করোনা প্রতিরোধে নিরবেই সবার মন জয় করছে পরশুরাম যুবলীগ
প্রকাশ : ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২১:৩৮
করোনা প্রতিরোধে নিরবেই সবার মন জয় করছে পরশুরাম যুবলীগ
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

নেই কোনো ফটোসেশন। নেই কোনো মহড়া। নেই কোনো প্রচারণা। আছে শুধু পরিকল্পনা। আর সেই পরিল্পনাকে বাস্তবায়নে রাতের আধাঁরে নেতাকর্মীরা অসহায়দের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, দিনের বেলাও তারা করোনা সচেতনায় মানুষের দ্বারে দ্বারে ছুটে বেড়াচ্ছেন। পাড়া-মহল্লা, হাট-বাজারে সামাজিক দূরত্ব সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করছেন। নিরবে এসব কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলা যুবলীগ।


জানা গেছে, সারা বিশ্বে মহামারি হিসেবে দেখা দিয়েছে করোনাভাইরাস। আর ওই মহামারি গত ৮ মার্চ বাংলাদেশেও আঘাত আনে। সর্বশেষ তথ্যমতে এ ভাইরাসে বাংলাদেশে ১২৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর প্রাণ হারিয়েছেন ১২ জন। তবে ওই যুদ্ধে জয় লাভের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এছাড়াও সারা দেশে সরকারের পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ওই নির্দেশনা পাওয়ার পর থেকে ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলা যুবলীগ নেতাকর্মীরা করোনাভাইরাস মোকাবেলায় মাঠে নেমেছে। তারা নিরবে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। বিভিন্ন বাজার-হাটে গিয়ে সচেতনতা মূলক বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।



খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে গায়ে যুবলীগ লোগো সম্বলিত টি-শার্ট পরে কাঁধে স্প্রেয়ার নিয়ে জীবাণুনাশক ঔষধ ছিটাচ্ছেন কেউ কেউ। আবার কেউ রং দিয়ে গোল নিরাপদ চিহ্ন আঁকছেন। কেউ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করছেন। আবার কেউ কেউ রাতের আধাঁরে অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। পৌঁছে দিচ্ছেন খাদ্য সামগ্রী। তাদের এ কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছে এলাকার লোকজন। তার বলছেন, তাদের এ কার্যক্রম প্রশংসার যোগ্য।



দলীয় সূত্রে জানায়, করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে দেশব্যাপী চলমান সাধারণ ছুটিতে চরম আর্থিক সংকটে পড়েছে এক শ্রেণির মানুষ। অসহায় মানুষকে নীরবে খাদ্য সহায়তা দিতে এগিয়ে এসেছে পরশুরাম উপজেলা যুবলীগ। ওই লক্ষ্যে গত শুক্রবার পরশুরাম উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা কার্যালয়ে খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এ কার্যক্রমের নাম দেয়া হয় ‘ভালোবাসার উপহার’। এসময় উপস্থিত ছিলেন ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি খায়রুল বাশার মজুমদার তপন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন মজুমদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেল।



সহযোগিতা কার্যক্রম উদ্বোধনে আরো উপস্থিত ছিলেন পরশুরাম উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান এনামুল করিম মজুমদার বাদল, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হোসেন মহিম, উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আবদুল মান্নান লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক এনাম, প্রচার সম্পাদক একরামুল হক চৌধুরী পিয়াস, উপজেলা যুবলীগের ক্রীড়া সম্পাদক আবুল কালাম।


উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ইয়াছিন শরীফ মজুমদার বিবার্তাকে বলেন, সহায়তার নাম দেয়া হয়েছে 'ভালোবাসার উপহার'। দুর্যোগকালীন এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে যতদিন স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরে না আসে। প্রাথমিকভাবে ৩শ পরিবারের জন্য খাদ্য মজুদ করা হয়েছে।



