বার্সাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে সেমিতে বায়ার্ন
প্রকাশ : ১৫ আগস্ট ২০২০, ০৯:৩৪
বার্সাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে সেমিতে বায়ার্ন
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে বায়ার্ন মিউনিখ। বার্সাকে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত করেছে বায়ার্ন।


শুক্রবার (১৪ আগস্ট) দিনগত রাতে পর্তুগালের এস্তাদিও দো স্পোর্ট লিসবোন স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় দু’দল। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের নকআউট পর্বে যেকোনো দলের বিপক্ষে এটি বার্সার সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার।


জার্মান ক্লাবটির হয়ে জোড়া গোল করেছেন টমাস মুলার ও ফিলিপে কৌতিনহো। আর একটি করে গোল করেছেন ইভান পেরিসিচ, সার্জি জিনাব্রি, জশুয়া কিমিচ ও রবার্ট লেভানদস্কি।


পর্তুগালের ম্যাচের শুরুটা হয়েছিলো দুর্দান্ত। চার মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় বায়ার্ন। লেভানডস্কির কাছ থেকে পাওয়া বল মুলারের বাম পায়ের শট বার্সা গোলরক্ষক টার স্টেগানকে পরাস্ত করলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় জার্মান পাওয়ার হাউজ।


তবে এই লিড বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় নি। ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই সমতায় ফেরে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। তবে এতে বায়ার্নের অবদান বেশি। বার্সার আক্রমণ রুখতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল পাঠান বায়ার্নের দাভিদ আলাভা। আত্মঘাতী গোলে বার্সা ১-১ সমতায় ফেরে।


ম্যাচের নবম মিনিটে লুইজ সুয়ারেজ গোলের সুযোগ নষ্ট না করলে বার্সা এগিয়ে যেতে পারতো। পরে মিনিটেই বার্সার অারও একটি আক্রমণ বিফলে যায়। বল গোলবারে লেগে ফিরে আসে।


তবে এরপর পর ম্যাচের চিত্রটা পাল্টে যায় মুহূর্তেই। বায়ার্নের গতিময় ফুটবলের কাছে বার্সার রক্ষণ হয়ে যায় পাড়ার ফুটবলের মতো। ২১-৩১ এই ১০ মিনিটের ঝড়েই নষ্ট হয়ে যায় বার্সার সেমিফাইনালের স্বপ্ন।


২১ মিনিটে জিনাব্রির কাছ থেকে পেনাল্টি বক্সের বাম দিকে বল পেয়ে যান পেরিসিচ। বাম পায়ের জোড়ালো শটে বল জালে পাঠান এই ক্রোয়েশিয়ার অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। ২-১ গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন।


২৪ মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিলো বায়ার্ন। বার্সা গোলরক্ষক স্টেগানের কল্যাণে রক্ষা পায় বার্সা। ২৬ মিনিটে অারও একটি সহজ গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন লেভানদস্কি। বার্সার রক্ষনের ভুলে পেনাল্টি বক্সের ভেতরে বল পেয়ে যান এই পোলিশ স্ট্রাইকার। তার বাম পায়ের নেওয়া শটটি কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন স্টেগান।


২৭ মিনিটে আর ভুল করেননি জিনাব্রি। পেনাল্টি বক্সের ডান দিকে থেকে গোরেস্কার বাড়ানো বল খীপ্র গতিতে বার্সা ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে ডান পায়ের টোকায় বল জালে পাঠান তিনি। ৩-১ গোলের লিড পায় জার্মান চ্যাম্পিয়নরা।


বায়ার্নের চতুর্থ সাফল্য আসে ৩১ মিনিটে। কিমিচের কাছ থেকে বল পেয়ে পেনাল্টি বক্সে খানিক ভেতর থেকে ডান পারেয় শটে বল জালে জড়ান মুলার। প্রধমার্ধেই ৪-১ গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন মিউনিখ।


দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়াতে হলে অভাবনীয় কিছু করতে হতো বার্সেলোনাকে। ৫৭ মিনিটে গোল করে ভক্তদের মনে আশা জাগান সুয়ারেজ। তবে ৬ মিনিট যেতে না যেতেই পঞ্চম গোল আদায় করে নেয় বায়ার্ন। ডিবক্সে নেলসন সেমেদোকে ঘোল খাইয়ে জশোয়া কিমিখকে পাস দেন আলফোন্সে ডেভিস। কিমিখ সহজেই বল পাঠান জালে।


৮২ মিনিটে রবার্ট লেভানদোস্কির হেডে আসে বায়ার্নের ষষ্ঠ গোল। ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সেমিফাইনালে দুই লেগ মিলিয়ে বার্সাকে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল বায়ার্ন।


৮৫ মিনিটে বদলি নামা ফিলিপ কুটিনহোর গোলে সেই সংখ্যাটাও ছুঁয়ে ফেলে তারা। পরে আরো এক গোল করেন বার্সারই ফুটবলার কুটিনহো। সেই কুটিনহোই পরে ব্যবধান করেন ৮-২। এই ব্যবধানেই শেষ হয় ম্যাচ। ইতিহাসের বাজে এক হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।


ম্যানচেস্টার সিটি ও অলিম্পিক লিঁওর মধ্যে জয়ী দলের বিপক্ষে সেমিফাইনালে খেলবে বায়ার্ন মিউনিখ।


বিবার্তা/এসএ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com