দুই সিটিতে ৫০টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ
প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ২০:১৮
দুই সিটিতে ৫০টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

আসন্ন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যে ভোট কেন্দ্রের তালিকা করেছে নির্বাচন কমিশন। ওই তালিকা থেকে প্রায় ৫০টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।


তবে ঝুঁকিপূর্ণ ভোট কেন্দ্রগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তা দেয়া হবে। এছাড়াও র‌্যাব ও বিজিবির পাশাপাশি সাদা পোশাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।


নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মোট ৫৪টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৮টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওইসব ওয়ার্ডে মোট ১ হাজার ৩১৮টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। ৭ হাজার ৮৪৬টি ভোট কক্ষ রয়েছে।


এছাড়াও ৭৫৪টি অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে। আর ওইসব কক্ষে মোট ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে ১৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫৬৭ জন পুরুষ ও ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জন নারী ভোটার রয়েছেন।


অপরদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশেনে ৭৫টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ২৫টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওইসব ওয়ার্ডে মোট ১ হাজার ১৫০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ চলবে। এর মধ্যে ৬ হাজার ৫৮৮টি ভোট কক্ষে ভোটাররা ভোট প্রদান করবেন। এছাড়াও ৮৭৬টি অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে দক্ষিণ সিটিতে।


ওই সিটিতে ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে ১২ লাখ ৯৩ হাজার ৪৪১ জন পুরুষ ও ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৩ জন নারী ভোটার রয়েছেন।


তবে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে ৫০টি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটিতে ২৩টি আর দক্ষিণ সিটিতে রয়েছে ২৭টি কেন্দ্র। এসব ভোট কেন্দ্রে সুস্থ ভোট গ্রহণ নিয়ে চিন্তিত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও নির্বাচন কমিশন।


ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলো হচ্ছে বাড্ডা প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাড্ডা হাইস্কুল, তেজগাঁও কলেজ, সেন্ট্রাল রোডের আইডিয়াল কলেজ, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, ঢাকা কমার্স কলেজ মিরপুর, ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ, আল হেরা কলেজ, বাড্ডা কলেজ, নিকুঞ্জ মডেল কলেজ, পল্লবী কলেজ, রামপুরা একরামুন্নেছা ডিগ্রি কলেজ, লালমাটিয়া মহিলা কলেজ, শের-ই-বাংলা আদর্শ মহিলা কলেজ, মণিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর মহিলা কলেজ, তেজগাঁও মহিলা কলেজ, উত্তরা মডেল টাউন স্কুল, নিউ মডেল ডিগ্রি কলেজ, কল্যাণপুর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরার ঢাকা ওমেন কলেজ, খিলগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মতিঝিল, নটরডেম কলেজ মতিঝিল, ঢাকা সিটি কলেজ, ওয়ারীর সলিমুল্লাহ ডিগ্রি কলেজ, সিদ্ধেশ্বরী ডিগ্রি কলেজ, মতিঝিল মডেল হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, আবুজর গিফারি ইউনিভার্সিটি কলেজ, মালিবাগ অগ্রণী স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আরামবাগ গার্লস হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শহীদুল্লাহ কলেজ বকশীবাজার, হাবিবুল্লাহ বাহার কলেজ, পুরানা পল্টন গার্লস কলেজ, আরকে চৌধুরী কলেজ সায়েদাবাদ, দনিয়া কলেজ, ঢাকা সিটি ইন্টারন্যাশনাল কলেজ শহীদবাগ, ইস্পাহানি স্কুল এন্ড কলেজ, কমলাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ, খিলগাঁও গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, খিলগাঁও মডেল কলেজ, মেহেরুন্নেছা গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মির্জা আব্বাস ওমেন্স ডিগ্রি কলেজ শাহজাহানপুর, শাহ আলী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শান্তিবাগ স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শেখ বোরহান উদ্দিন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কলেজ, টি অ্যান্ড টি কলেজ মতিঝিল ও বদরুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজ।


এদিকে ভোটের দিন মোট ৪০ হাজার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মাঠে থাকবে। প্রতি সাধারণ কেন্দ্রে ১৬ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮ জন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য থাকবে। এছাড়া স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে র‌্যাব ও বিজিবি মোতায়েন থাকবে।


এছাড়াও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে সংখ্যা অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হবে। আর মাঠে অবস্থানরত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মনিটরিং করার জন্য আইন শৃঙ্খলা সমন্বয় ও মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। গত ২৩ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশনের উপ সচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।


এতে বলা হয়েছে, দুই সিটি নির্বাচনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি হিসেবে জননিরাপত্তা বিভাগের উপ সচিব পদমর্যাদা সম্পন্ন একজন কর্মকর্তা, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদা সম্পন্ন একজন কর্মকর্তা, বিজিবি, র‌্যাব, আনসার, ভিডিপি এর মেজর ও উপপরিচালক পদমর্যাদাসম্পন্ন একজন কর্মকর্তা ও আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বা সহকারী পুলিশ পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তা থাকবেন। তারা আাগারগাঁও নির্বাচন অফিস থেকে আইন-শৃঙ্খলার বিষয়টি মনিটরিং করবেন।


নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর সাংবাদিকদের জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষে সকল ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সময়মত নির্বাচনী এলাকাগুলোতে র‌্যাব, পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হবে। যে কোনো মূল্যেই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ করা হবে।


এদিকে, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার ও সহিংসতাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মাঠে কাজ শুরু করছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। ইতোমধ্যে রাজধানীর লালবাগের সাহেব বাজার এলাকা থেকে আশিকুর রহমান (৩০) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ও চার রাউন্ড গুলি এবং একটি শ্যুটার গান ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।


এ নিয়ে ডিএমপিতে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) আব্দুল বাতেন বলেন, ঢাকার বাইরের সন্ত্রাসীরা ঢাকায় আসার সঙ্গে সঙ্গে আমরা গ্রেফতার করবো। অস্ত্রসহ এলে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করবো। আশিকুর রহমান জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, বেনাপোল সীমান্ত এলাকা থেকে সে এই অস্ত্রগুলো ঢাকায় নিয়ে আসে। ঢাকার সিটি নির্বাচন উপলক্ষে বিভিন্ন লোকের কাছে বিক্রির জন্য অস্ত্রগুলো সে ঢাকায় নিয়ে এসেছিলো। ঢাকায় আসার সঙ্গে সঙ্গে আমরা তাকে গ্রেফতার করেছি।


তিনি বলেন, এই অস্ত্রগুলো আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করার জন্য এবং সহিংসতা করার জন্য আনা হয়েছিল। আশিকুরের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে তিনি জানান।


প্রসঙ্গত, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। দুই সিটির প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।


বিবার্তা/খলিল/উজ্জ্বল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com