারো না কারো প্ররোচনায় আমাদের জমিগুলো দখলের চেষ্টা করছে মাত্র। এরপরও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে বসে ১৮ পরিবারের দাবি যথাযথ হলে সমাধানের চেষ্টা করবেন বলেও জানান তিনি।


স্মারকলিপি প্রদানের সত্যতা নিশ্চিত করে লামা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী শামীম বলেন, ভুক্তভোগী ১৮ পরিবারের স্মারক লিপিটি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবরে পাঠানো হবে।


বিবার্তা/আরমান/জামাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com