‘রামপালের বিরুদ্ধে বললেই নাকি ভারতবিরোধী’
প্রকাশ : ০৩ অক্টোবর ২০১৬, ১৬:২৩
‘রামপালের বিরুদ্ধে বললেই নাকি ভারতবিরোধী’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল বলেছেন, একটি অদ্ভুত কথা বলা হয়, যারা রামপালের বিরুদ্ধে কথা বলে, তারা নাকি ভারতবিরোধী। আমার কথা হচ্ছে, বাংলাদেশে সুলতানা কামাল, খুশী কবির, আনু মুহাম্মদরা যদি ভারতবিরোধী হয়ে যান, তাহলে ধরে নিতে হবে যারা ক্ষমতায় আছেন সেরকম কয়েকশ ছাড়া বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষই ভারতবিরোধী।



সোমবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (এ্যাব) আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। “রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র কারিগরি, অর্থনৈতিক এবং পরিবেশগত ত্রিমাত্রিক বিপত্তি” শীর্ষক এ গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়।



তিনি বলেন, এখানে কোনো যুক্তির্তকের বালাই নেই। ইউনেস্কো থেকে যে বিবৃতি দেয়া হয়েছে, সেটাও নাকি ভারতবিরোধীদের মতামতে প্রভাবিত হয়ে দেয়া হয়েছে। আমাদের একটা কথাই বলার আছে, রামপাল প্রজেক্টে অর্থনৈতিক, পরিবেশের ক্ষতি হবে। আমার নিজের কাছে মনে হয় রামপাল প্রজেক্টে বাস্তবায়নের হলে বাংলাদেশের অস্তিত্ব ক্ষতিগ্রস্ত হবে।



আসিফ নজরুল বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, রামপালের ব্যাপারে আপনারা যে ভূমিকা রেখেছেন, আমি তার প্রশংসা করি। আপনারা কখনোই এ ভূমিকা থেকে বিরত হবেন না। আপনারা ক্ষমতায় যান কিবা না যান, এসব আপনাদের মাথায় রাখার দরকার নাই। যখন দেশের অস্তিত্ব বিপন্ন হয়েছে, সেখানে আপনাদের সবসময়ে কঠোরভাবে কথা বলতে হবে।


বিএনপির মহাসচিবকে উদ্দেশ্য করে আসিফ নজরুল বলেছেন, আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করবো, ভারতের দালাল হওয়ার কোনো প্রতিযোগিতায় আপনাদের নামার দরকার নেই। আর ভারতের যারা দালাল আছে, তারা এমন জায়গায় নিজেদের নিতে পারে. যা আপনারা চেষ্টা করেও পারবেন না, বরং আপনাদের বাংলাদেশের কণ্ঠস্বর হওয়ার চেষ্টা সব সময়ে অব্যাহত রাখবেন।



গোলটেবিল বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ বলেন, দুর্নীতির জন্য মহাক্ষেত্র বানানো হয়েছে রামপাল প্রকল্প। এই প্রকল্প নিয়ে কথা বললে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হতে পারে। কেউ কোনো মন্তব্য না করে শেয়ার করলেই তার জন্য জেলের ব্যবস্থা আছে। সরকার বলে এই সরকার উন্নয়নের মূলমন্ত্র। আসলে এই সরকারের মূলমন্ত্র হল দুর্নীতি।



এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (এ্যাব) ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রকৌশলী আ ন হ আখতার হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও অর্থনীতিবিদ ড. মাহবুবউল্লাহ, ড. সুকোমল বড়ুয়া, সাংবাদিক সৈয়দ আবদাল আহমেদ প্রমুখ।



বিবার্তা/বিপ্লব/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com