তিনি বলেন, তীব্র অভাবে পড়েছেন কিন্তু প্রকাশ্যে আসতে পারছেন না এমন মানুষদের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। সাহায্যের জন্য ফোন পেয়ে আমরা গোপনে রাতের বেলা তার ঘরে খাদ্যপণ্য পৌঁছে দিচ্ছি। উপকারভোগীর সামাজিক মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে তার ছবি ব্যবহার হতে সবাই বিরত থাকছি।


তিনি বলেন, যেকোনো অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। আমার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর অথবা যেকোনোভাবে আমাদের জানালে খাদ্য সহায়তা ঘরে পৌঁছে যাবে।


খাদ্য সহায়তায় প্রয়োজনীয় আর্থিক যোগান প্রসঙ্গে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি বলেন, আমার ব্যক্তিগত তহবিল হতে কাজটি শুরু হলেও ইতোমধ্যে দলীয় স্বচ্ছল নেতাকর্মী ও আমার শুভাকাক্সক্ষীরা যুক্ত হয়েছেন। তিনি জানান, উপজেলা আাওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহযোগিতায় এগিয়ে আসবেন বলে নিশ্চিত করেছেন।


ইয়াছিন শরীফ মজুমদার আরো জানান, নিম্মবিত্ত-মধ্যবিত্তদের সহায়তা করতে যুবলীগ টিম গঠন করা হয়েছে। ওই টিম প্রতিদিন কোনো না কোনো এলাকায় খাদ্যদ্রব্য পৌছে দিচ্ছে।


তিনি জানান, ইতিমধ্যে পৌরসভা এলাকায় ৫০, বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের সাতকুচিয়া, পৌর এলাকার অনন্তপুর, দক্ষিণ কোলাপাড়া এলাকায় ৪০, চিথলিয়া ইউনিয়নের অলকা, নোয়াপুর, চন্দনা, শ্রীপুর, জঙ্গলঘোনা, রাজষপুর, মালিপাথর, শালধর, দুর্গাপুর, ধনিকুন্ডা, চিথলিয়া এলাকায় ১শ, মির্জানগর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ৭০ পরিবারকে নিত্যপণ্য প্রদান করা হয়। আরো অন্তত ২শ প্যাকেটজাত করা হয়েছে। প্রতি প্যাকেটে চাল ৫ কেজি, আলু ২ কেজি, তেল ১ লিটার, পেঁয়াজ ১ কেজি, চিরা ১ কেজি ও লবণ ১ কেজি রয়েছে। এছাড়াও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার লক্ষ্যে চিথলিয়া ইউনিয়নের ধনিকুন্ডা বাজার, চিথলিয়া বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় মার্কিং করা হয়েছে বলে জানান তিনি।



এর আগে গত ৩০ মার্চ করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে উপজেলার বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের বক্সমাহমুদ বাজার, সাহেবের বাজার, খন্ডলহাই বাজারের, সাতকুচিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলে রাস্তাঘাট, দোকানপাট এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহে জীবাণুনাশক স্প্রে প্রয়োগ করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইয়াসিন শরীফ মজুমদার।


এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে বক্সমাহমুদ ইউনিয়নে আমরা রাস্তাঘাট ও যানবাহনে জীবাণুনাশক স্প্রে করেছি। এছাড়া গরীব অসহায় ও রিকশা-ভ্যানচালকদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছি। বাজারের ফার্মেসীগুলোতে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার জন্য সাদা রং দিয়ে গোল চিহ্ন অংকন করেছি।


উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য এম শফিকুল হোসেন মহিম বলেন, গত তিন দিন ধরে যুবলীগের নেতাকর্মীরা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে এ কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। আগামীতে আমরা চিথলিয়া ইউনিয়ন ও মির্জানগর ইউনিয়নেও করোনা সংক্রমণরোধ করতে কার্যক্রম চালাবো।


তিনি বলেন, সবাই সচেতন হলে আমাদের পরশুরাম উপজেলা করোনা সংক্রমণমুক্ত থাকবে। এ ব্যাপারে সকলকে সহযোগিতা করতে হবে।তিনি বলেন, করোনা যুদ্ধ মোকাবিলায় যুবলীগ টিমের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।


বিবার্তা/খলিল/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com