আপাতত এলএনজি আমদানিই ভরসা: জ্বালানি উপদেষ্টা
প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০২২, ১৮:৫২
আপাতত এলএনজি আমদানিই ভরসা: জ্বালানি উপদেষ্টা
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

জ্বালানি তেলের সংকট মোকাবিলায় আপাতত এলএনজি আমদানিই ভরসা বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।


মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘বহুমুখী জ্বালানি সমৃদ্ধ আগামী’।


তিনি বলেন, এক সময় বলা হলো বাংলাদেশ গ্যাসে ভাসছে। ওইসব বিষয়ে আশাবাদী হওয়া ঠিক, কিন্তু বেশি নির্ভর করা ঠিক হবে না। অনেকে বলেন তিনটি কূপ খনন করলে একটিতে গ্যাস পাওয়া যায়। কিন্তু কতটুকু গ্যাস পাওয়া যায়। বাপেক্স গত ৫ বছরে ৩৪টি কূপ করেছে।


উপদেষ্টা বলেন, গভীর সাগরে গ্যাস পেলেও তা তুলতে ১০ বছর সময় লাগবে, ততদিন আমরা কি করবো। সে জন্য সাশ্রয়ী হবো, কিছু লোডশেডিং করেবো। আপাতত দীর্ঘমেয়াদি চুক্তির মাধ্যমে এলএনজি আনতে হবে।


ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, সারা বিশ্বেই বিপর্যয় এসেছে, এটাই শেষ না আরো আসতে পারে। উন্নত দেশও তাদের জ্বালানির দাম বাড়িয়েছে। জার্মানি পুরনো কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু করছে। আমরা যখন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র করলাম, পরিবেশবাদীরা বললো পরিবেশ শেষ করে দিলাম। আমাদের প্রযুক্তি উন্নত প্রযুক্তি এতে পরিবেশের ক্ষতি হবে না। অনেকে শতাংশ বলেন, শতকরা জিনিসটা ব্যবহার করবেন না। জার্মানিতে ৬০ হাজার, আমেরিকায় ২ লাখ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কয়লা দিয়ে উৎপাদন করা হচ্ছে।


বক্তারা বলেন, বর্তমান গ্যাস ফিল্ডগুলো ডাটা পুনঃমূল্যায়ন করি তাহলে আরো গ্যাস পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া সাগর ও পার্বত্য এলাকায় মনযোগ দেয়া গলে গ্যাসের রিজার্ভ আরো বৃদ্ধি পাবে। পার্বত্য এলাকায় ৪৩ টিসিএফ গ্যাস পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে জ্বালানি উপদেষ্টা এসব বক্তব্যকে একাডেমিক বলে উড়িয়ে দেন।


সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বেগম ওয়াসিকা আয়শা খান, বিপিসির চেয়ারম্যান এবিএম আজাদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, এনার্জি এন্ড পাওয়ার ম্যাগাজিনের সম্পাদক মোল্লাহ এম আমজাদ হোসেন, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. হেলাল উদ্দিন। তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেড, বাপেক্স, বিপিসিএমসিএল, ইআরএলসহ জ্বালানি বিভাগের আওতাধীন কোম্পানির পদস্থ কর্মকর্তারা অংশ নেন।


বিবার্তা/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com