সংকট কাটাতে তৎপর জাতীয় পার্টি
প্রকাশ : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৫৪
সংকট কাটাতে তৎপর জাতীয় পার্টি
জাহিদ বিপ্লব
প্রিন্ট অ-অ+

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর অনেকের ধারণা ছিল দলটি বিলিন হয়ে যাবে। অথবা কয়েকভাবে বিভক্ত হয়ে যাবে দলটি। এরশাদের মৃত্যুর পর অনুষ্ঠিত পার্টির সম্মেলনে ছোট ভাই জিএম কাদের দলের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার কিছুদিন পর দলে জিএম কাদের বিরোধীরা তৎকালীন সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করে পৃথক দলও ঘোষণা করেন। পার্টির সিনিয়র কয়েনকজন শীর্ষ নেতারাও মুখ ফিরিয়ে নেন দলের কর্মকাণ্ড থেকে। কিন্তু এরশাদের মৃত্যুর এক বছরের মাথায় দল বিলীনের আশঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়ে জাতীয় পার্টি এখন জিএম কাদেরর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। রওশন এরশাদ পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে সর্বাত্বক সহযোগিতা করছেন। পার্টির সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড গতিশীল করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ পদ মহাসচিব পদে পরিবর্তন এনেছেন। সব মিলিয়ে সংকট কাটাতে তৎপর জাতীয় পার্টি।


জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বিবার্তাকে বলেন, পার্টি এখন ঐক্যবদ্ধ। পার্টির সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড গতিশীল করার জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলুকে মহাসচিব করা হয়েছে। পার্টির ভিত্তিকে আরো শক্তিশালী করার জন্য বিভাগ থেকে শুরু ইউনিয়ন পর্যন্ত ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মেয়াদোত্তীর্ণ জেলার কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত হচ্ছে। মহামারি করোনা এবং বন্যায় আমাদের সারাদেশের নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষের পাশে এসেছে। সবমিলিয়ে পার্টি ইউনাউটেড।


নেতাকর্মীরা বলেছেন, দলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাপায় কে হবে পার্টির কর্ণধার এ নিয়ে শুরু হয় এরশাদ পরিবারের ভেতরে লড়াই। আর এই লড়াইয়ের কারণে পার্টির কয়েকজন শীর্ষ নেতা দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়ে। কিন্তু জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে মহাসচিব করায় পার্টি থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখা নেতারাও জিএম কাদেরের নেতৃত্বে সক্রিয় হয়েছেন। এইচ এম এরশাদের মৃত্যুবার্ষিকীতে রওশন এরশাদের বাসায় যান জিএম কাদের। এতে তাদের ঐক্য ফুটে উঠে। তাদের মধ্যে রয়েছে মুঠোফোনে নিয়মিত যোগাযোগ। এছাড়া এরশাদের মৃত্যুর পর পার্টিতে দেখা দেয় অর্থ সংকট। জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্যসহ অন্যান্য পদের নেতারা নিয়মিত মাসিক চাঁদা দিচ্ছেন না। এতে করে দলের বনানী কার্যালয় ও কাকরাইলস্থ জাপা অফিসের খরচ বহন করতেও হিমশিম খেতে হয়। এসব সংকট উত্তরনের বিষয়ে তৎপর নীতিনির্ধারকরা।


পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু বলেন, পার্টির সকল নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে দলকে একটা শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যেতে চায়। এজন্য সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড শুরু করেছি। ১৫ আগস্ট আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎবার্ষিকী পালন করেছি। আমরা জেলায় জেলায় টেলিকনফারেন্সে কথা বলার উদ্যোগ নিয়েছি। অঙ্গ সংগঠনগুলোর সঙ্গেও কথা হবে।


তিনি বলেন, নতুনভাবে মহাসচিবের দায়িত্ব পাওয়ার পর পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক বেগম রওশন এরশাদ অভিনন্দন জানিয়েছেন। বিভিন্ন বিষয়ে নির্দেশনা নিচ্ছেন। পার্টির সিনিয়র নেতারাও এখন সক্রিয়।


জানা যায়, করোনার পার্টির কার্যক্রম ধরে রাখার জন্য জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে পিপিই, হ্যান্ড গ্লাভস, ফেস মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। দলীয় ও দলের সমর্থক বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের সমন্বয়ে গঠিত টেলিমেডিসিন টিম গঠন করে তাদের নাম, মোবাইল নম্বর, মোবাইল করার সময় এবং কী বিষয়ে বিশেষজ্ঞ সেটি জানিয়ে তালিকা প্রকাশ করে তা জনগণের মাঝে প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যার সুফল অনেকেই গ্রহণ করেছেন, এখনও করছেন। বন্যার্তদের মাঝে খাবার বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এসব কর্মকাণ্ডের মধ্যদিয়ে সক্রিয় রয়েছে জাপা।


পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, দল এখন ভাল অবস্থানে রয়েছে। পার্টির চেয়ারম্যান ডায়নামিক মহাসচিব নিয়োগ দিয়েছেন। পার্টি সামনে আরো সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হবে। পার্টি এখন ঐক্যবদ্ধ।


বিবার্তা/জাহিদ/জাই

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com