বাংলাদেশের আইসিটি সেক্টরে একযোগে কাজ করবে ভারত
প্রকাশ : ১৯ জুন ২০১৯, ১৯:০৪
বাংলাদেশের আইসিটি সেক্টরে একযোগে কাজ করবে ভারত
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেশের হাই-টেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগসহ আইসিটি খাতে যৌথভাবে কাজ করবে ভারত।


আজ আগারগাঁওস্থ আইসিটি টাওয়ারের বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ সভাকক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই-কমিশনার শ্রীমতী রীভা গাঙ্গুলি দাশ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সাথে বৈঠককালে এ কথা বলেন।


হাই-কমিশনার বাংলাদেশের আইটি খাতের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিশন অনুযায়ী অল্প সময়ে বাংলাদেশের আইসিটি খাতসহ সকল খাতের অগ্রগতি দৃশ্যমান।


পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে, বিশেষ করে প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে আইসিটি খাতের উন্নয়নে সহযোগিতা ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভারত সরকার বাংলাদেশের সাথে কাজ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন রীভা গাঙ্গুলি দাশ।


বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধিদলের অন্যান্য সদস্যগণের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের ডিপুটি হাই-কমিশনার বিশ্বজিৎ দে, আইটি বিষয়ক দ্বিতীয় সচিব নবীন সর, ভিসা বিষয়ক দ্বিতীয় সচিব বিশাল জ্যোতি দাশ ও ভয়েন্টস সল্যুউশনস প্রাইভেট লি. এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট সওটি আগারওয়াল।


বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে ছিলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।


এ সময় তারা দুই দেশের পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ করে মানবসম্পদ উন্নয়ন, আইটিশিল্পের বিকাশ ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ভারত সরকারের অর্থায়নে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন জেলা পর্যায়ে আইটি/হাই-টেক পার্ক স্থাপন (১২টি জেলায়) প্রকল্প, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের চলমান অগ্রগতি, আইসিটি খাতে বিনিয়োগ সম্ভাবনা, প্রযুক্তি হস্তান্তর, স্টার্টআপ তৈরির সংস্কৃতি গড়ে তুলতে সহযোগিতা প্রদানসহ বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।


মতবিনিময় অনুষ্ঠানে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের অসামান্য অবদান কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন। তিনি ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের কথা তুলে ধরেন। নরেন্দ্র মোদীর সরকার ক্ষমাতায় আসার পরে বিভিন্ন অমীমাংসিত সমস্যার দ্রুত নিষ্পত্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা আরো প্রসারিত হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।


প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দুই দেশের বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাস পেয়েছে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ করে আইসিটি সেক্টরে ভারতের বিনিয়োগ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দেশের ১২টি জেলায় হাই-টেক পার্ক স্থাপন প্রকল্পে ভারত সরকার অর্থায়ন করছে। অদূর ভবিষ্যতে ভারত বাংলাদেশে তাদের সহযোগিতার ক্ষেত্র আরো প্রসারিত করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


পলক বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী গ্রামকে শহরে রূপান্তরিত করা, তারুণ্যের শক্তিকে কাজে লাগানো ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দুর্নীতিমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করছে।


তিনি তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত বিভিন্ন কর্মসূচি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে বাস্তবায়নাধীন ২৮টি হাই-টেক পার্ক, ইনফো সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্প, ডাটা সেন্টার, স্টার্টআপ প্রকল্পসহ আইসিটি সেক্টরের চলমান কার্যক্রম হাই-কমিশনারকে অবহিত করেন। প্রতিমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আইসিটি খাতে ভারত সরকারের সহযোগিতার কামনা করেন।


উল্লেখ্য, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন জেলা পর্যায়ে আইটি/হাই-টেক পার্ক স্থাপন (১২টি জেলায়) প্রকল্পের আওতায় ৩০ হাজার তরুণ-তরুণীকে আইটি প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রকল্পের আওতায় নির্মিতব্য স্থাপনাসমূহের মধ্যে রয়েছে ১২টি জেলায় ৭ তলা (প্রতি তলা ১৫,০০০ বর্গফুট) মাল্টিটেনেন্ট ভবন নির্মাণ (স্টিল স্ট্রাকচার); ১২টি জেলায় ৩ তলা (প্রতি তলা ৭,০০০ বর্গফুট) ক্যান্টিন ও এমপি থিয়েটর ভবন (স্টিল স্ট্রাকচার); ৮টি জেলায় ৩ তলা (প্রতি তলা ৬,০০০ বর্গফুট) ডরমিটরি ভবন (আর সিসি স্ট্রাকচার) এবং ১২টি জেলায় ইলেকট্রো-মেকানিক্যাল কাজ। এছাড়া এই প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত ল্যাব স্থাপন করা হবে।


বিবার্তা/উজ্জ্বল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com