রাজধানীতে পহেলা বৈশাখে করোনার প্রভাব
প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:১১
রাজধানীতে পহেলা বৈশাখে করোনার প্রভাব
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

পহেলা বৈশাখ বঙ্গাব্দের প্রথম দিন, তথা বাংলা নববর্ষ। দিনটি বাঙালি জাতির ঐতিহ্যবাহী বর্ষবরণের দিন। দিনটি নববর্ষ হিসেবে বিশেষ উৎসবের সাথে পালিত হয়। সে হিসেবে এটি বাঙালিদের একটি সার্বজনীন লোকউৎসব হিসাবে বিবেচিত। কিন্তু এবার এই উৎসবে হানা দিয়েছে করোনাভাইরাস।


প্রাণঘাতি এই ভাইরাসের প্রকোপে স্থবির হয়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব। বাংলাদেশেও প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমিতের সংখ্যা। সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে সাধারণ ছুটি, এলাকায় এলাকায় চলছে লকডাউন। বাতিল করা হয়েছে পহেলা বৈশাখের সকল অনুষ্ঠান। যার প্রভাব পড়েছে উৎসবটিকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠা ব্যবসা-বাণিজ্যে। পহেলা বৈশাখের উৎসব বাতিল হওয়ায় প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন ব্যবসায়ীরা।



ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পহেলা বৈশাখ ও ঈদ এই দুটি উৎসবেই পোষাকের বেচাকেনা জমে ওঠে। বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা এই দুটি উৎসবে টার্গেট করেই পরিকল্পনা সাজান। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের কারণে ইতোমধ্যেই পহেলা বৈশাখের সবকিছু স্থগিত হয়ে গেছে। সার্বিক পরিস্থিতিতে ঈদের ক্ষেত্রে কোন আশার আলো দেখছেন না তারা।


পুরান ঢাকার কাপড় ব্যবসায়ী উজ্জল সরকার বিবার্তাকে জানান, পহেলা বৈশাখের সাথে গত কয়েকবছর ধরেই নতুন পোষাক অন্যতম অনুসঙ্গ হিসেবে জড়িয়ে গেছে। ছেলেদের শার্ট, টিশার্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, মেয়েদের কামিজ, থ্রিপিস, বৈশাখের শাড়ি, শিশুদের জন্য সাদা-লালের সমন্বয়ে বাহরি পোষাক। ক্রেতারা মার্কেটে গিয়ে কিংবা অনলাইনে অর্ডার করেই এসব সংগ্রহ করে। দেশের ফ্যাশনহাউজগুলো থেকেই এই পোষাক সরবরাহ করা হয়। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের কারণে সব বাতিল করা হয়েছে।



এদিকে, বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিনটিকে বরণ করার জন্য রমনা পার্ক ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজন করা হত নানা রকমের অনুষ্ঠান। এসব অনুষ্ঠান নির্বিঘ্ন ও সুষ্ঠুভাবে যাতে নগরবাসী উপভোগ করতে পারে সে লক্ষ্যে রমনা পার্ক ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগত দর্শনার্থীদের বাহির এবং প্রবেশে ডিএমপির পক্ষ থেকে নিদের্শনাও দেয়া হত। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের জন্য ওইসব প্রস্তুতি নেই পুলিশের। উল্টো ওইসব এলাকায় যাতে জনসমাগম না হতে পারে সেই লক্ষ্যে কাজ করছে তারা।


পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এলাকা, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, রমনা পার্ক, রবীন্দ্র সরোবর, রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ মোড়, পাড়া-মহল্লার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসহ সব স্থানে সতর্ক থাকবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। কেউ যেন কোনো ধরনের সুযোগ নিতে না পারে সেজন্যই এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।



সূত্রমতে, পহেলা বৈশাখে সব অনুষ্ঠান স্থগিত থাকলেও এদিন অতি উৎসাহী লোকজনকে নজরে রাখছে পুলিশ। তারা যেন মুখোশ বহন, মানুষের বিরক্তির কারণ ভুবুজেলা না বাজাতে পারে সেদিকে সতর্ক আছে পুলিশ।


ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের ডিসি মো. মাসসুদুর রহমান বলেন, সব কিছুই বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে পহেলা বৈখাশের কোনো অনুষ্ঠানও হবে না। তারপরও আমরা সতর্ক আছি। কোনোভাবেই মানুষ ঘর থেকে বের হয়ে যেন রাস্তায় জড়ো হতে না পারে। যেসব স্থানে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানের আয়োজন হতো সেই স্থানগুলো বন্ধ করা হয়েছে।


বিবার্তা/খলিল/আবদাল

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com