তবু চলছেই ব্যাটারিচালিত রিক্সা!
প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর ২০২০, ২০:৪৬
তবু চলছেই ব্যাটারিচালিত রিক্সা!
জাহিদ বিপ্লব
প্রিন্ট অ-অ+

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় গত ৫ অক্টোবর থেকে ব্যাটারি চালিত রিক্সা ভ্যানের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। দুর্ঘটনা এবং যানজট এড়াতে মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস সম্প্রতি এই আদেশ প্রদান করেন।


কিন্তু সংশ্লিষ্টদের ঢিলেঢালা অভিযানের ফলে ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা, অটোভ্যান ও ইজিবাইকও চলছে অবাধে। অবৈধ যান দাবড়ে বেড়াচ্ছে পুরো শহর। এতে বাড়ছে দুর্ঘটনা। চার্জ দেয়ার নামে চলছে বিদ্যুৎ চুরির উৎসব।


জানতে চাইলে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন বিবার্তাকে বলেন, নগরীর বিভিন্ন স্থানে যান্ত্রিক রিক্সা ও যানবাহনের বিরুদ্ধে আমরা একদিন পরপর অভিযান পরিচালনা করছি। ৫ তারিখ থেকে গতকাল পর্যন্ত ঠিক কতটি যানবাহন ডাম্পিং করা হয়েছে তা জানাতে পারেননি।


জানা যায়, অভিযানও চলছে, আবার ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা, অটোভ্যান ও ইজিবাইকও চলছে অবাধে। অধিকাংশ ব্যাটারিচালিত যানের মালিকরা প্রভাবশালী। কয়েকদিন ধরেই ঢাকায় অবৈধ ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিক্সা ও ভ্যানের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। এমনকি কোনো কোনো এলাকায় এসব অবৈধ যান আটকের ঘটনাও ঘটেছে। এরপরও থেমে নেই এই অবৈধ বাহনটির চলাচল। কোনো কোনো এলাকায় এখন আর পায়ে চালিত রিকশা বা ভ্যান দেখাই যায় না। শুধুই অটোরিক্সা।


ফকিরেরপুল কাঁচা বাজারের ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন বলেন, মানুষ আগে রাতে রাস্তায় ট্রাক দেখলে ভয় পেত এখন রাতে ব্যাটারিচালিত ভ্যান দেখলে মানুষ ভয় পায়। ওই ব্যবসায়ী বলেন, রাতে শত শত ভ্যান মালামাল নেয়ার জন্য রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসে। বেশির ভাগই ব্যাটারিচালিত। এগুলো এতটাই বেপরোয়া যে প্রতিদিনই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে কারওয়ানবাজার ও এর আশপাশের এলাকায়।


রাজধানীর খিলগাঁও, মান্ডা, নন্দিপাড়া, রামপুরা, ইসলামবাগ, ধানমন্ডি, কামরাঙ্গীরচর, সোয়ারিঘাট, বাবুবাজার, দিয়াবাড়ি, তুরাগ, দক্ষিণখান, মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ, হাজারীবাগ, রায়েরবাগ, মানিকনগর, বাসাবো, মুগদা, উত্তরখান, ডেমরা, যাত্রাবাড়ী, শ্যামপুরসহ প্রায় সব এলাকাতেই অবাধে চলছে ব্যাটারিচালিত রিক্সা-ভ্যান ও ইজিবাইক। এসব বাইকে চার্জ দেয়ার জন্য রাজধানীতে অন্তত দুই হাজার গ্যারেজ রয়েছে।


মানিকনগরের এক গ্যারেজ মালিক বলেন, তার গ্যারেজে মোট ৬০টি রিক্সা-ভ্যান থাকে। এর মধ্যে ২৮টি হচ্ছে ব্যাটারিচালিত। এই ২৮টি মধ্যে বেশির ভাগেরই মালিক স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি ও পুলিশের কয়েকজন সদস্য। কয়েকটি গাড়ি আছে যার মালিক রিক্সাওয়ালা। ওই প্রভাবশালী ও পুলিশ সদস্যদের গাড়িগুলো এখনো রাস্তায় বের হয়। রিক্সাওয়ালাদের গাড়ি গত অভিযান শুরুর পর থেকে আর মূল রাস্তায় বের না হয়ে অলিগলিতেই চলে।


জানা যায়, অভিযান পরিচালনা করার জন্য ইতোমধ্যেই দুজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। নগরীর বিভিন্নস্থানে যান্ত্রিক রিক্সা ও যানবাহনের বিরুদ্ধে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে। এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর হতে ডিএসসিসি রিক্সা, ভ্যান, ঠেলাগাড়ি, টালিগাড়ি ও ঘোড়ার গাড়ির নিবন্ধন- নবায়ন আবেদনের কার্যক্রম শুরু করে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ব্যাটারিচালিত রিক্সা-ভ্যান ডিএসসিসি এলাকার সড়কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন। তিনি সেদিন ইঞ্জিনচালিত রিক্সা বা যানবাহন সড়কে পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন।


বিবার্তা/বিপ্লব/জাই

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com